Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

পাকিস্তানে পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজে হামলায় নিহত ৬১

প্রকাশের সময় : ২৬ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১১:৪২ পিএম, ২৫ অক্টোবর, ২০১৬

ইনকিলাব ডেস্ক : পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের রাজধানী কোয়েটায় একটি পুলিশ ট্রেনিং কলেজে সন্ত্রাসীদের হামলায় অন্তত ৬০ জন নিহত হয়েছেন। সোমবার দিবাগত রাতে নিউ সরিয়াব পুলিশ ট্রেইনিং কলেজে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় ১৬০ জন আহত হয়েছেন বলে প্রাদেশিক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
এদিকে হামলার দায় স্বীকার করেছে দুটি উগ্রপন্থী সংগঠন- ইসলামিক স্টেট (আইএস) এবং বেলুচিস্তানভিত্তিক নিষিদ্ধ সংগঠন লস্কর-ই-জঙ্গি। আইএসের অনলাইন মুখপত্র ‘আমাক’-এ হামলার দায় স্বীকার করে ‘প্রমাণ’ হিসাবে বন্দুকধারী তিন হামলাকারীর ছবি আপলোড করা হয়েছে। লস্কর-ই-জঙ্গি তালিবান সংশ্লিষ্ট একটি সংগঠন। তবে এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করেনি ইসলামাবাদ।
বেলুচিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সরফরাজ আহমেদ বুগতি জানিয়েছেন, ২০০ জন পুলিশ ক্যাডেট হামলার সময় সেখানে অবস্থান করছিলেন। সশস্ত্র তিনজন সন্ত্রাসী সেখানে হামলা চালায়। ওই সময় প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীরা ঘুমাচ্ছিলেন। পরে সেনাবাহিনী ও ফ্রন্টিয়ার কোরের যৌথ অভিযানে কলেজটি সন্ত্রাসীমুক্ত করা হয়। এক সংবাদ সম্মেলনে ফ্রন্টিয়ার কোরের মেজর জেনারেল শের আফগান জানান, হামলার সময় সন্ত্রাসীরা আফগানিস্তানে তাদের নিয়ন্ত্রকদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছিল। শের আফগান বলেন, হামলাকারী তিনজন ছিল এবং তাদের সবার গায়ে আত্মঘাতী হামলার পোশাক ছিল। হামলার পর দু’জন আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায়। তৃতীয় সন্ত্রাসী যৌথ বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়। তিনি আরো জানান, বিচক্ষণতার সঙ্গে অভিযানটি পরিচালনা করতে হয়েছে। ফলে কলেজকে সন্ত্রাসীমুক্ত করতে প্রায় চার ঘণ্টা লেগে গেছে। সন্ত্রাসীদের সঙ্গে গোলাগুলিতে যৌথ বাহিনীর কেউ তেমন গুরুতর আহত হননি। বেলুচিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মীর সরফরাজ আহমেদ বাগতি হতাহতের তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সন্ত্রাসী দমন অভিযান সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন হয়েছে। অপর এক খবরে বলা হয়, হামলার পর সেনাবাহিনী এবং ফ্রন্টিয়ার কোর অভিযান চালিয়ে ভবনে প্রায় ১০০ জিম্মি ক্যাডেটকে জীবিত উদ্ধার করেছে। হামলাকারীদের আফগানিস্তানের জঙ্গিদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল বলেও জানান শের আফগান। পুলিশের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, জঙ্গিরা কলেজটির পাঁচটি এলাকা থেকে গুলিবিনিময় করে। পরে সেনাবাহিনীর দু’টি হেলিকপ্টার জিম্মিদের উদ্ধারে কাজ করে। বেলুচিস্তানের প্রাদেশিক রাজধানী কোয়েটা। প্রশিক্ষণ কলেজটি কোয়েটার শারিয়াব সড়কে অবস্থিত। ২০০৬ এবং ২০০৮ সালেও এখানে হামলা হয়েছিল। এছাড়া গত আগস্টে কোয়েটার প্রধান হাসপাতালে এক হামলায় ৮৮ জন নিহত হয়। সূত্র : ডন, আল-জাজিরা, বিবিসি, সিএনএন।



 

Show all comments
  • সুরমা ২৬ অক্টোবর, ২০১৬, ১:৪৮ পিএম says : 0
    ওরা কে যে এগুলো করে ?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তানে পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজে হামলায় নিহত ৬১
আরও পড়ুন