Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

‘আমি প্রবাসী’ অ্যাপসে মন্ত্রণালয়ের অনুমতি ছাড়াই নিবন্ধন শুরু

মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রফতানি খোদ মন্ত্রণালয়ে তোলপাড়!

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০১ এএম

মালয়েশিয়ায় কর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরুর আগেই প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অনুমতি ছাড়াই নিবন্ধন শুরু করেছে বিএমইটির ‘আমি প্রবাসী’ কর্তৃপক্ষ। মালয়েশিয়াসহ অন্যান্য দেশে চাকরি নিয়ে যাওয়ার জন্য তিনশত টাকা চার্জ নিয়ে নিবন্ধন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে আমি প্রবাসী অ্যাপস। এ নিয়ে মালয়েশিয়া গমনেচ্ছু কর্মীরা প্রতারণার ফাঁদে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। একাধিক জনশক্তি রফতানিকারক এ অভিমত ব্যক্ত করেছেন। এ নিয়ে খোঁদ প্রবাসী মন্ত্রণালয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। উল্লেখ্য, দীর্ঘ দিন পর গত ১৯ ডিসেম্বর মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে দেশটি মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান ও বাংলাদেশি প্রবাসী মন্ত্রী ইমরান আহমদ জনশক্তি রফতানি সংক্রান্ত স্মমঝোতা স্বারক স্বাক্ষর করেন। চুক্তি শেষে দেশে ফিরে প্রবাসী মন্ত্রী প্রেস ব্রিফিংয়ে দালাল চক্রের কাছে পাসপোর্ট ও টাকা পয়সা না দেয়ার জন্য সর্তক করেন।
এদিকে, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) মহাপরিচালক শহীদুল আলম গত ২৩ ডিসেম্বর ও গতকাল রোববার বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় মালয়েশিয়া গমনেচ্ছু কর্মীদের জন্য জরুরি সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। ঐ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে গত ১৯ ডিসেম্বর কুয়ালালামপুরে জনশক্তি রফতানি সংক্রান্ত দ্বি-পাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করে মালয়েশিয়াগামী কর্মীদের বিএমইটির ডাটাবেজে নাম নিবন্ধনের জন্য যথা সময়ে প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হবে। মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণের বিষয়ে সরকারি ঘোষণার পূর্বে কোনো ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা রিক্রুটমেন্ট এজেন্টের সাথে সকল প্রকার আর্থিক লেনদেন থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করা হলো। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয় বিদেশ গমনের জন্য প্রলোভন ও প্রতারণার ফাঁদে পা দিবেন না। মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণের নামে অবৈধ ও আগাম লেনদেনের সাথে সম্পৃক্ত দায়ী রিক্রুটিং এজেন্সি বা তার প্রতিনিধি, ব্যক্তি, দায়ী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও অভিবাসী আইন ২০১৩ সহ সংশ্লিষ্ট আইন অনুযায়ী কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
মালয়েশিয়ায় যেতে এবার কর্মীদের বিএমইটির ডাটা ব্যাংকে নিবন্ধন বাধ্যতামূলক। অর্থাৎ বিএমইটির ডাটা ব্যাংকে নিবন্ধিত না হলে কেউ মালয়েশিয়ায় যেতে পারবেন না। গত ২৩ ডিসেম্বর পত্রিকায় দেয়া বিএমইটির বিজ্ঞপ্তর তোয়াক্কা না করে এবং মন্ত্রণালয়ের ঘোষণা বা অনুমতি না নিয়েই নিবন্ধন শুরু করেছে ‘আমি প্রবাসী’ নামের অ্যাপের প্রতিষ্ঠানটি। ২১ ডিসেম্বর বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ‘আমি প্রবাসী’ অ্যাপস কর্তৃপক্ষ তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে মালয়েশিয়ায় যেতে ইচ্ছুক কর্মীদের নিবন্ধন শুরু করেছে। শুধু তাই নয়, বিজ্ঞাপনটি ব্যাপক প্রচারের জন্য, বুস্টও (অধিক প্রচারের জন্য অনলাইন ব্যবস্থা) করা হয়েছে।
গত শনিবার রাত পর্যন্ত বিজ্ঞাপনটি ১০ হাজারের বেশি লাইক, ২১৬ কমেন্ট ও ১৫৪টি শেয়ার হয়। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, ২৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত মালয়েশিয়াগামী কর্মীদের নিবন্ধনের বিষয়ে কোনো ঘোষণা দেয়া বা সিদ্ধান্ত হয়নি। কবে নাগাদ ঘোষণা আসবে তাও অনিশ্চিত। যেখানে মালয়েশিয়ায় কর্মী যাওয়ার পদ্ধতি এখনো ঠিক হয়নি। কোন পদ্ধতিতে কর্মী যাবে, কোন কোন কাজে কর্মী নেবে মালয়েশিয়া তাও চূড়ান্ত হয়নি।
এমন পরিস্থিতিতে ও মন্ত্রণালয়ের ঘোষণা ছাড়াই বিএমইটির নিবন্ধনের নামে ‘আমি প্রবাসী’ কর্তৃপক্ষ যেই প্রক্রিয়া চালু করেছে, তাতে কর্মীদের প্রতারিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। এবিষয়ে যোগাযোগ করলে ‘আমি প্রবাসী’ অ্যাপস এর কর্ণধার নামির আহমেদ বিজ্ঞাপনের বিষয়টি স্বীকার করেন। তিনি বলেন, আমাদের ফেইসবুকে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিটি নিয়ে ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছে।
মালয়েশিয়াগামী কর্মীদের নিবন্ধন শুরুর বিষয়ে মন্ত্রণালয় জানে কি-না বা অনুমতি নিয়েছেন কি-না? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমরা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, মন্ত্রণালয় জানার বিষয় কিছু নেই। মালয়েশিয়া যেতে হলে তো বিএমইটির ডাটা ব্যাংকে সবাইকেই নিবন্ধন করতে হবে।’ মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য কী কী তথ্য দরকার বা কোন কাজে কী অভিজ্ঞতা লাগবে, সেই বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত হয়নি। এখনো মালয়েশিয়া সরকারের পক্ষ থেকেও কোনো পদ্ধতি জানানো হয়নি। তাহলে আপনারা নিবন্ধনের জন্য বিজ্ঞপ্তি দিলেন কিসের ভিত্তিতে? এমন প্রশ্নে নামির আহমেদ বলেন,’ বিজ্ঞপ্তিটা আমাদের টিম প্রধান রেদওয়ান দিয়েছে, এটার বিষয়ে তার সাথে কথা বলতে হবে। যদিও গেলো পাঁচ দিনে এই বিজ্ঞাপন দেখে অনেক কর্মী নিবন্ধন করেছেন এবং তাদের কাছ থেকে নিবন্ধন ফি নেয়া হয়েছে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, আমি প্রবাসী অ্যাপস কর্তৃপক্ষকে বিএমইটির পুরো ডাটা ব্যাংকের দায়িত্ব দেয়া হয়নি। এখন পর্যন্ত শুধু বিদেশগামীদের করোনা টিকা দেয়ার নিবন্ধনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তারা সকল বিদেশগামীদের নিবন্ধন করতে পারে না। আর মালয়েশিয়ার বিষয়ে এখনো তো কোন সিদ্ধান্তই হয়নি। আমি প্রবাসী অ্যাপসের প্রধান সমন্বয়কারী রেদওয়ান গতকাল রোববার ইনকিলাবের সাথে আলাপকালে মালয়েশিয়াগামী কর্মীদের নিবন্ধনে উদ্বুদ্ধ করার ব্যাপারে প্রবাসী মন্ত্রণালয় এবং বিএমইটির ডিজি’র অনুমতি নেয়া হয়েছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অনুমতি নেয়া হয়নি। আমি প্রবাসী অ্যাপসয়ে মালয়েশিয়া গমনেচ্ছু কর্মীদের নিবন্ধন করে স্বপ্ন পূরণে একধাপ এগিয়ে থাকার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশে কোন অন্যায় হয়নি বলেও তিনি দম্ভ করে বলেন। উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে রোমানিয়ায় কর্মী নিয়োগ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রবাসী মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ছাড়া ফেইসবুকে প্রকাশিত হওয়ায় বিজয়নগরস্থ প্রতিষ্ঠিত রিক্রুটিং এজেন্সির মালিককে দীর্ঘ দিন কারাভোগ করতে হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মালয়েশিয়ায়

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ