Inqilab Logo

রোববার, ২২ মে ২০২২, ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

চট্টগ্রামে আলোচিত ছয় ঘটনা

ফিরে দেখা-২০২১

রফিকুল ইসলাম সেলিম | প্রকাশের সময় : ১ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরকে ঘিরে হাটহাজারীতে বিক্ষোভ করেন মুসল্লিরা। এক পর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে চার জনের মৃত্যু হয়। বিভিন্ন দাবিতে বাঁশখালীতে এস আলমের কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের শ্রমিকেরা বিক্ষোভ এবং অবরোধ কর্মসূচি পালন করেন। সেখানে পুলিশের গুলিতে প্রাণ যায় পাঁচ শ্রমিকের। পরে হাসপাতালে মারা যান আরো দুই জন। আলোচিত চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিরোধী দল বিএনপির অংশগ্রহণের পরও তাদের কেউ বিজয়ী হতে পারেননি। প্রথমবারের মতো বিরোধী দলশূন্য চসিকের নির্বাচিত পরিষদ। চাঞ্চল্যকর মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার বাদি থেকে আসামি হয়ে এখন কারাগারে। অপরাধ না করেও অন্যের হয়ে দীর্ঘ কারাভোগ করেন মিনু আক্তার। কারাগার থেকে মুুক্তি পেয়ে রহস্যজনক এক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান তিনি। চট্টগ্রামের ফুসফুস খ্যাত সিআরবি সুরক্ষায় ব্যতিক্রমী আন্দোলন গড়ে উঠে। এই ছয়টি ঘটনা চট্টগ্রামে গেল বছরের অন্যতম আলোচিত।
হাটহাজারীতে নিহত চার হেফাজত কর্মী
গেল বছরের ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরের প্রতিবাদে ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশী হামলার ঘটনায় হাটহাজারীতে বাদ জুমা বিক্ষোভ মিছিল বের করেন মুসল্লিরা। এক পর্যায়ে পুলিশের সাথে মুসল্লি ও হেফাজতে ইসলামের কমীঁদের সংঘর্ষ শুরু হয়। সেখানে পুলিশের গুলিতে মারা যান চার হেফাজত কর্মী। তারা হলেন-হাটহাজারী মাদরাসার শিক্ষার্থী কাজী মিরাজুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম, জামিল উদ্দিন ও মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন পুলিশসহ অনেকে আহত হন। এই ঘটনার প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ শুরু হলে পুলিশের গুলিতে বেশ কয়েকজন মারা যান। এরপর শুরু হয় হেফাজতের নেতাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতার অভিযান। ওই অভিযানে গ্রেফতার অনেকে এখনও কারাগারে।
বাঁশখালীতে নিহত ৭ শ্রমিক
ইফতার ও মাগরিবের নামাজের বিরতিসহ কয়েক দফা দাবিতে আন্দোলন করছিলেন দক্ষিণ চট্টগ্রামের বাঁশখালীর উপক‚লীয় গন্ডামারায় এস আলম গ্রুপের মালিকানাধীন কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের শ্রমিকেরা। ১৭ এপ্রিল বিক্ষোভ চলাকালে পুলিশ শ্রমিকদের উপর গুলি চালায়। তাতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ যায় পাঁচজন শ্রমিকের। তার হলেন- হাফেজ আহমদ রেজা খান (১৮), রনি হোসেন (২২), মোহাম্মদ শুভ (২৪), মোহাম্মদ রাহাত (২২) ও মোহাম্মদ রায়হান (১৮)। আহত ১৪ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখানে শিমুল আহমদসহ আরো দুই জনের মৃত্যু হয়। ২০১৬ সালের ৪ এপ্রিল গন্ডামারা ইউনিয়নের পশ্চিম বড়ঘোনা এলাকায় এই বিদ্যুৎকেন্দ্রের জমি অধিগ্রহণ নিয়ে স্থানীয়দের সাথে সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছিলেন।
চসিকে আ. লীগ ছাড়া কেউ নেই
গেল ২৭ জানুয়ারি অনুষ্টিত হয় বহুল আলোচিত চসিক নির্বাচন। মাঠের বিরোধী দল বিএনপি মেয়র, ৪১টি সাধারণ ওয়ার্ড এবং ১৪টি সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে প্রার্থী দেয়। তবে তাদের কোন প্রার্থীই বিজয়ী হতে পারেনি। মেয়রসহ সবকটি কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিজয়ী হন। কয়েকটি ওয়ার্ডে দলীয় প্রার্থীকে পরাজিত করে বিজয়ী হন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা। একটি ওয়ার্ডেও জয়ের মুখ দেখেননি অন্যদলের প্রার্থীরা। আগে সবকটি নির্বাচিত পরিষদে বিরোধী দলের অনেকে বিজয়ী হয়েছিলেন। এবারই তার ব্যতিক্রম ঘটলো। তবে বিএনপির অভিযোগ ভোটের নামে প্রহসনের মাধ্যমে বিএনপি প্রার্থীদের পরাজিত করা হয়েছে।
বাদি থেকে আসামি বাবুল
পাঁচ বছর আগে নগরীর জিইসি মোড়ের অদূরে প্রকাশ্যে খুন হন সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু। এই ঘটনায় নগরীর পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাত পরিচয়ের কয়েকজনকে আসামি করে একটি মামলা করা হয়, যার বাদী ছিলেন বাবুল আক্তার নিজেই। গত ১০ মে মামলার বাদি হিসেবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পিবিআই কার্যালয়ে ডেকে আনা হয় তাকে। পরে ১২ মে মিতুর বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন বাদি হয়ে পাঁচলাইশ থানায় বাবুল আক্তারসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। একই দিন বাবুল আক্তারের মামলায় চ‚ড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় পিবিআই। আর নতুন মামলায় বাবুল আক্তারকে গ্রেফতার করে পাঠানো হয় কারাগারে। এখনও কারাগারে আছেন তিনি।
অন্যের সাজা খাটেন মিনু
একটি হত্যা মামলায় কুলসুম আক্তার কুলসুমীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদন্ড দেন আদালত। তার বদলে আত্মমর্পণ করে সাজা খাটেন মিনু আক্তার। দুই বছর ৯ মাস ১০ দিন পর জানাজানি হলে বিষয়টি আদালতে গড়ায়। সর্বোচ্চ আদালতের সিদ্ধান্তে গত ১৬ জুন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বিনা অপরাধে সাজাভোগের পর মুক্তি পান মিনু আক্তার। গত ২৮ জুন সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার পর ‘অজ্ঞাত’ হিসেবে মিনুর লাশ দাফন করা হয়। এ ঘটনায় বায়েজিদ বোস্তামী থানায় ২৯ জুন একটি মামলা হয়। ট্রাকচাপায় মিনু আক্তারের মৃত্যুকে অস্বাভাবিক দাবি করেন তার আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ। এই ঘটনাও উচ্চ আদালত পর্যন্ত গড়ায়। তলব করা হয় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে। এরমধ্যে সাজাপ্রাপ্ত মূল আসামি কুলসুম আক্তার কুলসুমীকে গত ২৯ জুলাই নগরীর পতেঙ্গা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তখন জানা যায় সন্তানদের পড়ালেখার জন্য ৫০ হাজার টাকা দেয়ার আশ্বাস দিয়ে মিনুকে কারাগারে পাঠানো হয়। তবে সে টাকা আর পায়নি মিনুর পরিবার। এ অবস্থায় মিনু আক্তারের দুই শিশু সন্তান ইয়াসিন (১২) ও গোলাপের (৯) পড়ালেখা ও ভরনপোষণের দায়িত্ব নেয় ইস্পাত নির্মাণ শিল্পগ্রুপ কেএসআরএম।
সিআরবি সুরক্ষায় আন্দোলন
নগরীর প্রাণকেন্দ্রে পাহাড় প্রকৃতি ও শত বছরের প্রাচীন বৃক্ষরাজিতে ঘেরা সিআরবিতে বেসরকারি উদ্যোগে হাসপাতাল, মেডিক্যাল কলেজ ও নার্সিং ইনস্টিটিউটের নামে বাণিজ্যিক স্থাপনা তৈরী উদ্যোগের প্রতিবাদে গেল বছরের মাঝামাঝি সময়ে শুরু হয় ব্যতিক্রমী এক আন্দোলন। নাগরিক সমাজ, চট্টগ্রামের ব্যানারে সিআরবির প্রাণ-প্রকৃতি রক্ষার এই আন্দোলন প্রায় সব রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং নানা শ্রেণি পেশার মানুষের অংশগ্রহণে সর্বাত্মক সামাজিক আন্দোলনে রূপ নেয়। মাসের পর মাস সিআরবির সবুজ চত্বরে চলে প্রতিবাদী আন্দোলন কর্মসূচি। আন্দোলনের মুখে রেলমন্ত্রীসহ সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে হাসপাতাল প্রকল্প সিআরবি এলাকায় থেকে সরিয়ে নেওয়ার আশ্বাসও দেয়া হয়। নাগরিক সমাজের নেতারা বলছেন, সরকারের সুস্পষ্ট ঘোষণা না পাওয়া পর্যন্ত প্রতিবাদ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চট্টগ্রামে আলোচিত ছয় ঘটনা

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ