Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ভয়ঙ্কর বিপর্যয় সৃষ্টিকারী ইভেন্ট : রামাফোসা

দক্ষিণ আফ্রিকার পার্লামেন্টে অগ্নিসংযোগে সন্দেহভাজন গ্রেফতার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৬ এএম

দক্ষিণ আফ্রিকার পার্লামেন্টে অগ্নিসংযোগের অভিযোগে পুলিশ এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। রোববার খুব ভোরে কেপটাউনে অবস্থিত পার্লামেন্টে ভয়াবহ আগুন লাগে। আগুন আর ধোয়ার কু-ুলী পুরো কেপটাউনের আকাশকে গ্রাস করে। বহু দূর থেকে দেখা যায় আকাশে ধোয়ার কু-ুলী উঠে গেছে। এতে পার্লামেন্টের ছাদের একাংশ ধসে গেছে। দেয়ালে ভয়াবহ ফাটল দেখা দিয়েছে। ভয়াবহ এই অগ্নিকা-ের জন্য আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে অগ্নিসংযোগ, অনধিকার প্রবেশ এবং চুরির অভিযোগ আনা হয়েছে। তাকে মঙ্গলবার আদালতে তোলার কথা রয়েছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। রোববারের ওই আগুন নিভাতে যারপরনাই চেষ্টা করেন অগ্নিনির্বাপণকারীরা। প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা এই অগ্নিকা-কে ভয়ঙ্কর এবং বিপর্যয় সৃষ্টিকারী ইভেন্ট হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তবে পার্লামেন্টের কর্মকা- অব্যাহত রাখার প্রত্যয় ঘোষণা করেন তিনি। কর্মকর্তারা বলছেন, পার্লামেন্টের তৃতীয় তলায় অফিস থেকে প্রথম আগুনের সূত্রপাত। দ্রুতই তা পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ ন্যাশনাল এসেম্বলিতে ছড়িয়ে পড়ে। ছুটি থাকার কারণে পার্লামেন্টে বর্তমানে কোনো অধিবেশন বসছে না। এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। সন্দেহজনকভাবে আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে ন্যাশনাল কী পয়েন্টস অ্যাক্টের অধীনেও অভিযোগ আনা হতে পারে বলে জানিয়েছেন ব্রিগেডিয়ার নোমথানদাজো মবামবো। তবে বিস্তারিত আর কিছু জানানো হয়নি। ওদিকে রোববার রাতে দক্ষিণ আফ্রিকার পার্লামেন্ট থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে, আগুনে নিউ এসেম্বলি উইংয়ের উল্লেখযোগ্য ক্ষতি হয়েছে। এখানেই ন্যাশনাল এসেম্বলির চেম্বার এবং এমপিরা সেখানে বসেন। পার্লামেন্টের কাছেই সেইন্ট জর্জেস ক্যাথেড্রালে বর্ণবাদ বিরোধী নেতা আর্চবিশপ ডেসমন্ড টুটুর রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার একদিন পরেই এ ঘটনা ঘটেছে। উল্লেখ্য, কেপটাউনে পার্লামেন্ট ভবন তিনটি শাখায় বিভক্ত। এর মধ্যে আছে ১৮৮৪ সালে নির্মিত সবচেয়ে পুরনো শাখা। নতুন শাখাটি নির্মাণ করা হয়েছে ১৯২০এর দশকে এবং ন্যাশনাল এসেম্বলি নির্মাণ করা হয় ১৯৮০র দশকে। তবে সরকারের অবস্থান প্রিটোরিয়াতে। বিবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দক্ষিণ আফ্রিকা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ