Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

উত্তেজনার মধ্যেই পাকিস্তান-ভারত পাল্টাপাল্টি কূটনীতিক বহিষ্কার

ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য স্থগিত করার হুমকি দিয়েছে পাকিস্তানি ব্যবসায়ীরা

প্রকাশের সময় : ২৯ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ভারতে পাকিস্তান হাইকমিশনের একজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ তুলে দেশে ফিরে যেতে বলার পর এর পাল্টা ব্যবস্থা হিসাবে ভারতীয় একজন কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে পাকিস্তান। ইসলামাবাদের একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সুরজিৎ সিং নামের ওই কর্মকর্তা ভিয়েনা কনভেনশন ভঙ্গ করেছেন। এর আগে দিল্লির পুলিশ মেহমুদ আকতার নামের একজন পাকিস্তানি কূটনীতিককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। কূটনৈতিক দায়মুক্তি থাকায় তাকে ছেড়ে দিলেও দেশে ফিরে যাবার আদেশ দেয়া হয়।
ভারতের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে বলা হচ্ছে পাকিস্তান হাইকমিশনে নিযুক্ত ওই ব্যক্তিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। কিন্তু আইনগত ব্যবস্থা না নেয়ার কূটনৈতিক সুবিধা পাওয়ার কারণে পরে ওই কূটনীতিককে ছেড়ে দেয়া হয়। খবরে আরো বলা হচ্ছে ভারতের রাজস্থান প্রদেশ থেকে সন্দেহভাজন দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত স্পর্শকাতর তথ্য ওই কূটনীতিকের কাছে প্রেরু করছিল তারা। এর আগে গুপ্তচর হিসেবে কাজ করার অভিযোগে পাকিস্তান হাইকমিশনের এক কর্মকর্তাকে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ। হাইকমিশনের এ কর্মকর্তাকে বুধবার রাতে জিজ্ঞাবাদ করে দিল্লি পুলিশ। এরপর তাকে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয় বলে টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের এক খবরে বৃহস্পতিবার জানানো হয়েছে।
নয়াদিল্লিতে এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, পাকিস্তানের সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার সার্ভিস ইন্টেলিজেন্সের (আইএসআই) হয়ে গুপ্তচর বৃত্তির অভিযোগে দুই ভারতীয়কেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রায় দেড় বছর ধরে তারা নাকি গুপ্তচর বৃত্তি করে যাচ্ছিলো। কিন্তু গত ছয় মাস তাদের ওপর নজর রাখা হয়। শেষ পর্যন্ত তাদের আটক করা হয়েছে।
পাকিস্তান হাইকমিশনের কর্মকর্তা মেহমুদ আখতারকে আটক করার কিছু সময় পর ছেড়ে দেওয়া হয়। কারু কূটনৈতিক কর্মকর্তা হিসেবে দায়মুক্তি পান। উল্লেখ্য, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মীর ইস্যুতে দুই দেশের মধ্যে অব্যাহত উত্তেজনার মধ্যেই এই পাল্টাপাল্টি ব্যবস্থা নেয়ার ঘটনা ঘটলো।
অপর এক খবরে বলা হয়, দুই দেশের সম্পর্কের উন্নতি না হলে ভারতের সঙ্গে সব ধরনের বাণিজ্য স্থগিত করার হুমকি দিয়েছেন পাকিস্তানের ব্যবসায়ীরা। ফেডারেশন অব পাকিস্তান চেম্বারস অব কর্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফপিসিসিআই) জানিয়েছেন, বিদ্যমান অবস্থায় ভারতের সঙ্গে ব্যবসা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। ডন অনলাইনের এক খবরে গত বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে। এফপিসিসিআই-এর প্রেসিডেন্ট আবদুল রউফ আলম জানিয়েছেন, এই বৈরী পরিস্থিতিতে ভারতের সঙ্গে ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই পাকিস্তানের। পুরো পাকিস্তানের ব্যবসায়ী সম্প্রদায় ঐক্যবদ্ধভাবে সিদ্ধান্ত নিতে প্রস্তুত। শত্রুতাপূর্ণ পরিবেশে ব্যবসা-বাণিজ্য করার পক্ষে কেউ নয়। সার্ক চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির ভূমিকার সমালোচনা করেন রউফ আলম। বিকল্প সুযোগ সৃষ্টি করতে না পারলেও তারা ইসিও এবং ডি-৮ দেশগুলোর জন্য কাজ করে যাচ্ছে। চীন-পাকিস্তান ইকোনমিক করিডোর (সিপিইসি) নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেন এই পাকিস্তানি ব্যবসায়ী নেতা। সিপিইসি নিয়ে পাকিস্তানের ব্যবসায়ীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। উল্লেখ্য, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে উত্তেজনা চলছে। দুই দেশের মধ্যে বড় বড় রক্ষক্ষয়ী হামলা-হাঙ্গামার জন্য পরস্পরকে দায়ী করছে তারা। সীমান্তে হত্যা, অভ্যন্তরে হামলা নিয়ে কূটনৈতিক টানাপোড়েনে আছে দুই দেশ। এ অবস্থায় ভারত-পাকিস্তানের বাণিজ্যিক সম্পর্ক নিয়ে উদ্বেগ মারাত্মক রূপ নিচ্ছে। ডন, বিবিসি, টাইমস অব ইন্ডিয়া।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ