Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

পাকিস্তানের বর্ষসেরা রিজওয়ান

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

স্বপ্নের মতো কেটেছে মোহাম্মদ রিজওয়ানের ২০২১ সাল। বছর জুড়ে ব্যাট হাতে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য এবার পেলেন তার স্বীকৃতি। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) বর্ষসেরা ক্রিকেটার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন এই কিপার-ব্যাটসম্যান। হাসান আলি, বাবর আজম ও শাহিন শাহ আফ্রিদিদের পেছনে ফেলে পুরস্কারটি নিজের করে নেন তিনি। গত বছরের পারফরম্যান্সের ওপর ভিত্তি করে গতকাল দেয়া ঘোষণায় বর্ষসরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটারও নির্বাচিত হয়েছেন ২৯ বছর বয়সী রিজওয়ান। তবে একেবারে খালি হাতে ফিরতে হয়নি বাকিদেরও। হাসান বছর সেরা টেস্ট ক্রিকেটার ও বাবর বছর সেরা ওয়ানডে ক্রিকেটারের সম্মাননা পেয়েছেন। আর নারীদের বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন নিদা দার। ২০২১ সালে সাদা বলের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৪৫৮ রান করেছেন ও ১১ উইকেট নিয়েছেন তিনি।
গত ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ক্যারিয়ারের একমাত্র টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরি করে বছর শুরু হয় তার। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। গত বছর ৯ টেস্ট খেলে এক সেঞ্চুরি ও দুই ফিফটিতে ৪৫৫ রান করেন রিজওয়ান। ওয়ানডেতে এক ফিফটিতে করেন ১৩৪। ব্যাট হাতে রিজওয়ান সবচেয়ে উজ্জ্বল ছিলেন টি-টোয়েন্টিতে। একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এক পঞ্জিকাবর্ষে করেন এক হাজার রান (১৩২৬)। স্বীকৃত সব টি-টোয়েন্টি মিলিয়েও করেন রেকর্ড। এই সংস্করণে এক বছরে দুই হাজার রান করা একমাত্র ব্যাটসম্যানও তিনি। বছর শেষ করেন ২ হাজার ৩৬ রান করে। উইকেটের পেছনের দায়িত্বও তিনি পালন করেন দারুণ দক্ষতায়। তিন সংস্করণ মিলিয়ে ৫৪ ডিসমিসাল তার।
এদিকে, দুই বছর পর টেস্ট ক্রিকেটে ফিরে দুর্দান্ত ছিলেন হাসান। ৮ টেস্টে নেন ৪১ উইকেট, যেখানে পাঁচবার ইনিংসে ছিল ৫ উইকেট ও ম্যাচে একবার ১০ উইকেট। বর্ষসেরা টেস্ট ক্রিকেটারের পুরস্কার পেয়ে এই পেসার তুলে ধরেন তার অনুভূতি, ‘চোটের কারণে ২০২০ সালে খেলতে না পারার পর আমার জন্য গত বছর ছিল ফিরে আসার বছর। শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সফলভাবে ফিরে আসতে সক্ষমই হইনি, ২০২১ সালে দলের সামগ্রিক সাফল্যেও ভূমিকা রেখেছি।’
ওয়ানডেতে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স বাবরকে এনে দিয়েছে এই সংস্করণের বছর সেরার স্বীকৃতি। ২০২১ সালে ৬ ওয়ানডে খেলে ২ সেঞ্চুরি ও এক ফিফটিতে ৪০৫ রান করেন পাকিস্তান অধিনায়ক। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতকে হারানোর ম্যাচে ৩১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে আফ্রিদি নির্বাচিত হয়েছেন ‘ইম্প্যাক্টফুল পারফরমার অব দ্য ইয়ার।’
গত বছর ৪৫ উইকেট নিয়ে উদীয়মান ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, এর মধ্যে ১৫ উইকেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। কায়েদ-ই-আজম ট্রফিতে ৯৩৫ রান, পাকিস্তান কাপে ৪৮৭ রান ও ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপে ৪৪৭ রান করা সাহিবজাদা ফারহান জিতেছেন ‘ডমেস্টিক ক্রিকেটার অব দ্য ইয়ার’ এর পুরস্কার।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তানের বর্ষসেরা রিজওয়ান
আরও পড়ুন