Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

পেট্রাপোলে ইনটিগ্রেটেড চেকপোস্টের উদ্বোধন গতিশীল হবে ভারত-বাংলাদেশ বাণিজ্য

প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বেনাপোল অফিস : বাংলাদেশের সঙ্গে স্থলপথে বাণিজ্য আরো গতিশীল করতে দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোলের সাথে সরাসরি সংযুক্ত ভারতের পেট্রাপোল বন্দর এলাকায় ইনটিগ্রেটেড চেকপোস্টের (সুসংহত চেকপোস্ট) উদ্বোধন করা হযেছে। শুক্রবার দুপুরে ভারতের ল্যান্ডপোর্ট অথরিটির চেয়ারম্যান ওয়াইএস সেরওয়াত ও বাংলাদেশের স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান তপন কুমার চৌধুরী ফিতা কেটে এই চেকপোস্ট উদ্বোধন করেন।
কাস্টমস সূত্রে জানা গেছে, ৩০০ হেক্টর জমির ওপরে তৈরি ওই আধুনিক চেকপোস্ট এলাকাটির নিরাপত্তা ৩শ’ বিএসএফ সদস্যরা নিশ্চিত করছে।
এক হাজার ট্রাক একযোগে ধারণ করার ক্ষমতাসম্পন্ন ইন্টিগ্রেটেড এই চেকপোস্ট চালু হলে বাংলাদেশের সঙ্গে আমদানি-রফতানি বাণিজ্যে আরও গতিশীলতা আসবে। ট্রাক টার্মিনাল, এয়ারকন্ডিশন ওয়্যারহাউস, এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট জোনসহ আমদানি-রফতানি বাণিজ্য সহজ করার সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকছে ওই বন্দরে।
এটি আধুনিকায়নের ফলে বাংলাদেশ থেকে পণ্য রফতানি কয়েক গুণ বৃদ্ধি পাবে, তেমনি আমদানিও কয়েক গুণ বাড়বে বলে আশা করছেন বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা। এছাড়া পেট্রাপোল-বেনাপোল বন্দর দিয়ে ট্রানজিট সুবিধাও নেবে ভারত সরকার। দু’দেশের পণ্যবোঝাই ট্রাক আসা-যাওয়ার জন্য খুলে দেয়া হয় আনুষ্ঠানিকভাবে।
১৭২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই সুসংহত চেকপোস্ট এলাকায় গিয়ে দেখা যায় বন্দর ও কাস্টমসের মূল প্রশাসনিক ভবনসহ বিশ্রামাগার, চওড়া রাস্তা, আলো, আমদানি ও রফতানির ট্রাক রাখার গুদামঘর, পণ্য পরীক্ষার জন্য সিকিউরিটি চেকপোস্ট, পার্কিং ও কোয়ারেন্টাইন ভবন (পশুখাদ্য ও প্রাণিখাদ্যের গুণগত মান পরীক্ষাগার)।
উদ্বোধন শেষে দু’দেশের বন্দর, কাস্টমস, প্রশাসন, ব্যবসায়ীদের ও বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠনগুলোর এক যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয় সেদেশের বন্দর প্রশাসনিক ভবনে। বাংলাদেশের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার এএফএম আব্দুল্লাহ খান, অতিরিক্ত কমিশনার ফিরোজ উদ্দিন, ডেপুটি কমিশনার মারুফুল ইসলাম, বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোশিয়েশনের সভাপতি মুফিজুর রহমান সজন, ভারত-বাংলাদেশ চেম্বারের বন্দর সাবকমিটির চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান, আমদানি-রফতানিকারক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহসিন মিলন, বন্দরের মেম্বার (প্রকল্প) অহিদুল হক মোল্লাহ এবং ভারতের পক্ষে ভারতীয় কলকাতা কাস্টমস কমিশনার ড. শেরন, ডেপুটি কমিশনার অনিল দাশ, বারাসাতের ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট শুক্লা ও ল্যান্ড পোর্ট অথরিটির মেম্বার ইউকে শরমা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন