Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

মারা গেছেন বিএনপি নেতা হারিছ চৌধুরী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:৩১ পিএম | আপডেট : ১২:৪০ পিএম, ১২ জানুয়ারি, ২০২২

লন্ডনের এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন বিএনপি নেতা আবুল হারিছ চৌধুরী। মঙ্গলবার হারিছ চৌধুরীর চাচাতো ভাই সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি আশিক চৌধুরী নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ মৃত্যুর খবর জানান।

জানা গেছে, তিনি গত বছরের সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে মারা যান, অর্থাৎ প্রায় সাড়ে তিন মাস আগে। তিনি করোনাভাইরাস পজিটিভ ছিলেন বলেও জানা গেছে।
ফেসবুক পোস্টে নিজের ছবির সাথে বড় ভাই হারিছ চৌধুরীর একটি ছবি যুক্ত করে ক্যাপশনে আশিক চৌধুরী লিখেছেন, ‘ভাই বড় ধন, রক্তের বাঁধন।’ এরপর ওই পোস্টের কমেন্ট বক্সে বিএনপি নেতাকর্মীরা শোক প্রকাশ করেন।

আশিক চৌধুরী আরো জানিয়েছেন, গত বছরের আগস্টের মাঝামাঝি লন্ডনে করোনায় আক্রান্ত হন হারিছ চৌধুরী। হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাসায় ফেরার কয়েক দিন পরই করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে তার। সাময়িকভাবে কিছুটা সুস্থ বোধ করলেও তার ফুসফুস মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফুসফুসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় তিনি আবারো গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরের মাসেই অর্থাৎ সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে যুক্তরাজ্যের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তিনি আগে থেকেই ব্লাড ক্যান্সার ও অন্যান্য জটিলতায় ভুগছিলেন। তিনি তার স্ত্রী ও ছেলে-মেয়ে নিয়ে যুক্তরাজ্যে থাকতেন। তার ছেলে জনি চৌধুরী পেট্রোলিয়াম ইঞ্জিনিয়ার। মেয়ে মুন্নু চৌধুরী ব্যারিস্টার।

আশিক চৌধুরী আরো জানান, লন্ডন থেকে হারিছ চৌধুরীর মেয়ে মন্নু চৌধুরী ফোনে মৃত্যুর খবর জানিয়েছিলেন। প্রায় সাড়ে তিন মাস আগে মারা গেলেও হারিছ চৌধুরীর পরিবার তার মৃত্যুর খবর গোপন রেখেছিল।

চারদলীয় জোট সরকারের আমলে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব ছিলেন হারিছ চৌধুরী। ওই সময়ের প্রভাবশালী এ নেতা বিএনপি ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পরই দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মৃত্যু


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ