Inqilab Logo

রোববার, ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

লাদাখ ইস্যুতে আবারও বিফল ভারত-চীন বৈঠক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:৫৯ পিএম

দীর্ঘ বিলম্বের পর বুধবার ফের একবার লাদাখ সীমান্তের বিবাদ মেটাতে আলোচনার টেবিলে বসেছিল ভারত ও চীন। তবে সেনা পর্যায়ের ১৪তম বৈঠকেও সীমান্ত বিবাদ নিয়ে কোনও সমাধান সূত্র মিলল না। তবে ইতিবাচক কোনও পদক্ষেপ করার বিষয়ে সম্মত হতে না পারলেও দুই দেশই একসঙ্গে এগিয়ে যাওয়ার কথা বলেছে।

লাদাখে চলমান অস্থির পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক করতে আগামী পর্যায়ের বৈঠক দ্রুতই হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। ভারতীয় সেনা চেয়েছিল যাতে চীন গোগরা-হট স্প্রিং এলাকা থেকে সেনা প্রত্যাহার করে। তবে ভারতের তরফে পিএলএ-কে এই বিষয়ে রাজি করানো সম্ভব হয়নি। তাছাড়া দৌলত বেগ ওল্ডি সেক্টরে দেপসাং বালজ, ডেমচক সেক্টরে চার্ডিং নুল্লাহ জাংশনেও চীনকে সেনা প্রত্যাহার করানোর বিষয়ে রাজি করাতে পারেনি ভারতীয় সেনা। এই পরিস্থিতিতে সীমান্তে পূর্বতন অবস্থানেই দাঁড়িয়ে থাকবে দুই দেশের সেনা।

কূটনৈতিক ভাষায় বলতে গেলে এই বৈঠকের আলোচনা গঠনমূলক হলেও কোনও ইতিবাচক ফলাফল মেলেনি। তবে পারস্পরিক গ্রহণযোগ্য সমাধানে পৌঁছানোর জন্য কাজ চালিয়ে যাবে দুই পক্ষই। তবে প্রকৃত পক্ষে সীমান্তে ২০২০ সালের এপ্রিল মাসের স্থিতাবস্থা ফেরার কোনও ইঙ্গিত পিএলএ-র তরফে মেলেনি। এদিকে প্যাংগং সো-এর উপর চীনা সেনার ব্রিজ নির্মাণের বিষয়টিও বৈঠকে উত্থাপিত করেছিল ভারতীয় সেনা। তবে সেই বিষয়েও ভারত কোনও ইতিবাচক বার্তা শুনতে পায়নি চীনের থেকে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের মে মাসে বেইজিং ১৯৯৩ এবং ১৯৯৬ সালের শান্তি আলোচনায় গৃহীত প্রস্তাবগুলিতে ডাস্টবিনে ছুড়ে ফেলে ১৯৫৯ সালের এলএসি মানচিত্রকে গ্রহণ করে। এরপরই ফের নতুন করে সীমান্তে উত্তেজনা ও সংঘাতের আবহাওয়া সৃষ্টি হয়। এই পরিস্থিতিতে ২০২০ সালের মে মাস থেকে টানা ২০ মাস রণংদেহী মনোভাব নিয়ে একে অপরের দিকে চোখ রাঙাচ্ছে ভারত ও চীনা সেনা। সূত্র: হিন্দুস্থান টাইমস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ