Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ভাইরাল ভিডিওর পর মিশরে নারী অধিকার বিতর্ক

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ জানুয়ারি, ২০২২, ১১:৩৪ এএম

সহকর্মীদের সঙ্গে নেচেছিলেন৷ ভাইরাল হয় সেই ভিডিও৷ তারই খেসারত দিতে হলো আইয়া ইউসুফ নামে মিশরের বছর তিরিশের এক প্রাথমিক স্কুল শিক্ষিকাকে৷ তিন সন্তানের মা আইয়ার সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ করলেন তার স্বামী৷

শুধুমাত্র নাচের কারণে চাকরি থেকে বরখাস্ত পর্যন্ত করা হয়েছে তাকে৷ ঘটনার পর ফের প্রশ্নের মুখে নারীদের অধিকার৷ ভিডিওতে দেখা গিয়েছে হেডস্কার্ফ পরে রয়েছেন তিনি৷ পরনে লম্বা হাতা জামা এবং পায়জামা৷ নীল নদে একটি ক্রুজ পার্টিতে সহকর্মীদের সঙ্গে নাচ করতে দেখা গিয়েছিল তাকে৷

সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ কেউ বলেছেন, রক্ষণশীল পরিবারের কথা ভাবা উচিত ছিল আইয়ার৷ অনেকে প্রশংসাও করেছেন৷ সাম্প্রতিক সময়ে মিশরে একের পর এক ঘটনা সামনে এসেছে, যেখানে সোশ্যাল মিডিয়ায় নারীদের হেনস্থা করা হয়েছে৷

২০১৪ সালে প্রেসিডেন্ট আবদেল-ফাতা আল-সিসি মসনদে আসার পর এ জাতীয় ঘটনা বেড়েই চলেছে৷ একটি সাক্ষাত্কারে আইয়া জানিয়েছেন, স্বতস্ফূর্তভাবে নাচ করছিলেন তিনি ও তার সহকর্মীরা৷ আল-ওয়াতন সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে তিনি জানিয়েছেন, কে এমন ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় দিল তিনি জানেন না৷ বিনা অনুমতিতে এই ভিডিও পোস্ট কে বা কারা করেছেন জানলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবেন আইয়া৷

টুইটারের এক ব্যবহারকারী এই ভিডিও দেখে মন্তব্য করেন, একজন বিবাহিতার পক্ষে এভাবে নাচ করা ঠিক নয়! একজন লেখেন, লজ্জাজনক৷ এরপরই প্রশ্ন উঠছে, স্বাধীনভাবে একজন মানুষ হিসেবে কোনও মহিলা কি বাঁচতে পারেন না?

যদিও এই ঘটনা নিয়ে হইচই হওয়ার পর কাজে পুনর্বহাল করা হয়েছে আইয়াকে৷ মিশরের নারী আন্দোলন কর্মী নিহাদ আবু আল কাসমান কটাক্ষ করে বলেন, আদালতের কাছে নাচের নিয়ম সম্পর্কে জানতে চাওয়া হবে৷ তাহলে বাড়ির কোনও অনুষ্ঠানেও মহিলারা তা মেনে চলবেন৷

১৮ থেকে ৩৯ বছর বয়সি ৯০ ভাগ মিশরীয় মহিলা ২০১৯ সালে হেনস্থার মুখোমুখি হয়েছেন, এমনটাই জানাচ্ছে আরব ব্যারোমিটার রিসার্চ নেটওয়ার্ক৷ ২০২১ সালের জুলাই মাসে কায়রোর আদালতে ‘জনগণের মনপসন্দ নীতি ভঙ্গ করার অপরাধে’ ছয় থেকে ১০ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে দু'জন নারীর৷

গত কয়েক দশকে মিশরে একের পর এক নারী স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে৷ আরও বেশি রক্ষণশীল হয়ে উঠেছে মিশর৷ সূত্র: এএফপি।

 



 

Show all comments
  • Md Rabby ১৬ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:১৬ পিএম says : 0
    এটা ইসলামের বিরুদ্ধে আইন অমান্য করা
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Jakir Hossain ১৬ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:৫৮ পিএম says : 0
    শরীয়তের বিধান না মেনে কাজ করলে তার পরিণতি এমন হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মিশর

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ