Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আখের রসে সুস্বাদু গুড়

মো. সম্রাট হোসাইন, পঞ্চগড় থেকে | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৩ এএম

শীত মৌসুমে পঞ্চগড়ে আখের রস থেকে তৈরি হচ্ছে সুস্বাদু গুড়, যা স্থানীয় ভাষায় লালী নামে পরিচিত। সাথী ফসল হিসেবে অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি আবাদকৃত আখের রস থেকেই তৈরি হচ্ছে ঐতিহ্যবাহী এই লালী।
সরেজমিনে দেখা যায়, মাঠ থেকে আখ আনার পর সেগুলো ভাঙানো হয় পাওয়ার কেশার মেশিনে। মেশিনের এক পাশ থেকে বের হয় আখের রস আর অপর পাশ দিয়ে বের হয় উচ্ছিষ্ট। আখ থেকে বের হওয়া রস নিয়ে দিতে হয় চুলায় রাখা কড়াইয়ে। তারপর চুলার ওপর টগবগ করে ফুটছে আখের রস। পাশাপাশি রয়েছে কয়েকটি চুলা। রস লাল হয়ে এলে এক চুলা থেকে চলে যাচ্ছে আরেক চুলায়। এভাবেই তৈরি হচ্ছে আখের রস থেকে গুড়। এ চিত্র পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার মালিগাঁও ছিয়াশিপাড়ার এক কারখানার। প্রায় ২৫ বছর ধরে ওই কারাখানায় গুড় তৈরি করা হচ্ছে।
জানা যায়, চুলায় রস রেখে ৫-৬ ঘণ্টা জ্বালানোর পর পাওয়া যায় গুড়। প্রতি ১০ কেজি আখ থেকে ১ কেজি গুড় পাওয়া যায়। প্রতিদিন ৮০ থেকে ৯০ কেজি গুড় উৎপাদন হয়। বিভিন্ন স্থান থেকে পাইকাররা প্রতি কেজি গুড় ৮০ টাকা দরে কিনে নেয়, যা খুচরা টাকায় কেজিতে ১০০ টাকায় বিক্রি হয়।
কারখানার বেলাল হোসেন নামের এক শ্রমিক জানান, সাধারণত ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ কারখানায় গুড় তৈরি করা হয়। কারখানায় কর্মসংস্থান হয়েছে ছয়টি পরিবারের।
কারখানার প্রোপাইটর উসমান গনি জানান, এই কারখানার গুড় এলাকার লোকজন পিঠা-পায়েস, সেমাই-সুজিসহ মিষ্টি খাবার তৈরিতে ব্যবহার করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আখের রসে সুস্বাদু গুড়

১৭ জানুয়ারি, ২০২২
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ