Inqilab Logo

সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২১ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

কেন ব্রিটেনে আরো অভিবাসন প্রয়োজন?

দ্য ইকোনোমিস্ট | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

ব্রিটেনের জনসংখ্যার পরিসংখ্যান একটি কঠিন চিত্র তুলে ধরেছে। দেশটিতে সন্তান জন্মদানে সক্ষমতার হার, যা একজন মহিলার জীবদ্দশায় সন্তানের সংখ্যা হিসাবে ভাবা যেতে পারে, তা মাত্র ১.৬৫ শতাংশে এসে দাঁড়িয়েছে। ব্রিটেনে জনসংখ্যা বৃদ্ধির ক্রমবর্ধমান নিম্নগামিতা অত্যন্ত হতাশাজনক। দেশটির অফিস ফর ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিকস (ওএনএস)-এর গত ১২ জানুয়ারি প্রকাশিত তথ্য বলছে, গত দশক থেকে ২০২০ পর্যন্ত ব্রিটেনের জনসংখ্যা মাত্র ৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং ২০৩০ সাল নাগাদ তা মাত্র ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। এরমধ্যে, ৮৫ বছর বা তার বেশি বয়সী মানুষের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাবে। দেশটির পরিসংখ্যান বলছে যে, ২০৪৫ সালের মধ্যে তাদের সংখ্যা দাঁড়াবে ৩০ লাখেরও বেশি।

এছাড়া, ওএনএস বলছে যে, ২০২৫ সালে জন্মগ্রহণকারীদের প্রত্যাশিত আয়ু ২০১২ সালে জন্মগ্রহণকারীদের তুলনায় ২.১ বছর কম। ব্রিটেনে প্রতি ১ হাজার কর্মজীবীর মধ্যে পেনশনযোগ্যদের সংখ্যা ২০২০-এর মাঝামাঝি ২শ’ ৮০ থেকে ২০৪৫-এর মাঝামাঝি সময়ে ৩শ’ ৪১-এ উন্নীত হবে বলে অনুমান করা হয়েছে। তবে, অভিবাসন কয়েক দশক ধরে ব্রিটেনে জনসংখ্যা বৃদ্ধির একটি মূল উৎস ছিল। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংখ্যাবিদ রিধি কাশ্যপ বিশ্বাস করেন যে, এটি ভবিষ্যতে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। তিনি বলেন, ‘মৃত্যুর ভয়াবহ পরিস্থিতি এবং উর্বরতার সংশোধিত নিম্নগামী অনুমানের পরিপ্রেক্ষিতে, অভিবাসন আরো গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে।’ এর অর্র্থ হ’ল এই যে, অভিবাসনবিরোধী সরকার ভবিষ্যতে ব্রিটেনের জন্য সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ব্রিটেনের

২১ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ