Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

পরিবেশ অধিদপ্তরের বন্ধ করে দেয়া ইটখোলা চালাচ্ছেন মেহেদিগঞ্জের উপজেলা চেয়ারম্যান

ক্ষমতার দাপট

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০২২, ১:১০ পিএম

পরিবেশ অধিদপ্তরের উচ্ছেদকৃত ইটভাটা বন্ধের নির্দেশকে অমান্য করে অবৈধভাবে ইটখোলা চালাচ্ছেন বরিশালের মেহেদিগঞ্জ উপজেলা চ্যোরম্যান। এর আগে অনুমোদনহীন ও ড্রাম চিমনি ব্যবহার করে কাঠ পোড়ানোর অভিযোগে পরিবেশ অধিদপ্তর ঐ ইট খোলাটি বন্ধ করে দেয়। বন্ধ করে দেয়া ইটভাটাটির মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা চ্যোরম্যান এ কে এম মাহফুজুল আলম লিটন-এর। এলাকার সাধারন মানুষের জমি দখল করে অবৈধ ভাবে গত দুই বছর যাবৎ ইটখোলাটি চালারনো অভিযোগ রয়েছে। ভুক্ত ভোগী মানুষ এর প্রতিবাদ করলে নির্যাতনের শিকার হয় লিটন বাহিনীর হাতে। এদিকে পরিবেশ অধিদপ্তর জানায় বন্ধকরে দেয়া ইটভাটা পূনরায় চালু করলে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
গত ১৫ জানুয়ারি বরিশাল পরিবেশ অধিদপ্তর মেহেদিগঞ্জ উপজেলার কাজিরহাট থানার পশ্চিম মঙ্গা গ্রামে অভিযান চালিয়ে ‘আলম ব্রিকস’ সহ বেশ কয়েকটি অবৈধ ইটখোলা বন্ধ করার নির্দেশ দেয়। কিন্তু সরকারী নির্দেশনা উপেক্ষা করে পরদিনই পুনরায় ড্রাম চিমনি স্থাপন করে বেআইনী ইটখোলাটি চাøু করা হয়েছে।
ওই এলাকার ফারুক হোসেন ভূলু হাওলাদার ও হানিফ হাওলাদার সাংবাদিকদের জানান, ‘আমাদের জমি সহ এলাকার অনেকের জমি দখল করে এ কে এম মাহফুজুল আলম লিটন গত দুই বছর আগে আলম ব্রিকস নামে একটি ইট ভাটা তৈরি করেন। আমরা একাধিকবার বাধা দিয়েছি। কিন্তু তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে আমাদের উপরে হামলা চালায়। যার কারনে এখন এলাকাবাসী প্রতিবাদ করতেও ভয় পায়। এ ব্যাপারে কাজিরহাট থানায় একটি মামলা করলেও লিটন ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতা হওয়ায় পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি’ বলে অভিযোগ করেন ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকরা।
এ ব্যাপারে বরিশাল পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আবদুল হালিম সাংবাদিকদের জানান, ‘আমরা মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার কাজিরহাট এলাকার আলম ব্রিকস সহ বেশ কয়েকটি ইটভাটায় ১৫ জানুয়ারী শনিবার অনুমোদনহীন হওয়ায় ভেঙ্গে দেই ও জরিমানা করে ভাটার কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছি। তার পরেও যদি কেউ চালু করে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে সরকারী কাজে বাধা দেয়ার কোন অধিকার কারো নেই’ বলেও জানান তিনি।
এবিষেয়ে মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও সদ্য বহিস্কৃত আওয়ামী লীগ নেতা এ কে এম মাহফুজুল আলম লিটনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, ‘ড্রাম চিমনি ব্যবহার করায় শুধু জরিমানা করেছে। বন্ধ করার কোন নির্দেশনা নেই’।
অপরদিকে মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নুরুন্নবী জানান, ‘বিষয়টি আমরা অবগত। তবে বন্ধ করে দেয়া অবৈধ ও কাঠ পোড়ানো ড্রাম চিমনি ব্যবহার করা ইটভাটা গুলো চালু করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে’ বলেও জানান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ