Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

চাঁদপুরে যাত্রীবাহী লঞ্চে যুবতীকে ধর্ষণের চেষ্টা

প্রকাশের সময় : ১৯ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

চাঁদপুর জেলা সংবাদদাতা : চাঁদপুর মেঘনা নদীতে এক যুবতীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে ৪ যুবককে দুই রাউন্ড গুলি ও একটি বিদেশি পিস্তলসহ আটক করেছে নৌ-পুলিশ। সোমবার গভীর রাতে এমভি পারাবাত-১৪ নামে যাত্রীবাহী একটি লঞ্চের কেবিনে এ ঘটনা ঘটে। আটককৃতরা হলেন, সুজন প্রকাশ রাব্বি (২৬), রজ্জব আলী (১৯), ইমরান (২৩) ও সাব্বির (১৯)। তারা সবাই রাজধানীর জুরাইন এলাকার বাসিন্দা।
চাঁদপুর নৌ-পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নুরুজ্জামান জানান, সোহেল নামের এক যুবক রোববার রাতে তার ‘প্রেমিকাকে’ নিয়ে ওই লঞ্চে করে ঢাকা থেকে মাদারীপুর যাচ্ছিল। পথিমধ্যে রাত আনুমানিক ১১টার দিকে ৪ যুবক এসে সোহেল ও তার প্রেমিকাকে মারধর করে টাকা-পয়সা ও মোবাইল ফোন লুটে নেয়। এরপর তারা সোহেলকে কেবিন থেকে বের করে দিয়ে তার প্রেমিকাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় সোহেলের চিৎকারে লঞ্চ কর্মচারী ও যাত্রীরা ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করে ৪ যুবককে কেবিনে আটকে রাখে।
পরে রাত সাড়ে ১২টায় লঞ্চটি চাঁদপুর নৌ-টার্মিনালে পৌঁছলে আটক ওই ৪ যুবককে নৌ পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। এ সময় নৌ-পুলিশ আটক যুবকদের কেবিন তল্লাশী করে বিদেশী একটি রিভলবার, দু’রাউন্ড গুলি ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার করে। পরে তাদের চাঁদপুর সদর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়।
এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুনুর রশিদ জানান, সোহেলের চিৎকারে লঞ্চ কর্মচারী ও যাত্রীরা ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করে ৪ যুবককে আটকে রাখে। নৌ-পুলিশ আমাদের খবর দিলে আমরা তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসি। পরে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে সোপর্দ করা হবে।
এব্যাপারে নৌ-পুলিশের এসআই মোশারফ হোসেন বাদী হয়ে আটককৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে একটি মামলা ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ভিকটিম বাদী হয়ে আরেকটি মামলা দায়ের করেন।
এদিকে প্রেমিক সোহেল পুলিশকে জানান, তারা দু’জনই কেরানীগঞ্জের একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন। তারা তাদের গ্রামের বাড়ি মাদারীপুর যাচ্ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন