Inqilab Logo

সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

দুই বাসের রেষারেষিতে ঝরলো শিশুর প্রাণ!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০২২, ৮:৫২ পিএম | আপডেট : ৯:১৯ পিএম, ২০ জানুয়ারি, ২০২২

আজমেরী গ্লোরী পরিবহনের দুই বাসের রেষারেষিতে চাপা পড়ে রাজধানীর মগবাজারে রাকিব (১২) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটে।এটি কি নিছক দুর্ঘটনা, নাকি ট্রাফিক আইন না মানার কারণে হয়েছে এবং এতে মানবাধিকার কতখানি লঙ্ঘিত হয়েছে, সে সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ মতামত নিয়ে ইনকিলাব পাঠকদের জন্য প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন মোহাম্মদ আবদুল অদুদ।

জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক নজরুল ইসলাম তামিজী এই প্রতিবেদককে বলেন, ট্রাফিক সিস্টেম না জানা এবং মানার কারণে এমনটি ঘটেছে।তিনি বলেন, আমাদের নিরাপদ সড়কের জন্য যোগ্য ও নিরাপদ চালক দরকার। গাড়ির ফিটনেস দরকার।যারা ট্রাফিক সিস্টেম বাস্তবায়ন করবেন, তাদের পেশাগত দক্ষতা দরকার।তিনি এব্যাপারে বিআরটিএ এবং যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আরও বলেন, এঘটনায় মানবাধিকার ভুলুন্ঠিত হয়েছে।তিনি প্রশ্ন রাখেন, দায়ী পক্ষ কি পারবেন রাকিবকে তার বাবা মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিতে?

রাকিবকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা মুদি দোকানদার হারুন বলেন, সে রাস্তায় মাস্ক বিক্রি করতো। আজমেরী পরিবহনের দুটি বাসের মধ্যে রেষারেষির এক পর্য়ায়ে চাপা পড়ে সে। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রমনা থানার পরিদর্শক (অপারেশন) ফজলুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, আজমেরী গ্লোরী পরিবহনের দুই বাসের মধ্যে চাপা পড়ে একটি শিশু নিহত হয়েছে। চালক পালিয়ে গেলেও বাস দুটি জব্দ করা হয়েছে।ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া বলেন, মগবাজার থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় একটি শিশুকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসা হয়ে। হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।লাশ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সম্পর্কে রমনা থানাকে অবগত করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ