Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

অভিবাসন ঠেকাতে ইংলিশ চ্যানেলে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০২২, ৯:১৫ পিএম

ইংলিশ চ্যানেল দিয়ে আশ্রয়প্রার্থীদের আগমন ঠেকাতে সেনা মোতায়েনের নীতি গ্রহণ করেছে ব্রিটিশ সরকার। পার্লামেন্টে এমন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তবে সরকারে ভিতরে ও বাইরে এ নিয়ে সমালোচনা চলছে।

ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দিয়ে অভিবাসীদের ফ্রান্স থেকে যুক্তরাজ্য যাওয়া থামছে না কোনোভাবেই। ২০২১ সালে ২৮ হাজারের বেশি অভিবাসী সমুদ্র পেরিয়ে দেশটিতে পৌঁছেছেন। ঝুঁকিপূর্ণ এই প্রবণতা অব্যাহত আছে ২০২২ সালেও। এমন অবস্থায় ব্রিটিশ সরকার ঘোষণা দিয়েছে, পরিস্থিতি সামলাতে এবার তারা ইংলিশ চ্যানেলে সেনা নিয়োগ করবে।

গত ১৭ জানুয়ারি পার্লামেন্টে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেলের জমা দেয়া নতুন নীতিতে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্যাটেল জানিয়েছেন, ‘অবৈধ অভিবাসনের বিরুদ্ধে আমাদের চ্যানেল রক্ষার অভিযানে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসেবে যুক্ত করা হয়েছে।’ তবে এই পদক্ষেপকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন না অনেক বিশ্লেষক ও রাজনীতিবিদরা।

উল্লেখ্য, সেনা মোতায়েন করতে ২০২০ সাল থেকেই চেষ্টা করছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল। পার্লামেন্টে জমা দেয়া প্রতিবেদনে তিনি বলেছেন, ‘কোনো বিভাগ এককভাবে চ্যানেল পাড়ি দেয়ার মতো জটিল ইস্যুটি সামলাতে পারবে না। এমন অবস্থায় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে যুক্ত করাই সঠিক সিদ্ধান্ত। বলতে গেলে সম্মিলিতভাবে সীমান্ত রক্ষা করতে সরকারের গোটা ব্যবস্থাকেই আমরা এখানে যুক্ত করছি।’

পার্লামেন্টে এই নিয়ে বিতর্কে রক্ষণশীল দলের ফিলিপ ডেভিস বলেছেন বিপজ্জনক পারাপার ঠেকানোর ‘সহজ উপায় হলো নৌকাগুলোকে ফ্রান্সের জলসীমায় ফেরত পাঠানো।’ তার মতে এর মাধ্যমে ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম ‘অভিবাসীদের কাছে নিস্ফল প্রমাণে’ খুব বেশিদিন সময় লাগবে না।

এদিকে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কর্মকর্তারা তাদের প্রতিনিধিত্ব করা ট্রেড ইউনিয়নগুলোর মাধ্যমে জানিয়েছেন তারা অভিবাসীদের বহনকারী নৌকা ফেরত পাঠাবেন না। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ও বলেছে তারা সম্ভাব্য পুশব্যাক কার্যক্রমের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত হবে না বরং সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে সহায়তা দিবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অভিবাসন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ