Inqilab Logo

শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

অধরা শিরোপার খোঁজে মুশফিক

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০২ এএম

বেশ কিছু আক্রান্তেরর খবর দিয়েই আজ থেকে শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মাঠে গড়াচ্ছে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচাইতে জনপ্রিয় আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)। আসরের বাকি দুটি ভেন্যু চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম ও সিলেটের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম। হোম অব ক্রিকেটে উদ্বোধনী দিনের প্রথম ম্যাচেই দুপুর দেড়টায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের মুখোমুখি হবে ফরচুন বরিশাল। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকার প্রতিপক্ষ খুলনা টাইগার্স।
বিশ্বব্যপী হুহু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। ওমিক্রনসহ বেশ কিছু নতুন ধরণ চোখ রাঙাচ্ছে বাংলাদেশেও। গতকাল সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সোয়া ৪১ হাজার নমুনা পরীক্ষা করে ১০ হাজার ৮৮৮ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে। তবে সবচাইতে ভয়াবহ খবর হচ্ছে, নতুন রোগী পাওয়া গেছে দেশের ৬৪ জেলাতেই! তার কিছুটা আঁচ লেগেছে ক্রিকেটেও। যার কারণে অনেকটা আলো হারাচ্ছে এবারের বিপিএল। পাওয়া যায়নি ভালো ব্রডকাস্টার, প্রযুক্তির সহায়তা, বিশ্বখ্যাত ধারাভাষ্যকার থেকে শুরু করে আন্তর্জাতিক মানের আম্পায়ারও। তারপরও সব কাটিয়ে ঠিক সময়ে মাঠে গড়াচ্ছে অষ্টম আসর, এটিই সান্ত¦না। তবে একটি জায়গায় অস্বস্তি আছেই। চার-ছক্কার মন ভোলানো ক্রিকেট বিনোদনের প্রধান উপাদান দর্শকই ছাকছে না গ্যালারি মাতাতে! করোনার প্রকোপ খানিকটা কমে যাওয়ায় পাকিস্তান সিরিজে আসন সংখ্যার অর্ধেক দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেয় বিসিবি। ওই সিরিজটি বেশ সফলতার সঙ্গে শেষ করে বিসিবি। পরে বিপিএলের মাঠে দর্শক বাড়ানোর ভাবনা থাকলেও এখন পিছু হটতে হয়েছে।
তবে ঠিকই মাঠের লড়াইয়ে উত্তাপ ছড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিলেন ক্রিকেটাররা। গতকাল মিরপুরে হয়ে গেল ছয় দলের অধিনায়ককে নিয়ে ট্রফির ফটোসেশন। পরে এই ট্রফি জেতার মনোভাব জানালেন বরিশালের সাকিব আল হাসান, ঢাকার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, খুলনার মুশফিকুর রহিম, সিলেটের মোসাদ্দেক হোসেন ও চট্টগ্রামের মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে সবচাইতে দামি কথাটি বোধহয় বললেন বিপিল ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক মুশফিক। তারকা সমৃদ্ধ দল ঢাকার মুখোমুখি হবার আগে খুলনা অধিনায়ক দেখালেন বৃহৎ ছবিটিই। অভিজ্ঞ এই ব্যাটারের মতে বিশ্বব্যাপী বিপিএলের একটা সুনাম আছে, এই টুর্নামেন্টর শিরোপা জিততেই মাঠে নামবে তার দল, ‘টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে খেলা সত্যিই অনেক চ্যালেঞ্জিং। আর বিপিএল টি-টোয়েন্টিতে আমাদের সবচেয়ে বড় লিগ। বিশ্বব্যাপী বিপিএলের একটা সুনাম আছে। এখানে কোয়ালিটি ক্রিকেট হয়, মানসম্পন্ন বিদেশি ক্রিকেটারও আছে। অবশ্যই একটা চ্যালেঞ্জ তো থাকেই। যেকোনো দলই চ্যাম্পিয়ন হতে চায়। আমরাই চাই ইনশাআল্লাহ্। শুরুটা খুব গুরুত্বপূর্ণ, কাল (আজ) শুরু হচ্ছে। শীর্ষ দুইয়ে থেকে যেন লিগ পর্ব শেষ করতে পারি সেই চেষ্টা করব। আশা করি একটা শিরোপা যেন জিততে পারি, আর সেটা যেন এ বছরই হয়।’
বিপিএলে এর আগে ৭ আসর শেষ হলেও এখনো শিরোপার স্বাদ পাননি মুশফিক। এবার সেই আক্ষেপ ঘোচাতে চান তিনি, ‘এটা সবার জন্য বড় সুযোগ, বিশেষ করে স্থানীয়দের জন্য। সামনে বিশ্বকাপসহ অনেক খেলা আছে। কোভিড পরিস্থিতি আগের মত ভালো নেই। তারপরও যে খেলার সুযোগ পাচ্ছি, পরিবেশ পাচ্ছি এটা আমাদের জন্য অনেক বড় বিষয়। স্থানীয়দের জন্য অনেক বড় প্ল্যাটফর্ম। এখান থেকে অনেকেই ভালো পারিশ্রমিক পেয়ে থাকে।’ বিপিএলে ৮১ ইনিংস ব্যাট করে ২২৭৪ রান করেছেন মুশফিক। যা এ আসরে সর্বোচ্চ। শীর্ষস্থান ধরে রাখাও লক্ষ্য তার, ‘আলহামদুলিল্লাহ বিপিএলে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক আমি। আমার কাছে এটা অন্যরকম চ্যালেঞ্জ যেন ঐ জায়গাটা ধরে রাখতে পারি।’ তবে সব ছাপিয়ে এই কঠিন সময়ে বিপিএল চালিয়ে নেওয়ায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান পঞ্চপাণ্ডবের এই সদস্য, ‘বিসিবিকে ধন্যবাদ, অনেক প্রতিকূলতার মধ্যেও তারা চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আশা করছি আমার দল ও অন্যান্য ফ্র্যাঞ্চাইজি সবাই সহায়তা করবেন, যেন বিপিএল ভালোমত শেষ করতে পারি।’
এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খুব বেশি তারকা বিদেশি ক্রিকেটার নেই। যে কয়েকজন ক্রিকেটার এবার এসেছেন, তাদের মধ্যে বড় নাম ওয়েন্ট ইন্ডিজের অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল। একই সময় পাকিস্তান সুপার লিগ শুরু হলেও বিপিএল খেলতে এসেছেন তিনি। মাঠ মাতাবেন মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকার হয়ে। মাঠে নামার আগে প্রতিপক্ষকে বার্তা দিয়ে রাখলেন ঢাকার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। জানালেন, রাসেল প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দিতে পারে, ‘রাসেল অনেক বড় প্লাসপয়েন্ট। প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দিতে পারে এরকম খেলোয়াড় আপনার দলে থাকলে তার ওপর ভরসা করতেই পারেন। আশা করি কাল গুড মুডে থাকবে।’ তবে শুধু রাসেলের দিকেই তাকিয়ে থাকছেন না মাহমুদউল্লাহ। অনুশীলনে বড় শটের অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি, ‘(অনুশীলনে মারমুখী) কমবেশি সবাই বল বাইরে পাঠিয়েছে (হাসি)। মুশফিক, সাকিব, তামিম সবাই পাঠিয়েছে। তবে হ্যাঁ, যেহেতু ৫-৬ এ ব্যাট করতে হয় অনেক সময় রেঞ্জ হিটিংয়ের প্রয়োজন হয়, ওটাই অনুশীলন করছি।’
তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ শাহজাদের নিয়ে ব্যাটিং ইউনিট বেশ শক্ত ঢাকার। রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, এবাদত হোসেন, ইসুরু উদানাদের নিয়ে পেস বোলিং আক্রান্তও বেশ শক্ত। সেখানে আরো বেশি স্বস্তি সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার উপস্থিতি। তবে চোটের কারণে প্রথম দুই ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ পাচ্ছেন না মাশরাফিকে, ‘মাশরাফি ভাই থাকলে দলের পেস বোলিং ডিপার্টমেন্ট আরও সমৃদ্ধ হয়ে যায়। কন্ডিশন বিবেচনায় উনার অভিজ্ঞতা অনেক কাজে আসে। প্রথম দুইটা ম্যাচে উনাকে সম্ভবত পাব না। তৃতীয় ম্যাচে তিনি থাকবেন ইনশাআল্লাহ্, আমি আশাবাদী।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অধরা শিরোপার খোঁজে মুশফিক

আরও পড়ুন