Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

টিকা সনদ নিতে হবে সরকারি-বেসরকারি চাকুরেদের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:২৮ পিএম

করোনার টিকা সনদ নিতে হবে সরকারি-বেসরকারি অফিস এবং শিল্প কারখানার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে দায়িত্ব বহন করতে বলেছে সরকার। করোনাভাইরাসের লাগাম টেনে ধরতে সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধের প্রজ্ঞাপনে এ কথা বলা হয়। শুক্রবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, সরকারি-বেসরকারি অফিস এবং শিল্প কারখানার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের টিকা সনদ গ্রহণ করতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে দায়িত্ব বহন করবেন।
এতে আরো বলা হয়, বাজার, শপিংমল, মসজিদ, বাসস্ট্যান্ড, লঞ্চঘাট, রেলস্টেশনসহ সবধরনের জনসমাবেশে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহারসহ যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ যে পাঁচটি জরুরি নির্দেশনা জারি করেছে সেগুলো হলো-
১. ২১ জানুয়ারি থেকে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সকল স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকবে।
২. বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নিজ নিজ ক্ষেত্রে অনুরূপ ব্যবস্থাগ্রহণ করবে।
৩. রাষ্ট্রীয়/সামাজিক/রাজনৈতিক/ধর্মীয় সমাবেশ/অনুষ্ঠানে ১০০ জনের বেশি সমাবেশ করা যাবে না। এসব ক্ষেত্রে যারা যোগ দেবেন তাদের অবশ্যই ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট/২৪ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর সার্টিফিকেট আনতে হবে।
৪. সরকারি-বেসরকারি অফিস, শিল্পকারখানায় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবশ্যই ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট গ্রহণ করতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে দায়িত্ব বহন করবে।
৫. বাজার, মসজিদ, বাসস্ট্যান্ড, লঞ্চঘাট, রেলস্টেশনসহ সবধরনের জনসমাবেশে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। প্রশাসন/আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিষয়টি মনিটর করবে।
বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে যে বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে তাতে একদিনে ৪ জনের মৃত্যুর কথা জানানো হয়েছে। নতুন করে ১০ হাজার ৮৮৮ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ার কথাও জানানো হয়। শনাক্তের হার ২৬ দশমিক ৩৭ শতাংশ। গত দুই সপ্তাহ যাবত এই হার বেশ দ্রুতগতিতে বাড়ছে।
ভাইরাসের বিস্তার ঠেকানোর জন্য সরকার ১১ দফা বিধিনিষেধও জারি করেছে, তবে সেটা খুব এখনও খুব ভালোভাবে কার্যকর হতে দেখা যাচ্ছে না।



 

Show all comments
  • Sha ২১ জানুয়ারি, ২০২২, ৫:২১ পিএম says : 0
    শয়তান, শয়তানের বাচ্চা, শয়তানের এজেন্ট, শয়তানের দালাল, শয়তানের গোলামরা সমস্ত ধরনের মিথ্যা ভন্ডামি প্রতারণা শোষণ জুলুম ক্ষতিকর বিষ এর উৎস। এদেরকে বিশ্বাস করা মানে জাহান্নামের আগুনে নিজেদেরকে নিক্ষিপ্ত করা। এরা কথিত মিথ্যা ভাইরাসের নাম দিয়ে কথিত মিথ্যা লকডাউন দিয়ে কথিত মিথ্যা ভাইরাসের বিষাক্ত ভ্যাকসিন এর মাধ্যমে প্রত্যেকটি দেশের শত শত হাজার হাজার লক্ষ কোটি মানুষদেরকে বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করছে যা ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব না। আল্লাহ যদি এদের ধ্বংস না করে এদের থেকে মুক্ত হবার আর কোন পথ নাই কারণ সাধারন জনগণ এদেরকে অন্ধভাবে বিশ্বাস করে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ