Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

ইউক্রেনে মস্কোপন্থী নেতা বসানোর ষড়যন্ত্র করছেন পুতিন: যুক্তরাজ্য

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ জানুয়ারি, ২০২২, ১০:৫৬ এএম

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেন সরকারের নেতৃত্ব দিতে মস্কোপন্থি কোনো নেতাকে বসানোর ফন্দি আঁটছেন বলে অভিযোগ করেছে যুক্তরাজ্য। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।
যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, ক্রেমলিনের প্রার্থী হিসেবে ইউক্রেনের সাবেক সংসদ সদস্য ইয়েভেন মুরায়েভ এগিয়ে রয়েছেন। আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে মস্কোপন্থি হিসেবে কোনো নেতার নাম উল্লেখ করা বেশ বিরল ঘটনা।
রাশিয়া এরই মধ্যে ইউক্রেনসংলগ্ন সীমান্তবর্তী এলাকায় এক লাখ সেনা মোতায়েন করে রেখেছে। তবে, কোনো ধরনের আগ্রাসনের পরিকল্পনার অভিযোগ অস্বীকার করছে রাশিয়া।
যুক্তরাজ্যের মন্ত্রিরা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, ইউক্রেনে আগ্রাসন বা হামলা চালানো হলে মারাত্মক পরিণতি ভুগতে হবে রুশ সরকারকে।
এক বিবৃতিতে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস বলেছেন, ‘আজ হাতে পাওয়া তথ্যে ইউক্রেনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের পরিকল্পনা জানা গেছে। এবং ক্রেমলিন বর্তমানে এমন চিন্তাভাবনাই করছে। রাশিয়াকে অবশ্যই উত্তেজনাকর পরিস্থিতি থামাতে হবে এবং আগ্রাসন ও ভুল তথ্যের প্রচারণা বন্ধ করে কূটনীতির পথ ধরতে হবে।’
ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যুক্তরাজ্য এবং আমাদের মিত্ররা বারবারই বলে আসছে—ইউক্রেনে রাশিয়া কোনো ধরনের সামরিক পদক্ষেপ নিলে, সেটি হবে বিরাট কৌশলগত ভুল এবং এটি ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।’
রাশিয়া এর আগেও ইউক্রেনের ভূমি দখল করেছে। ২০১৪ সালে রুশপন্থি প্রেসিডেন্ট ক্ষমতাচ্যুত হলে ক্রিমিয়ার দখল নিয়ে রাশিয়া ইউক্রেনের ভূমি দখলে নেয়।
পশ্চিমা ও ইউক্রেনের গোয়েন্দারা ধারণা করছেন, এ বছরের শুরুর দিকেই রাশিয়া আবারও ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসন চালাতে পারে।
অন্যদিকে, ব্রিটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে’ দাবি করে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক টুইটে বলেছে, উসকানিমূলক কর্মকাণ্ড বন্ধ করুন এবং আজেবাজে কথা ছড়ানো থেকে বিরত থাকুন।’ সূত্র : বিবিসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউক্রেন-রাশিয়া


আরও
আরও পড়ুন