Inqilab Logo

রোববার, ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

সাতক্ষীরায় প্রকৌশলীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

১৫ ভরি স্বর্ণালংকার, ৮০ হাজার টাকা লুট

সাতক্ষীরা থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ১:১৩ পিএম

সাতক্ষীরায় এক প্রকৌশলীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। এসময় ১০ থেকে ১২ জন অস্ত্রধারী ডাকাত বাড়ির গ্রীল ভেঙে সবাইকে জিম্মি করে ১৫ ভরি স্বর্ণালংকার, ৮০ হাজার টাকা, একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা লুট করে নিয়ে যায়। ডাকাতদের অস্ত্রের আঘাতে প্রকৌশলী আব্দুর রাশীদের মা রাহেলা বেগম (৮২) মারাত্মক জখম হয়েছেন।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) ভোর রাত ৪টার দিকে সদর উপজেলার লাবসা দরগাপাড়া এলাকার প্রকৌশলী কাজী আব্দুর রাশীদের বাড়িতে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

বাড়ির মালিক প্রকৌশলী কাজী আব্দুর রাশীদ জানান, রাত ৪টার দিকে ৬ থেকে ৭ জন ডাকাত জানালার গ্রীল ভেঙে ঘরের ভিতর প্রবেশ করে। প্রথমে তারা তার মা রাহেলা বেগমকে রাম-দা দিয়ে আঘাত করে। এতে তিনি মারাত্মক জখম হন। মার চিৎকার শুনে দ্বিতীয় তলা থেকে নেমে এসে তারা রক্তাক্ত অবস্থা ও সবার হাতে রাম দা দেখতে পান। এসময় ডাকাতরা একে একে বাড়ির সবাইকে বেঁধে ফেলে মোবাইলগুলো নিয়ে নেন এবং অস্ত্রের মুখে তাদেরকে জিম্মি করে আলমারীর চাবি নিয়ে নগদ টাকা ও সোনার গহনা লুট করেন।

তিনি বলেন, ডাকাতদের বয়স ২০ থেকে ২৫ বসরের মধ্যে হবে। মুখে কাপড় বাঁধা ছিল। তারা যাওয়ার সময় হুমকী দিয়ে বলে গেছে, কাউকে বললে পরবর্তীতে তাদের ছেলে মেয়েদের অপহরণ করা হবে।

প্রকৌশলী কাজী আব্দুর রাশীদের একমাত্র মেয়ে আমেরিকা প্রবাসী শাম্মা বিনতে রাশীদ (৩০) জানান, ২৫ দিন আগে তিনি আমেরিকা থেকে বাড়িতে ফিরেছেন। তার, তার মা ও চাচির গায়ে যত গহনা ছিলো সবই ডাকাতরা নিয়ে গেছে। এছাড়া আলমারীতে যেসব গহনা ও টাকা ছিলো তাও নিয়ে গেছে। সমস্ত বাড়ি তছনছ করেছে দুর্বৃত্তরা। ডাকাতরা সবাই যুবক। ঘরের ভিতর ৬-৭ জন প্রবেশ করে। ঘরের বাইরে ছিল আরও ৪-৫ জন।

প্রকৌশলী কাজী আব্দুর রাশীদের স্ত্রী শাকিলা হোসেন (৫২) জানান, বাড়িতে আমরা ৮জন ছিলাম। তারা সবার হাত বেঁধে ফেলে। রাম-দা, সাবলসহ দেশীয় অস্ত্র ছিলো তাদের হাতে। ডাকাতরা প্রায় ১৫ ভরি স্বর্ণাংকার, নগদ ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা, একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা লুট করে নিয়েগেছে। যাওয়ার সময় মোবাইলগুলো ঘরের ভিতর ফেলে রেখে গেছে তারা।

সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি গোলাম কবীর বলেন, বাড়ির মালিক প্রকৌশলী কাজী আব্দুর রাশীদ এ ব্যাপারে অভিযোগ দিয়েছেন। তিনিসহ পুলিশের ঊধ্বর্তন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, মনে হচ্ছে এটি একটি পরিকল্পিত ডাকাতির ঘটনা। পুলিশ ডাকাতির ঘটনায় জড়িতদের খোঁজে মাঠে নেমেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডাকাতি

১৫ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ