Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

পুলিশের কাজ পেশা নয় সেবা

পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে আইজিপি

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৬ এএম

পুলিশের কোনো পর্যায়ের কোনো সদস্য যদি অপকর্মে লিপ্ত হয়, তারা যদি বাহিনীর জন্য অসম্মান বয়ে আনে, শরীরের কোনো অংশে পচন ধরলে যেমন কেটে ফেলা হয়, একইভাবে তাদেরকে বাহিনী থেকে পরিত্যাগ করা হবে। যারা পুলিশে আসবে তাদের মনে রাখতে হবে এটা ‘পেশা’ নয় ‘সেবা’। আমরা পুলিশ বাহিনীর জন্য সৎ, দেশপ্রেমিক ও সাহসী লোক খুঁজছি। যাদের মধ্যে এই ৩টি গুণ ও সেবার মনোভাব থাকবে তারাই পুলিশে আসবে। সোমবার পুলিশ সপ্তাহ ২০২২ এর দ্বিতীয় দিনে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে আয়োজিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এ সব কথা বলেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ।
আইজিপি বলেন, ২০৪১ সালে আমরা ধনী রাষ্ট্র হওয়ার স্বপ্ন দেখছি। সেই রাষ্ট্রের জন্য পুলিশকেও প্রস্তুত হতে হবে। দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার অংশ হিসেবে আমরা ইতোমধ্যে স্ট্রেটেজিক প্ল্যান করছি। পুলিশের কোনো সদস্য অপকর্মে লিপ্ত হোক এটা আমরা চাই না। আমরা কোন অপকর্ম-অন্যায়ের মাধ্যমে সংবাদ হতে চাই না। আমাদের ভালো কাজের মাধ্যমে সংবাদের বিষয়বস্তু হতে হবে।
বর্তমানে বাংলাদেশ পুলিশে বেছে বেছে সেরাদের মধ্যে সেরা অফিসারদের নিয়োগ দেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, কনস্টেবল ও এসআই নিয়োগের নিয়ম প্রায় ৪০ বছর পর পরিবর্তন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে কনস্টেবল নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে। এসআই নিয়োগ চলছে। নিয়োগ পদ্ধতি অত্যাধুনিক করা হয়েছে। অত্যাধুনিক এই নিয়োগ পদ্ধতির মাধ্যমে আমরা জব মার্কেট থেকে সেরাদের মধ্যে সেরাদের নিয়োগ দিতে সক্ষম হবো।
তিনি আরো বলেন, ২০৪১ সালে যারা সমাজের ভূমিকা রাখবে সেই প্রজন্ম যেন মাদকে আসক্ত হয়ে না থাকে সে ব্যাপারে তরুণসমাজকে আরও সচেতন থাকতে হবে। আমরা সবাই মিলে এই কমিউনিটি মুভমেন্টের মাধ্যমে মাদককে দেশ থেকে বিতাড়িত করব। নতুন প্রজন্ম যেন মাদকের ফাঁদে না পড়ে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে বাংলাদেশ পুলিশ নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশ থেকে অবৈধ অস্ত্র নির্মূল করতে হবে। এই লক্ষ্যে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশে মাদক উৎপাদন না হলেও প্রতিনিয়ত দেশে মাদক ঢুকছে, যা বৈশ্বিক ষড়যন্ত্রের অংশ। মাদক ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতিতে কাজ করছে পুলিশ। জঙ্গিবাদ নিরসনে বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ একটি মডেলে পরিণত হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন আইজিপি।
অনুষ্ঠানে পুরস্কারপ্রাপ্তদের উদ্দেশ্য করে আইজিপি বলেন, এটা শুধু নামমাত্র উপহার নয়, এটা শোকেসে রেখে দেয়ার পুরস্কার নয়। এটা অহংকার করার মতো একটি বিষয়। শৃঙ্খলা, দক্ষতা ও উত্তম কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুরস্কার। এর আগে আইজিপি ২০২০ ও ২০২১ সালে বিভিন্ন অভিযানে মাদক, অবৈধ অস্ত্র মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও চোরাচালানের মাল উদ্ধারে শ্রেষ্ঠদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আইজিপি

৪ মার্চ, ২০২২
৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
২৫ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ