Inqilab Logo

শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

মেসির ফেরার ম্যাচে রামোসের ‘অভিষেক’

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

গিয়েছিলেন পরিবারের সঙ্গে বড়দিনের ছুটি কাটাতে। অনেকেই যায়। তবে এবার গিয়ে এমন হ্যাপা পোহাতে হবে, তা কি আগে থেকে একবারও ভেবেছিলেন লিওনেল মেসি! পরিবার নিয়ে দেশে বড়দিনের ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন পিএসজির ৩৪ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। কয়েকটা পার্টিতেও দেখা গেছে হাসিখুশি মেসি-আন্তোনেল্লা জুটিকে। করোনার সেটা সহ্য হবে কেন! ঠিকই আক্রমণ করে বসল ইতিহাসের অন্যতম সেরা এই ফুটবলারকে। যার জের ধরে ৩১ দিন মাঠের বাইরে থাকতে হলো তাঁকে। অবশেষে গতপরশু রাতে পিএসজির জার্সিতে আবার মাঠে ফিরেছেন মেসি। নিজেদের মাঠে রেঁসের বিপক্ষে লিগের ম্যাচটিতে মূল একাদশে না থাকলেও পরে বদলি হিসেবে খেলতে নেমেছিলেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। মেসির ফিরে আসার ম্যাচে পিএসজিও জিতেছে ৪-০ গোলে। ম্যাচটা স্মরণীয় থাকবে সার্জিও রামোসের জন্যও। এই ম্যাচেই যে নিজের পিএসজি ক্যারিয়ারের প্রথম গোল পেলেন স্প্যানিশ ডিফেন্ডার! রামোস ছাড়াও গোল পেয়েছেন দুই মিডফিল্ডার মার্কো ভেরাত্তি ও দানিলো পেরেইরা। বাকি গোলটা রেঁসের বেলজিয়ান ডিফেন্ডার উট ফায়েসের আত্মঘাতী। এই জয়ে ২২ ম্যাচে ৫৩ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে পিএসজি। ১১ পয়েন্ট পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নিস। একই রাতে আগের ম্যাচের তুলনায় মেসির পুরনো ক্লাব বার্সেলোনার পারফরম্যান্সে উন্নতির দেখা মিলল না একটুও। তবে শেষ দিকে গিয়ে মূল্যবান একটি গোল আদায় করে নিল তারা। আলাভেসকে হারিয়ে আবারও জয়ের পথে ফিরল জাভি হার্নান্দেসের দল। প্রতিপক্ষের মাঠে লা লিগায় বার্সেলোনার ঝাম ঝরানো জয়টি ১-০ ব্যবধানে। গোলটি করেন ফ্রেংকি ডি ইয়ং। তিন ম্যাচ পর যে জয়ের দেখা পেল কাতালান ক্লাবটি! তবে এতটা সৌভাগ্য বোধহয় ছিল না বার্সার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের। তিন দিন আগে ভিন্ন প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়ার পর খুব কষ্টে জিতেছিল স্প্যানিশ জায়ান্টরা। সেই একই দল এলচের বিপক্ষে এবার তারা প্রথমার্ধেই খেয়ে বসল গোল। দ্বিতীয়ার্ধে হজম করল আরেকটি। পরে ঘুরে দাঁড়িয়ে কোনোরকমে হার এড়াল কার্লো আনচেলত্তির দল। ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যু’য়ে লা লিগার ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়েছে। লুকাস বোয়ের গোলে এলচে এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন পেরে মিয়া। পরে লুকা মদ্রিচ ব্যবধান কমানোর পর এদের মিলিতাওয়ের গোলে সমতায় শেষ করে রিয়াল। ২২ ম্যাচে ১৫ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ৫০। ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে সেভিয়া। তিন নম্বরে রিয়াল বেতিসের পয়েন্ট ৪০। ২১ ম্যাচে ৯ জয় ও ৮ ড্রয়ে পাঁচ নম্বরে থাকা বার্সেলোনার পয়েন্ট ৩৫। সমান ম্যাচে ১ পয়েন্ট বেশি নিয়ে চতুর্থ স্থানে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। রাতে ঠিকই রোমাঞ্চের পসরা সাজিয়ে বসেছিল ইংল্যান্ড। প্রথমার্ধের বিবর্ণতা কাটিয়ে বিরতির পর উজ্জীবিত ফুটবল খেলল চেলসি। আট মিনিটে আদায় করে নিল দুই গোল। টটেনহ্যাম হটস্পারকে হারিয়ে জয়ে ফিরল টমাস টুখেলের দল। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচটি ২-০ গোলে জিতেছে চেলসি। দ্বিতীয়ার্ধে গোল দুটি করেন হাকিম জিয়াশ ও চিয়াগো সিলভা। চার ম্যাচ পর লিগে জয়ের স্বাদ পেল চেলসি। এছাড়া প্রথমার্ধে একচেটিয়া আধিপত্য করে দুই গোলে এগিয়ে যাওয়া লিভারপুল বিরতির পর কিছুটা খেই হারাল। সেই সুযোগে ব্যবধান কমাল ক্রিস্টাল প্যালেস, কিন্তু ফেভারিটদের আটকাতে পারল না তারা। লিগ টেবিলে ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে ব্যবধান কমাল ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। প্রতিপক্ষের মাঠে লিগের ম্যাচটি ৩-১ গোলে জিতেছে লিভারপুল। ভার্জিল ফন ডাইক ও অ্যালেক্স অক্সলেইড-চেম্বারলেইনের গোলে তারা এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান কমান ওদসোনে এদুয়া। শেষ দিকে সফরকারীদের তৃতীয় গোলটি করেন ফাবিনিয়ো। ২৪ ম্যাচে ১৩ জয় ও আট ড্রয়ে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে লিগে তৃতীয় স্থানে আছে চেলসি। ২২ ম্যাচে ৪৮ পয়েন্ট নিয়ে আছে দুই নম্বরে লিভারপুল। ২৩ ম্যাচে ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ম্যানচেস্টার সিটি। ২২ ম্যাচে ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে আছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তাদের চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড। বার্নলির বিপক্ষে রোববার গোলশূন্য ড্র করা আর্সেনাল ২১ ম্যাচে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে ছয়ে আছে। তাদের সমান পয়েন্ট নিয়ে সাতে টটেনহ্যাম, এক ম্যাচ কম খেলেছে তারা। এদিকে, পাওলো দিবালা, আলভারো মোরাতায় সাজানো জুভেন্টাসের আক্রমণভাগ জ্বলে উঠতে পারল না। চোট পেয়ে জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ মাঠ ছাড়ার পর রাফায়েল লেয়াও, অলিভিয়ে জিরুদও পারলেন না এসি মিলানকে গোল এনে দিতে। আক্রমণভাগের বিবর্ণতায় পয়েন্ট ভাগাভাগি করল দুই দল। সান সিরোয় সিরি ‘আ’র ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে। লিগে টানা ৯ ম্যাচ অপরাজিত থাকার তৃপ্তি সঙ্গী হলেও শিরোপা লড়াই থেকে আরও দূরে সরে গেল জুভেন্টাস। স্বস্তির ড্রয়ে মিলান শিরোপার দৌড়ে টিকে রইল ভালোভাবেই। এ নিয়ে মিলানের বিপক্ষে সিরি ‘আ’য় টানা তিন ম্যাচ জয়হীন থাকল তুরিনের বুড়িরা। ২৩ ম্যাচে ৪২ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে আছে মাসিমিলিয়ানো আল্লেগ্রির দল। ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে মিলান। ২২ ম্যাচে ৫৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ইন্টার মিলান। এছাড়া, হাথা বার্লিনের বিপক্ষে দুই অর্ধে দুটি করে গোলের দেখা পেল বায়ার্ন মিউনিখ। সহজ জয়ে বুন্দেসলিগার পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান সুসংহত করল ইউলিয়ান নাগেলসমানের দল। প্রতিপক্ষের মাঠে ৪-১ গোলে জয় পেয়েছে শিরোপাধারীরা। বায়ার্নের হয়ে গোল করেছেন কোরোঁতাঁ তোলিসো, টমাস মুলার, লেরয় সানে ও সের্গে জিনাব্রি। আসরে এখন পর্যন্ত ২০ ম্যাচে সর্বোচ্চ ২৩ গোল করা লেভান্দোভস্কি লিগে চার ম্যাচ জালের দেখা পেলেন না। গত আগস্টে আসরে প্রথম দেখায় দলটির বিপক্ষে ৫-০ গোলে জিতেছিল বায়ার্ন। বুন্দেসলিগায় কোচ হিসেবে হার্থার বিপক্ষে ১৩ ম্যাচে অপরাজিত রইলেন নাগেলসমান। ২০ ম্যাচে ১৬ জয় ও এক ড্রয়ে বায়ার্নের পয়েন্ট হলো ৪৯। সমান ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মেসির ফেরার ম্যাচে রামোসের ‘অভিষেক’
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ