Inqilab Logo

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সাংবাদিককে জনসমক্ষেই গালাগালি দিয়ে বিতর্কে মার্কিন প্রেসিডেন্ট!

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০২২, ১:৩৯ পিএম

মেজাজ হারালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এক সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে নিজের উপরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রীতিমতো কুরুচিকর গালাগাল দিতে দেখা গেল তাকে। যা নিয়ে প্রবল বিতর্ক ঘনিয়েছে।

ঠিক কী হয়েছিল? হোয়াইট হাউসের ইস্ট রুমে একটি বৈঠক চলছিল। সেখানে মুদ্রাস্ফীতিই ছিল আলোচ্য বিষয়। এই পরিস্থিতিতে ক্রেতাদের সাহায্যার্থে একটি আইন প্রণয়ন নিয়ে কথা চলছিল। সেই সময়ই ‘ফক্স নিউজে’র পিটার ডুকি নামের এক সাংবাদিক বাইডেনকে খোঁচা দিয়ে জানতে চেয়েছিলেন মুদ্রাস্ফীতির সঙ্গে কোনও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য আছে কিনা। তাতেই মেজাজ হারান বর্ষীয়ান বাইডেন। তিনি পালটা ব্যাঙ্গ করেন, “তার চেয়েও বড় অ্যাসেট- আরও বেশি মুদ্রাস্ফীতি।” এরপরই রীতিমতো ছাপার অযোগ্য ভাষায় গালাগালিও দেন তিনি।

তার ওই মন্তব্য ধরা পড়ে যায় মাইক্রোফোনে। ভিডিওতে স্পষ্ট দেখা গিয়েছে তাকে ওই কথা বলতে। এমন গালাগালির পরে ওই সাংবাদিক অবশ্য সরস টিপ্পনী কেটে বলেছেন, “এখনও পর্যন্ত তার কথার ‘ফ্যাক্ট চেক’ করেনি কেউ। বলেনি কথাটা সত্য নয়।” উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত হোয়াইট হাউসের তরফে এপ্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করেনি।

এদিকে গত সপ্তাহেও ওই সাংবাদিকের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়েছিল বাইডেনের। মার্কিন প্রেসিডেন্ট খোঁচা মেরে ডুকিকে বলেছিলেন, “আপনি সব সময়ই সুন্দরতম প্রশ্নগুলি করেন।” উত্তরে ডুকি জানান, তার কাছে এমন প্রশ্ন আরও রয়েছে। যা শুনে বাইডেনের জবাব, “আমি জানি আপনার কাছে আছে। তবে সেগুলি আমার কাছে অর্থহীনই।”

প্রসঙ্গত, আমেরিকায় মুদ্রাস্ফীতি খুব বড় সমস্যা হয়ে উঠেছে। প্রায় চার দশকের রেকর্ড ভেঙেছে তা। স্বাভাবিক ভাবেই সমস্যার মোকাবিলা করতে ব্যস্ত বাইডেন প্রশাসন। এর মধ্যেই সাংবাদিকের সঙ্গে তার তর্কাতর্কিতে বিতর্ক অন্যদিকে মোড় নিল। সূত্র: রয়টার্স।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ