Inqilab Logo

রোববার, ২২ মে ২০২২, ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

অনশন ভাঙ্গনে শাবির শিক্ষকদের ডাকে, জাফর ইকবালও ডাকলেন না সেই শিক্ষকদের

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৬ জানুয়ারি, ২০২২, ৫:৩৪ পিএম

টানা ৭ দিন অমরণ অনশন কর্মসূচি পালনের পর মুখে পানি দিয়ে ভেঙ্গেছে অনশন শাবি শিক্ষার্থীরা। ২৮ জন শিক্ষার্থী অনশন ভাঙেন অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের অনুরোধে। নিজ হাতে শিক্ষার্থীদের পানি পান করিয়ে অনশন ভাঙান তিনি। অথচ তাদের অনশন ভাঙ্গাতে কতই না চেষ্টা করেছেন বিভিন্ন পর্যায়ে। স্থানীয় আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতা সহ খোদ আন্দোলনকারীদের একাংশ ভাঙ্গাতে পারেনি তাদের অনশন। সেই চেষ্টায় শরীক হন শিক্ষামন্ত্রীও। কিন্তু বিফল। ব্যর্থ হন শাবির শিক্ষকরাও। সাফ জানিয়ে দেন দাবী আদায় না হলে অনশন ভাঙ্গবেন না। অবশেষ জাফল ইকবাল ম্যাজিকে অনশনের রণে ভঙ্গ করে জেদি শিক্ষার্থীরা। কিন্তু সচেতন মহলের প্রত্যাশা ছিল, জাফর ইকবাল অন্তত শাবির সেই শিক্ষকদের সাথে রাখবেন, যারা ইতিমধ্যে অনশন ভঙ্গের চেষ্টা করেছিলেন সন্তানতূল্য শিক্ষার্থীদের। শিক্ষকের মর্যাদা শিক্ষকই রাখবেন। কিন্ত তা হয়নি। বুধবার সকাল ১০টা ২০ মিনিটে জাফর ইকবাল ও তার স্ত্রী অধ্যাপক ড. ইয়াসমিন হক পানি পান করিয়ে শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙান। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষককে না ডাকায় তাদের মধ্যে বিরাজ করছে ক্ষোভ। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের এক শিক্ষার্থী জানান, অনশন ভাঙার সময় কোনো শিক্ষক বা শিক্ষক সমিতির কাউতে ডাকা হয়নি। এর আগে মঙ্গলবার রাতে সস্ত্রীক ঢাকা থেকে সিলেট আসেন জাফর ইকবাল। ভোরে গিয়ে উপস্থিত হন শিক্ষার্থীদের পাশে। শীতে জবুথবু শিক্ষার্থীরা তাকে পেয়ে হয়ে পড়েন আপ্লুত। এসময় কান্নায় ভেঙেন পড়েন তিনিও। দীর্ঘ দুই ঘণ্টা কথা বলেন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে। শেষে আন্দোলন অব্যাহত রাখার শর্তে অনশন থেকে সরে আসে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের দাবি আদায়ে শিক্ষার্থীরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ