Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ইউক্রেনে হামলা রাশিয়ার জন্য বোকামি হবে: এরদোগান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৫:৩৭ পিএম

রাশিয়ার জন্য ইউক্রেনে আক্রমণ করা বুদ্ধিমানের কাজ হবে না এবং সেক্ষেত্রে তুরস্ক ন্যাটো সদস্য হিসাবে যা প্রয়োজন তা করবে। বুধবার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেপ এরদোগান এই কথা বলেছেন।

স্থানীয় সম্প্রচার মাধ্যম এনটিভির সাথে দেয়া একটি সাক্ষাতকারে এরদোগান বলেছেন যে, তিনি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে কূটনীতি এবং শান্তির পথের জন্য উভয় পক্ষকে আমন্ত্রণ জানানোর প্রস্তাবের অধীনে তুরস্কে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। তিনি মস্কোর কাছ থেকে এর প্রতিক্রিয়া আশা করেন। এরদোগান আরও বলেছেন, এই সমস্যা সমাধানে ব্যাপক সংলাপের প্রয়োজন ছিল যা রাশিয়ার কিছু নিরাপত্তা উদ্বেগকে প্রশমন করে এবং এটি মস্কোকেও ব্যাখ্যা করে যে, তাদের কিছু দাবি যুক্তিসঙ্গত নয়।

‘আমি আশা করি রাশিয়া সশস্ত্র আক্রমণ করবে না বা ইউক্রেন দখল করবে না। এই ধরনের পদক্ষেপ রাশিয়া বা অঞ্চলের জন্য বুদ্ধিমানের কাজ হবে না,’ তিনি বলেন, ‘এখানে একটি সংলাপের প্রয়োজন যা রাশিয়ার কথা শুনবে এবং তাদের যুক্তিসঙ্গত নিরাপত্তা উদ্বেগ দূর করবে।’ কিয়েভ এবং মস্কো উভয়ের সাথেই আঙ্কারার সুসম্পর্ক রয়েছে। কিন্তু সিরিয়া ও লিবিয়াতে রাশিয়ার নীতির বিরোধিতা করে তুরস্ক। সেইসাথে ২০১৪ সালে ক্রিমিয়ান উপদ্বীপের অধিগ্রহণেরও বিরোধিতা করে তুরস্ক। রাশিয়ার সাথে প্রতিরক্ষা ও জ্বালানি বিষয়ে সহযোগিতা করার সময়, আঙ্কারা ইউক্রেনের কাছে অত্যাধুনিক ড্রোন বিক্রি করেছে, যা মস্কোকে ক্ষুব্ধ করে।

এরদোগান বলেন, ‘আমি আবারও বলছি যে আমরা যা কিছু প্রয়োজন তা করতে প্রস্তুত এবং আমি এই বার্তাগুলি প্রেসিডেন্ট পুতিন এবং প্রেসিডেন্ট (ভলোদিমির) জেলেনস্কির কাছে পৌঁছে দিয়েছি।’ তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি উভয় দেশই তুরস্কের আন্তরিকতা এবং ভালো উদ্দেশ্য সম্পর্কে সচেতন।’ তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘শক্তির ব্যবহার এড়িয়ে সঙ্কটের সমাধান করা উচিত। আমরা আশা করি এ বিষয়ে ন্যাটোর উদ্যোগ সফল হবে।’

নভেম্বরে তুরস্কই প্রথম দুই দেশের মধ্যে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেয়। গত সপ্তাহে কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে যে, রাশিয়া এবং ইউক্রেন উভয়ই সঙ্কট সমাধানে তুরস্কের ভূমিকা পালনের জন্য উন্মুক্ত। এরদোগান বলেছেন যে, তিনি সঙ্কট নিয়ে আলোচনা করতে ফেব্রুয়ারির শুরুতে ইউক্রেনে যাবেন এবং শীঘ্রই পুতিনের সাথে দেখা বা ফোন করবেন। সূত্র: রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ