Inqilab Logo

শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আত্মহত্যা নয়, খুলনায় স্বামীর হাতে খুন হন সোনিয়া

খুলনা ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৮:০৭ পিএম

খুলনার দিঘলিয়ায় দুই সন্তানের জননী সোনিয়া বেগম (২৬) কে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে তাঁর স্বামী মোঃ ইব্রাহীম (৩২)। ঘাতক ইব্রাহিম। আজ বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারী) বিকালে খুলনা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে দিয়েছে সে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইনেন্সপেক্টর (তদন্ত) দিঘলিয়া থানা রিপন কুমার সরকার।

তিনি জানান, ২৫ জানুয়ারী রাতে খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার দিঘলিয়া গ্রামের খান পাড়ায় সোনিয়া বেগম নামে এক গৃহবধুর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়। ঘটনার দিন রাত অনুমানিক দেড়টার দিকে থানায় খবর আসে সোনিয়া বেগম নামে এক এক গৃহবধু গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহ ঘরের মেঝেতে শুয়ে আছে দেখতে পাই। নিহতের গলায় গার্মেন্টস এর ফিতার ডাবল ভাঁজ ছিল।

তিনি আরও বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করি। সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করার সময় লাশের গলায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন দেখতে পাই। আত্মহত্যা কিনা সন্দেহ সৃষ্টি হয়। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে ঘটনাটি হত্যা না আত্মহত্যা। তবে নিহতের স্বামীর দাবি গার্মেন্টস এর ফিতা দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে তার স্ত্রীর আত্মহত্যা করেছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খুলনা ‘ক’ সার্কেল রাজু আহন্মেদ বুধবার(২৬ জানুয়ারি) সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ঘটনার পর থেকেই নিহতের স্বজনদের দাবী ছিল সোনিয়াকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের স্বামী ইব্রাহিম (৩২) কে ঘটনার পরদিন থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে তাঁর স্ত্রীকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার করার কথা স্বীকার করে। দিঘলিয়া থানা পুলিশ রাতেই তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করে। মামলা নং ১১। তাং ২৬/০১/২০২২। মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। আজ বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) গ্রেপ্তারকৃত ইব্রাহীমকে কোর্টে চালান দেওয়া হয়। পরে বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট এর আদালতে সে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে।

জানা যায়, প্রায় ৮ বছর পূর্বে একই উপজেলার পানিগাতী গ্রামের মোঃ সলেমান বিশ্বাস এর কন্যা সোনিয়া বেগম এর সংগে দিঘলিয়া গ্রামের খান পাড়ার ইসলাম খান এর ছেলের সংগে বিবাহ হয়। তাদের সংসারে ৭ বছরের ১টি ছেলে এবং ৩ বছরের ১টি কন্যা সন্তান রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ