Inqilab Logo

বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

৪০ হাজার টাকা আত্মসাতের মামলা শেষ হতে ৪০ বছর

মৃত্যুর পর হাইকোর্টে আপিল নিষ্পত্তি

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৩ এএম

৪০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছিলেন রাজশাহীর চারঘাটের ১ নং বাজুবাঘা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সোবহান। এটি ছিল হাট ইজারার টাকা। এ ঘটনায় ১৯৮২ সালের ৯ জুন তার বিরুদ্ধে মামলা করেছিল তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরো। নাম বদলে বর্তমানে এটি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। তদন্তের পর চার দশক ধরে মামলাটি পরিচালনা করছিলো দুর্নীতি বিরোধী এই রাষ্ট্রীয় সংস্থা। অবশেষে হাইকোর্টের নির্দেশে গতকাল বৃহস্পতিবার নিষ্পত্তি হয় মামলাটির। অবশ্য ততোদিনে মামলার আসামিও পাড়ি দিয়েছেন পরপারে।

বিচারপতি মো. আবু জাফার সিদ্দিকী এবং বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর হাইকোর্ট বেঞ্চে মামলাটির নিষ্পত্তি হয়। এ তথ্য জানান দুদকের পক্ষের আইনজীবী শাহীন আহমেদ। তিনি জানান, ৩টি হাট লিজ দেয়াকে কেন্দ্র করে তার বিরুদ্ধে তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরো ১৯৮২ সালের ৯ জুন মামলা করে চারঘাট থানায়। মামলায় সাড়ে ৪০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়। ১৯৮২ সালের ১০ নভেম্বর আসামি আব্দুস সোবহানের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়। বিচার শেষে ১৯৮৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ে তাকে ৫ বছরের জেল ও ৪২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ওই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে ১৯৮৮ সালে আপিল (আপিল নং: ১৮৬/১৯৮৮) করেন আব্দুস সোবহান। এ আপিল বিচারাধীন থাকা অবস্থায় ২০০১ সালের ১৬ জুন মারা যান সোবহান। কিন্তু আপিলে দুদককে পক্ষভুক্ত করা হয়নি। পরে দুদক এই মামলায় পক্ষভুক্ত হয়ে শুনানিতে অংশ নেয়।

অ্যাডভোকেট শাহীন আহমেদ আরও জানান, হাইকোর্ট বিভাগ একটি অনেক পুরানো আপিল রায় দিয়ে নিষ্পত্তি করেছেন। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সোবহানের বিরুদ্ধে ৪০ হাজার ৫০০ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ছিল। ওই অভিযোগে দুর্নীতি দমন ব্যুরো মামলা করে। সেই মামলায় ৫ বছরের সাজা এবং ৪২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সেই রায়ের বিরুদ্ধে তিনি আপিল করেছিলেন। অনেক দিন পর রায়ের মাধ্যমে আপিলটি নিষ্পত্তি হলো। এরই মধ্যে আপিলকারী মারা গেছেন। তাই আইন অনুযায়ী, আপিলটি বাদ হয়ে যাবে দন্ড ও সাজার ক্ষেত্রে। কিন্তু জরিমানা থেকে যাবে। এখন এই জরিমানার বিষয়ে শুনানি হয়েছে। শুনানি শেষে আপিল অ্যালাউ (মঞ্জুর) করেছেন। এর মাধ্যমে আপিলের নিষ্পত্তি হলো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হাইকোর্ট

১৭ এপ্রিল, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ