Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

পাবজিতে বিকারগ্রস্ত কিশোর হত্যা করলো পুরো পরিবারকে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ জানুয়ারি, ২০২২, ১০:০৫ এএম

দীর্ঘক্ষণ অনলাইনে পাবজি গেম খেলে মানসিক বিকারগ্রস্ত হয়ে পড়েছিল ১৪ বছর বয়সী এক কিশোর। আর এর প্রভাবে পুরো পরিবারকে গুলি করে হত্যা করেছে সে। ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে। স্থানীয় পুলিশের বরাত দিয়ে আজ শুক্রবার এমনটি জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডন।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, লাহোরের কাহনা এলাকায় গত সপ্তাহে নাহিদ মুবারাক (৪৫), তাঁর ছেলে তৈমুর (২২) ও দুই কন্যার লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে এই হত্যাকাণ্ডের পর ওই পরিবারে একমাত্র জীবিত ছিল নাহিদ মুবারাকের ১৪ বছর বয়সী কিশোর ছেলে।
লাহোর পুলিশের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, পাবজি আসক্ত কিশোর তার মা ও ভাইবোনকে হত্যার কথা স্বীকার করে। অনলাইনে দীর্ঘ সময় গেম খেলার কারণে ওই কিশোরের কিছু মানসিক সমস্যা দেখা দেয়।
পুলিশ আরও জানায়, নাহিদ একজন ডিভোর্সি নারী। পড়াশোনা বাদ দিয়ে প্রায়ই পাবজি খেলার কারণে ওই ছেলেকে বকাঝকা করতেন নাহিদ।
বিবৃতিতে আরও বলা হয়, একদিন নাহিদ ওই কিশোরকে পাবজি খেলার জন্য বকাঝকা করেন। পরে সে একটি পিস্তল নিয়ে পুরো পরিবারকে ঘুমের মধ্যে হত্যা করে। পরদিন ওই কিশোরের মাধ্যমে ঘটনাটি প্রতিবেশীদের নজরে আসে। এরপর পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। ওই সময় অভিযুক্ত কিশোর জানায়, সে ওপরের তলায় ছিল। সে জানে না যে কীভাবে তার পরিবারকে হত্যা করা হয়েছে।
পুলিশ জানায়, নাহিদ তাঁর পরিবারের সুরক্ষার জন্য লাইসেন্স করা পিস্তল কিনেছিল। হত্যার পর পিস্তলটি ড্রেনে ফেলে দেওয়া হয়। সেটি এখনো উদ্ধার হয়নি। তবে ওই কিশোরের রক্তমাখা কাপড় উদ্ধার করা হয়েছে।
ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়, অনলাইন গেম নিয়ে লাহোরে এটি চতুর্থ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সম্প্রতি গেমিং ডিসঅর্ডারকে আন্তর্জাতিক রোগের শ্রেণিবিভাগে অন্তর্ভুক্ত করেছে। সূত্র : ডন



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ