Inqilab Logo

বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯, ২৮ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

মুসলিমার কাটা মাথার দাফন সম্পন্ন

গ্রেফতার আরো ২

খুলনা ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ৩১ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

খুলনার ফুলতলায় ধর্ষণের পর যুবতী মুসলিমা খাতুনকে গলা কেটে হত্যায় জড়িত মূল আসামি রিয়াজ খন্দকার ও সোহেল সরদারের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণের জন্য গতকাল রোববার আদালতে প্রেরণ করা হয়। তারা আদালতে সব অপরাধ স্বীকার করেছে। এদিকে ধর্ষণের সহযোগিতার অভিযোগে পুলিশ মুনসুর খাঁ এবং ইউসুফ আলীকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। মুসলিমার মাথার ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ শেষে গতকাল রোববার বিকালে দাফন করা হয়েছে এবং তার মোবাইল ফোন, কানের দুল ও চেইন উদ্ধার হয়েছে। ফুলতলা থানায় যুবতীকে ধর্ষণ, পাশবিক নির্যাতন ও গলা কেটে হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফুলতলা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোস্তফা হাবিবুল্লাহ জানান, মূল আসামি যুগ্নিপাশা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশারেফ খন্দকারের পুত্র রিয়াজ খন্দকার ও শিলন সরদারের পুত্র সোহেল সরদার প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সকল ঘটনা স্বীকার করে। তাদের দেওয়া তথ্য মতে গত শনিবার সকালে মুসলিমার খন্ডিত মস্তক পরিধেয় কাপড়, স্যান্ডেল, হত্যায় ব্যবহৃত বটি উদ্ধার হয়। পরবর্তীতে রিয়াজের বাড়ির পুকুর থেকে মুসলিমার মোবাইল ফোন এবং সোহেল সরদারের বাড়ির কবুতরের ঘর থেকে কানের দুল ও চেইন (ইমিটেশনের) উদ্ধার হয়। এছাড়া মুসলিমাকে তার বাসা থেকে ডেকে নেওয়ার জন্য রিয়াজের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও উদ্ধার করা হয়।

এছাড়া ধর্ষণ ঘটনায় সহযোগিতার অভিযোগে পুলিশ যুগ্নিপাশা গ্রামের মৃত হাতেম শেখের পুত্র মুনসুর শেখ এবং ইয়াকুব মোল্যার পুত্র ইয়াসুফ আলীকে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে। এদিকে আসামিদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে নজরুল খাঁর নির্মাণাধীন বাড়ির বালির মধ্য থেকে মুসলিমার কর্তনকৃত মাথা উদ্ধার করে শনিবারই মর্গে প্রেরণ করা হয়।
ডিএনএ এর জন্য নমুনা সংগ্রহ শেষে মাথা পরিবারের কাছে হস্তান্তর করলে উপজেলা সরকারি গোরস্থানে সেটি দাফন হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মুসলিমার কাটা মাথার দাফন সম্পন্ন
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ