Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

ইটালিতে প্রাচীন শিরস্ত্রাণ, মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১:০৫ পিএম

ইটালির ম্যাগনা গ্রেটসিয়া এলাকায় প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের সন্ধান মিলেছে৷ এই এলাকাতে খ্রিস্টপূর্ব অষ্টাদশ শতকে প্রথমবার পা রেখেছিলেন গ্রিকরা৷

ইটালির দক্ষিণাঞ্চলে প্রত্নতাত্ত্বিক ধ্বংসাবশেষ মিলেছে৷ প্রত্নতাত্ত্বিকদের অনুমান, এগুলি আসলে গ্রিকদের তৈরি ‘প্রোটো টেম্পল’৷ ইটালির সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার জানিয়েছে, ভেলিয়া এলাকায় একটি রঙ করা প্রাচীর এবং শিরোস্ত্রাণগুলির সন্ধান মিলেছে৷ রোমান সভ্যতার জন্মের সময় গুরুত্বপূর্ণ একটি শহর ছিল এই ভেলিয়া৷

বর্তমানে ভেলিয়া সালেরনো প্রদেশের আসেয়া শহরের অংশ৷ বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে সেরা-সংরক্ষিত প্রাচীন গ্রীক মন্দিরগুলির জন্য বিখ্যাত পেইস্টুম৷ সেই পেইস্টুম থেকে ৪০ কিমি (২৫ মাইল) দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত এটি৷ গ্রেটার গ্রিস অর্থাৎ ম্যাগনা গ্রেটসিয়ার অংশ ছিল ভেলিয়া এবং পেইস্টুম৷ খ্রিস্টপূর্ব অষ্টাদশ শতকে গ্রিসের অসংখ্য মানুষ এখানে বসতি গড়েছিল৷ হেলেনিক সংস্কৃতির বিকাশে এই গ্রিক বসতির জরুরি ভূমিকা রয়েছে৷ প্রাচীন রোমান সভ্যতাও বিস্তার লাভ করেছিল৷

৫৪০ খ্রিস্টপূর্বে ভেলিয়া শহরের জন্ম৷ প্রখ্যাত দার্শনিক পারমিনিদেস এবং জেনোর বাসভূমি ছিল এই ভেলিয়া৷ স্টেট মিউজিয়ামের মাসিমো ওসান্না জানান, টিরেনিয়ান সাগরের কাছে প্রাচীন আমলে বডসড় একটি নৌ-যুদ্ধ হয়েছিল৷ এরপর দেবী অ্যাথেনাকে যে নৈবেদ্য ও উপহার দেওয়া হয়েছিল, খুব সম্ভবত তারই ধ্বংসাবশেষ মিলেছে ভেলিয়ায়৷ গ্রিকদের যুদ্ধ এবং জ্ঞানের দেবী হিসেবে পরিচিত অ্যাথেনা৷

যদিও এখন এটি ধ্বংসাবশেষ৷ প্রাচীন আমলের ‘অ্যাক্রোপলিস’ ছিল এটি৷ উঁচু সেই শহর থেকে দেখা যেত সমুদ্রের নীল জলরাশি৷ প্রত্নতাত্ত্বিক গবেষণায় বিনিয়োগের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করেন ইটালির সংস্কৃতি মন্ত্রী দারিও ফ্রান্সশেৎসকিনি৷ খননকার্যের ফলে প্রাপ্ত নিদর্শনগুলির কথাও বলেন তিনি৷ তার কথায়, এর ফলে ভূমধ্যসাগরীয় ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলি জানা যাবে৷ সূত্র: এপি, ডিপিএ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইতালি


আরও
আরও পড়ুন