Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

ফুটবল মাঠে হৃদরোগে মৃত্যু বাড়ছেই!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

ফুটবল মাঠে আবারও মৃত্যু। আলেক্সন্দ্রোস লাম্পিস ২১ বছরের টগবগে তরুণ। গ্রিসের তৃতীয় বিভাগের দল লিউপুলির হয়ে পরশু মাঠে নেমেছিলেন এই মিডফিল্ডার। এরমিওনিদার বিপক্ষে ম্যাচে মাত্র পাঁচ মিনিটের মাথায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাঠেই পড়ে যান লাম্পিস। লিউপুলি নিজেদের ফেসবুক পেজে লাম্পিসের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে লিখেছে, ‘আমাদের আলেকো, আমাদের বন্ধু, আমাদের ভাই, তুমি বড় অসময়ে চলে গেলে। পুরো দল, পুরো শহর শোকগ্রস্ত, যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। যাত্রা শুভ হোক আলেকোরা।’
গ্রিসের রাজধানী এথেন্সে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ফার্স্ট মিউনিসিপ্যাল স্টেডিয়ামে এ ঘটনার সবচেয়ে মর্মান্তিক বিষয় হলো, লাম্পিস অজ্ঞান হয়ে পড়ে যাওয়ার পর তার জ্ঞান ফিরিয়ে আনার জন্য ‘সিপিআর’ প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হয়নি। ঘটনার ২০ মিনিটের মধ্যেও পৌঁছাতে পারেনি অ্যাম্বুলেন্স। মাঠেও ডিফিব্রিলেটর (হৃৎপিণ্ড পাম্প করার যন্ত্র) ছিল না। তবে গ্রিসের সংবাদমাধ্যম অবশ্য দাবি করেছে, স্টেডিয়ামে ডিফিব্রিলেটর থাকলেও সেটি এমন জায়গায় ছিল, যেখান থেকে এনে দ্রুত ব্যবহার করতে পারেননি চিকিৎসকেরা। লাম্পিসকে হাসপাতালে নেওয়া হলেও ততক্ষণে দেরি হয়ে যায়।
আট মাস আগে ইউরোয় ডেনিশ মিডফিল্ডার ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন মাঠেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে গিয়ে শঙ্কা তৈরি করেছিলেন। ভাগ্যিস, মাঠেই ‘সিপিআর’ ও ডিফিব্রিলেটর দিয়ে তার চেতনা ফিরিয়ে আনেন ডেনিশ অধিনায়ক সিমোন কায়ের ও দুই দলের চিকিৎসকেরা। এরিকসেন সে যাত্রায় প্রাণে বেঁচে গিয়ে এখন মাঠে ফেরার অপেক্ষায়। বুকে ‘পেসমেকার’ নিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দল ব্রেন্টফোর্ডের হয়ে খেলবেন তিনি।
এরিকসেনের সেই ঘটনার পর বুকে ব্যথার জন্য অকালেই অবসর নেন আর্জেন্টিনা, ম্যানচেস্টার সিটি ও বার্সেলোনার সাবেক স্ট্রাইকার সের্হিও আগুয়েরো। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ডিফেন্ডার ভিক্টর লিন্ডেলফ ও বার্সেলোনায় সদ্যই যোগ দেওয়া স্ট্রাইকার পিয়েরে এমেরিক অবামেয়াংকে নিয়েও একই দুশ্চিন্তা আছে। মাঠে বুকের ব্যথায় ভোগার নজির আছে দুজনেরই।
তাঁদের বাইরেও এই মৌসুমে উইগান স্ট্রাইকার চার্লি উইক অনুশীলনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাঠেই পড়ে গিয়েছিলেন। মাত্রই কয়েক দিন আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইতেও মাঠে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ফুটবলার। রিডিংয়ের বিপক্ষে একই সমস্যায় ভুগে মাঠে অচেতন হয়ে পড়ে যান জন ফ্লেক। এ ছাড়া রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচে বুকে ব্যথা পেয়ে পড়ে গিয়েছিলেন শেরিফ তিরাসপোলের আদামা ত্রায়োরে। গত অক্টোবরে আইসল্যান্ডের মিডফিল্ডার এমিল পালসোনকেও একই কারণে মাঠে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে তোলা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফুটবল মাঠে হৃদরোগে মৃত্যু বাড়ছেই
আরও পড়ুন