Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯, ০৫ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

গুমকে অস্বীকার ভয়ঙ্কর বিপদ ডেকে আনবে

বিবৃতিতে আ স ম রব

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, গুম ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগকে অস্বীকার করে সরকার ভয়ঙ্কর বিপদ ডেকে আনছে। ‘জাতিসংঘের কোন কোন প্রতিষ্ঠান গুমের তালিকায় যে নাম দিয়েছিল তাদের অনেকের ভূমধ্যসাগরে সলিলসমাধি হয়েছে’-পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ বক্তব্য গুমকে অস্বীকার করার নিষ্ঠুর কৌশল। গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে গতকাল তিনি এ কথা বলেন।

আ স ম রব বলেন, মানুষের জীবনকে কেবলমাত্র জীবন রূপেই বিবেচনা করতে হবে, সরকারের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য সাধনের উপায় হিসেবে নয়। সরকার গুম ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগকে কেবল অপপ্রচার হিসেবে বিবেচনা করছে, অভিযোগের সত্যতা বা পরিস্থিতি উন্নয়নের প্রয়োজনীয়তা স্বীকার করছে না যা রাষ্ট্রের জন্য ভয়ঙ্কর বিপদ ডেকে আনবে।

তিনি বলেন, নাগরিকদের জীবন সুরক্ষা দেয়ার ব্যর্থতাকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরেক ব্যর্থতা দিয়ে ঢাকার অপচেষ্টা করেছেন মাত্র। তথাকথিত উন্নয়নের ডামাডোলে কোটি কোটি বেকার ক্ষুধা ও দারিদ্র্য থেকে মুক্তি ও একটু উন্নত জীবনের আশায় বাড়িঘর সহায়-সম্বল বিক্রি করে বিদেশে পাড়ি দিতে গিয়ে সরকারি ছত্রছায়ায় গুটি কতক প্রতারক দ্বারা হয় নিঃশেষিত নতুবা অপঘাতে মৃত্যুর সম্মুখীন হচ্ছেন। সরকার একদিকে কর্মসংস্থান প্রদানে ব্যর্থ অন্যদিকে প্রতারকদের হাত থেকেও বাঁচাতে ব্যর্থ। এরপরও এদের দুঃখজনক মৃত্যুকে নিয়ে সরকারের পরিহাস সত্যিই জাতির জন্য দুর্ভাগ্যজনক।

আ স ম রব বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য, যাদের সলিল সমাধি হয়েছে তাদের আর কখনো ফিরে পাওয়া যাবে না, কিন্তু গুমের শিকার পরিবারগুলো এখনো তাদের ফিরে আসার অপেক্ষায় পথ চেয়ে বসে আছে। সরকারি মহল থেকে তাদের সলিল সমাধি হয়েছে বলে প্রচার করার অপচেষ্টায় গুম হওয়া পরিবার নতুন করে মানসিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হচ্ছে। সরকারের প্রতি আহ্বান, নাম-ঠিকানা ও পরিচয়সহ গুম ও ভূমধ্যসাগরে মৃতদের পৃথক পৃথক তালিকা অবিলম্বে জাতির সামনে প্রকাশ করা হোক।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আ স ম রব


আরও
আরও পড়ুন