Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২২ অক্টোবর ২০১৮, ৭ কার্তিক ১৪২৫, ১১ সফর ১৪৪০ হিজরী

মিরাজকে বাড়ি বানিয়ে দেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশের সময় : ৩ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১২:৪৫ এএম, ৩ নভেম্বর, ২০১৬

বিশেষ সংবাদদাতা : ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশকে প্রথম টেস্ট জয়ের স্বাদ এনে দেয়ায় ক্রিকেট দলের পারফরম্যান্সে দেশবাসীর সঙ্গে মুগ্ধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। ব্যক্তিগতভাবে এবং মন্ত্রিসভার বৈঠকে এজন্য ক্রিকেট দলকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি। আর এই জয়ের পেছনে যার অবদান সবচেয়ে বেশি সেই কিশোর ক্রিকেটার মেহেদী হাসান মিরাজ যাতে সব ধরনের টেনশনমুক্ত হয়ে খেলাটিতে মনোনিবেশ করতে পারে সেজন্য তাকে খুলনায় বাড়ি বানিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।
বাড়ি তৈরির জন্য উপযুক্ত স্থান খুঁজে বের করতে তিনি খুলনার জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দিয়েছেন বলে প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব আশরাফুল আলম জানিয়েছেন। মিরাজের ক্রিকেটার হয়ে ওঠার পেছনে দারিদ্র্যের সঙ্গে তার লড়াইয়ের গল্প সংবাদমাধ্যমে উঠে আসার পর প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশ দিলেন।
আশরাফুল আলম বলেন, ক্রিকেটার মেহেদী হাসান মিরাজের পরিবারের জন্য বাড়ি তৈরি করে দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নির্দেশনা ইতোমধ্যে খুলনার জেলা প্রশাসককে জানিয়ে দিয়েছেন মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ। বাড়ি করার জন্য উপযুক্ত স্থান খুঁজে বের করে এই ব্যবস্থা নেবে জেলা প্রশাসন।
প্রসঙ্গত বরিশালে আদি নিবাস হলেও খুলনা শহরেই বেড়ে উঠেছে মিরাজ। খুলনার খালিশপুরের বিআইডিসি সড়কের নর্থ জোনের ৭ নম্বর প্লটে বৃহত্তর বরিশাল কল্যাণ সমিতির অফিসের পিছনে যে টিনের বাসায় মিরাজরা থাকেন, সেখানে ঘর মাত্র দুটি। বাঁশের চাঁটাই দিয়ে বারান্দার একটি অংশ ঢেকে তৈরি হয়েছে আরেকটি ঘর। তারই এক ঘরে রাখা হয়েছে মিরাজের পাওয়া সারি সারি মেডেল। সেখানে এমন একটি গলির মধ্য দিয়ে ঢুকতে হয় মিরাজদের বাড়িতে।
উল্লেখ্য, বোলিং এ ১২৯ বছরের রেকর্ড ভাঙা ক্রিকেট তারকা এবং ইংল্যান্ড বধের নায়ক মেহেদি হাসান মিরাজ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্টে দুই ইনিংসে ১২ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা এবং দুই টেস্ট সিরিজে ১৯ উইকেট নিয়ে সিরিজ সেরার পুরস্কারও পেয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রীর নিকট নজরুল ইনস্টিটিউটের নতুন ভবন নির্মাণের নক্শা উপস্থাপন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট নজরুল ইনস্টিটিউটের নতুন ভবন নির্মাণের প্রস্তাবিত নক্শা উপস্থাপন করেছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়।
গতকাল বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মাধবী হলে স্থপতি ইকবাল হাবিব ও ইশতিয়াক জহির পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে নতুন ভবনের নানা দিক প্রধানমন্ত্রীর নিকট তুলে ধরেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব আখতারি মমতাজ, নজরুল ইনস্টিটিউটের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ইমেরিটাস ড. রফিকুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সুরাইয়া বেগম, প্রেস সচিব ইহসানুল করিম প্রমুখ। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। প্রেস সচিব জানান, পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনে প্রস্তাবিত ৮তলা ভবনের নানা বৈশিষ্ট ও সুযোগ-সুবিধার কথা তুলে ধরা হয়। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা দেন।
স্থপতি ইকবাল হাবিব জানান, ধানমন্ডির পুরাতন ২৮ নম্বরের ৩৩০বি’তে বিদ্যমান পাঁচতলা ভবনটি ৬তলায় উন্নীত করা হবে। বিদ্যমান ভবনের পাশাপাশি আরেকটি নতুন ৮তলা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে। কমপ্লেক্স ভবনের সামনে উন্মুক্ত স্থান ও মঞ্চ থাকবে। যেটি ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবরের আদলে তৈরি করা হবে।
ড. রফিকুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার পর কবি নজরুল ইসলামকে ঢাকায় নিয়ে আসেন এবং বাংলাদেশের জাতীয় কবির স্বীকৃতি দেন। কবির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কবির জন্মভিটা পরিদর্শনের স্মৃতিচারণ করেন। ’৯৬ এ আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের পশ্চিমবঙ্গের চুরুলিয়ায় জাতীয় কবির বাড়িতে যান। শেখ হাসিনাই প্রথম কোন সরকার প্রধান যিনি কবি নজরুলের জন্মস্থান চুরুলিয়ার বাড়িতে গিয়েছেন।

 
বাংলাদেশের ‘বিস্ময় বালক’ ক্রিকেটার মেহেদি হাসান মিরাজ এবং তার পিতা জালাল উদ্দিন তাদের পরিবারের জন্য একটি বাড়ি বানিয়ে দিতে উদ্যোগ নেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। মিরাজ জানান, প্রধানমন্ত্রী আমার পরিবারের জন্য একটি বাড়ি বানিয়ে দেয়ার উদ্যোগ নিয়ে আমাদের প্রতি যে মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন, এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং দেশবাসীর প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।
বাসস জানায়, পরিবারের জন্য একটি বাড়ি করে দিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ দেয়ার খবর শুনে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মিরাজ এ কথা বলেন। এ সময় তিনি আনন্দে কান্নায় ভেঙে পড়েন। মিরাজের দরিদ্র পিতা ট্যাক্সিচালক জালাল উদ্দিনও তাদের জন্য বাড়ি বানিয়ে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণের খবরে একই অনুভূতি প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আবেগাপ্লুত কণ্ঠে বলেন, মিরাজ এখন শুধু আমাদের ছেলে নয়, তাকে দেখাশুনার দায়িত্ব এখন জাতির।
প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. আবুল কালাম আজাদ প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনা খুলনা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসানকে অবহিত করার পর মিরাজের সাথে খুলনার নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) আতিকুল ইসলাম কথা বলেন। এ সময় তিনি মিরাজের পরিবারের জন্য বাড়ি বানানোর স্থান সম্পর্কে তার পছন্দ জানতে চান। এ সময় মিরাজ খুলনা মহানগরীর খালিশপুর এলাকার কথা উল্লেখ করে বলেন, এ এলাকাটি তার পরিবারের জন্য সুবিধাজনক হবে, কেননা এ এলাকায় তারা বড় হয়েছেন। তিনি বলেন, শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামের পাশে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের কয়েকটি খালি বাণিজ্যিক-কাম-আবাসিক প্লট রয়েছে। তিনি বলেন, ‘কর্তৃপক্ষ যদি এটি (প্লট) বরাদ্দ দেয় তাহলে এ ধরনের একটি প্লটই আমাদের জন্য ভালো হবে’। পরে এনডিসি মিরাজকে জানান, তাদের পছন্দের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে।
এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষগুলোকে মিরাজের পরিবারের জন্য আবাসিক বাড়ি নির্মাণের নির্দেশনা দেন। প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষগুলোকে বাড়ি নির্মাণের নির্দেশনা দিয়েছেন এবং প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনা তার মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ খুলনার জেলা প্রশাসককে জানিয়ে দিয়েছেন।’
আশরাফুল আলম খোকন বলেন, বাড়ি নির্মাণের জন্য উপযুক্ত স্থান খুঁজে বের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে স্থানীয় প্রশাসন। বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ‘ক্রিকেট সেনসেশন’ মিরাজ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট বিজয়ে ১২ উইকেট শিকারের মাধ্যমে দেশবাসীর প্রশংসা লাভ করেন।
খুলনার দরিদ্র ট্যাক্সিচালকের ছেলে ১৯ বছর বয়সী স্পিনার মিরাজ ইংল্যান্ডের সাথে সদ্য সমাপ্ত দুই-ম্যাচের রকেট টেস্ট সিরিজ বিজয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।



 

Show all comments
  • ফজলুল হক ৩ নভেম্বর, ২০১৬, ৭:০১ এএম says : 0
    প্রতিভা মানুষকে কোথা থেকে কোথায় নিয়ে যায়!
    Total Reply(0) Reply
  • সেলিম ৩ নভেম্বর, ২০১৬, ৭:০৪ এএম says : 0
    প্রধানমন্ত্রীকে সকল ক্রিকেটপ্রেমীদের পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ
    Total Reply(0) Reply
  • রাসেল ৩ নভেম্বর, ২০১৬, ৩:১৪ পিএম says : 0
    মিরাজকেও তার এই খেলার ধারাবাহিকতা অব্যহত রাখার আপ্রাণ চেষ্টা করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Laboni ৩ নভেম্বর, ২০১৬, ৩:১৪ পিএম says : 0
    We are proud of you Miraz
    Total Reply(0) Reply
  • Kasem ৩ নভেম্বর, ২০১৬, ৩:১৫ পিএম says : 0
    ate tar o onnoder valo khelar agroho barbe
    Total Reply(0) Reply
  • রাজ্জাক ৩ নভেম্বর, ২০১৬, ৩:১৮ পিএম says : 0
    মাশরাফি, সাকিব, মুস্তাফিজ এবং মিরাজ দেশের মর্যাদাকে অনেক উপরে নিয়ে গেছে। তাদেরসহ পুরো ক্রিকেট টিমের জন্য রইলো শুভ কামনা।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।