Inqilab Logo

বুধবার, ১০ আগস্ট ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ মুহাররম ১৪৪৪

বিদেশি বিনিয়োগ বাধাগ্রস্ত হবে আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু না হলে

মিট দ্য রিপোর্টার্স অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্যের রাষ্ট্রদূত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

ঢাকায় নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট ডিকসন বলেছেন, বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচন সমস্যাপূর্ণ হলে স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উত্তরণ মসৃণ নাও হতে পারে। আন্তর্জাতিক অংশীদাররা বাংলাদেশে বহুপক্ষীয় ও স্বচ্ছ গণতন্ত্রকে সমর্থন করে। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীরা যে দেশে বিনিয়োগ করতে চায় সেখানে আইনের শাসন আছে কিনা দেখতে চায়। যদি নির্বাচন সমস্যাপূর্ণ হয়, তবে যে ধরনের উত্তরণ প্রত্যাশা করা হচ্ছে সেটা না-ও হতে পারে। যদি নির্বাচন নিয়ে বড় সমস্যা হয় তবে যুক্তরাজ্যের কোম্পানিগুলো বিনিয়োগের বিষয়ে হয়তো নতুন করে চিন্তা করবে।

গতকাল ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে মিট দ্য রিপোর্টার্স অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। ব্রিটিশ হাইকমিশনার মনে করেন, আগামীতে এলডিসি থেকে উত্তরণের পর বাংলাদেশের উদ্যোক্তারা নানাবিধ চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে। তবে ২০২৯ সাল পর্যন্ত শুল্কমুক্ত ও কোটামুক্তভাবে বাংলাদেশি পণ্য যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করতে পারবে। এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পরও এই সুবিধা পাবে বাংলাদেশ।

রবার্ট ডিকসন বলেন, বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য দেখতে চায় যুক্তরাজ্য। নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ জানিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচন স্বাধীন, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য হলে বাংলাদেশের ওপর আস্থা অনেক বেড়ে যাবে। বাংলাদেশের ১৯৭২ সালের সংবিধান অনুযায়ী সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আমরা প্রত্যাশা করি। এ ক্ষেত্রে আমরা চারটি বিষয়কে প্রাধান্য দেবো। সেগুলো হলো- সব দলের অংশগ্রহণ, সবাই যেন ভয়-ভীতি ছাড়া ভোট দিতে পারে, ভোট যেন স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ হয় এবং সব দল যেন নির্বাচনের ফলাফল মেনে নেয়।

বাংলাদেশে গুম-খুন নিয়ে যুক্তরাজ্য চিন্তিত কি না এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আমরা প্রতিনিয়ত কথা বলছি। বাংলাদেশ থেকে অনেক অপরাধী যুক্তরাজ্যে আশ্রয় নিয়েছে, তাদেরকে ফিরিয়ে দেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে হাইকমিশনার বলেন, এটা একটি আইনগত প্রক্রিয়ার বিষয়। এটা আদালতের পর্যবেক্ষণে রয়েছে। এ ক্ষেত্রে আদালত স্বাধীন ভাবে সিদ্ধান্ত নেবে।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে ডিকসন বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের সামরিক সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে। আগামীতে আমরা এই সহযোগিতা আরও বাড়াতে চাই। যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশ সি-১৩০ বিমান ক্রয় করেছে। নৌবাহিনীর সামরিক সরঞ্জামের জন্যও বাংলাদেশ যুক্তরাজ্য থেকে সহযোগিতা নিচ্ছে। রোহিঙ্গা সমস্যা প্রসঙ্গ তুলে তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, মিয়ানমারের বর্তমান অবস্থা ভালো হলে তারা রোহিঙ্গাদের দেশে ফিরিয়ে নেবে। বাংলাদেশ এখনো তাদের সঙ্গে মানবিক আচরণ করছে। তাদের খাবার, বাসস্থান, চিকিৎসার ব্যবস্থা করছে এমনকী কোভিডকালীনও তাদের নিরাপদ রাখতে ভূমিকা নিয়েছে। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে কোভিড ভ্যাকসিন দেওয়ায় বাংলাদেশ সরকারের ভূয়সী প্রশংসা করেন এই হাইকমিশনার।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব।



 

Show all comments
  • মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৩:৪৩ এএম says : 0
    আমলারা চায় জনগণের লাভের পয়োজন নেই,অন্যথায় দেখতেছে এই কাচরা দুর্গন্ধ ময়লা আবর্জনা সংসদীয় পদ্ধতি জনগণের জন্য মংগল নয়,শুধু সবাই বলছে এইটি সেইটি সার্চ কমিটি উপদেষ্টা বুদ্ধি জীবি বিশেষজ্ঞরা আসলেই কাহার মাথায় আসতেছে না,আমলারা কি জন্য আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতি করেছেন,তাঁদের সারথের জন্য,জনগণের সারথের জন্য নয়,জনগণের সারথের জন্য এক মাত্র রাষ্ট্রপতি পদ্ধতি,ছোট একটি দেশে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি যথেষ্ট,কি দরকার আছে আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতি করে সব কিছু লুট পাঠ করে খাওয়ার,এই যে পলিসি এবং পলিটিক্স করে রাষ্ট্রপতি পদ্ধতি বাতিল করলেন সেটা কি দেশের বিশিষ্ট জনেরা এবং বিশেজ্ঞরা ও রাজনৈতিক বিশ্লশকেরা সুশীল সমাজের যারা আছেন উনাদের কি দেখার দরকার নেই,কি আর্চারযে এই দলীয় আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতির আমলাদের কতে পলিসি কতে পলিটিক্স কি ভাবে ক্ষমতায় যাবেন এবং কি ভাবে ক্ষমতা রাখা যায়,আজ এই বুদ্ধি কালকে অন্য পলিসি সার্স কমিটি সুপারিশ কমিটি আবার পরামর্শ কমিটি আবার তার পরে বাঁচাই তার পরে এই দল থেকে বাঁচাই করে নাম দেওয়া,সবাই দিবে বাঁচাই করবে,আবার হুজুর বলবেন ছাত্র ছাত্রী এটি ভালো এইটি ভালো নয়,এই দরনের তামাশা করে জনগণের টাকা খরছ করে কি লাভ,এর পরে জনগণ এই দরনের সিদ্ধান্ত এই ভাবে নির্বাচনে রাজী নয়,আমলারা বলছেন না এই ভাবে হবে,দেশে এই তামাশা করার কি পয়োজন,কিছু লোক কে সার্স কমিটিতে ডেকেছেন,এরা মনে করতেছেন আমাদের কি দাম আমাদের ডেকেছেন আমরা টিভি মিডিয়ার সংবাদ পত্রের মাধ্যমে ছবি আসবে ,কি দাম যেন হয়ে গেছে,আসলেই এই গুলি আমলারা পলিসি এবং পলিটিক্স করে করছেন,আসলেই আপনাদের বোকা বানাইতেছে,অন্যথায় দেশে কিছু দিন আগে আপনাদের মতে মূল্যবান বেকতির কি দশা হয়েছে সেটি আপনারা জানেন,এখন ক্ষমতায় যেতে আবার আপনাদের পয়োজন হয়েছে,যখন আবার কোনো মতে যাওয়া যায়,কিসের আবার উপদেষ্টা কিসের আবার মতামত কারি ,পুলিশ রোপ কোথায় এদের দর পিঠাইয়া জেলে দিয়ে দেওয়া হউক,এরা কে এখন দরকার নেই আমরা আমলারা সব কিছু,দেখেন এই দেশে এই দলীয় আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতি বাতিল করতেই হবে,এই পদ্ধতি দলীয় সব কিছু দলীয় খাওয়া দাওয়া দলীয় বিচার দলীয় পড়ালেখা দলীয় চাকরি বাকরি দলীয় বেবেসা বানিজ্য দলীয় চুরি করা দলীয় এই যে সব কিছু দলীয়,কি করে গণতন্ত্রের দেশ হলেন ,সেটি রাজ তন্ত্র আরে ভাই আপনারা কি জন্য আমলাতান্ত্রিক চৌরাচার দলীয় সংসদীয় পদ্ধতি সাপোর্ট করছেন,...
    Total Reply(0) Reply
  • Jamal Hossain ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৪:১৫ এএম says : 0
    ৭২ এর সংবিধানে তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা নাই। বাংলাদেশকেই ৭২ এর সংবিধানে ফিরে যাওয়া উচিৎ
    Total Reply(0) Reply
  • Md Mobarak Hossain ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৪:১৬ এএম says : 0
    কাল আওয়ামী লীগের মন্ত্রীরা বলবে ব্রিটেনের বিনিয়োগ বাংলাদেশে লাগবেনা
    Total Reply(0) Reply
  • Rony Chowdhury ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৪:১৬ এএম says : 0
    ‌কিন্তু কাল‌কে আওয়ামীলীগ বলবে ওরা তা ব‌লে নি, কারন আওয়ামীলীগ ইং‌রে‌জির নতুন অর্থ বের ক‌রে‌ছে, হ‌্যা কে না, আর না কে হ‌্যা
    Total Reply(0) Reply
  • MD Shozib Bapary ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৪:১৬ এএম says : 0
    আওয়ামীলীগ জনগণের ভোটের অধিকার ধংশো করে জনগণের সাথে তামাশা করছে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিদেশি বিনিয়োগ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ