Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

করোনার পর এবার আতঙ্ক ছড়াচ্ছে লাসা জ্বর

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৩:৩৩ পিএম

এই মুহূর্তে গোটা বিশ্ব করোনায় কাবু। এই সংক্রামক ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে টিকাকরণে দেওয়া হচ্ছে জোর। কিন্তু, এবার করোনার পাশাপাশি ইঁদুর বাহিত ভাইরাসের ফলে হচ্ছে লাসা জ্বর! এই জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ব্রিটেনে মৃত্যুও হয়েছে এক ব্যক্তির। বিশেষজ্ঞদের কথায়, লাসা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে যে উপসর্গ দেখা যায়, তার সঙ্গে করোনার উপসর্গের অনেকটাই মিল রয়েছে।

এখনও পর্যন্ত ব্রিটেনে লাসাতে আক্রান্ত হয়েছেন তিন জন। দেশটির হেলথ সিকিউরিটি এজেন্সির তরফে বলা হয়েছে, ‘যারা ওই প্রয়াত ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছেন তাদের প্রত্যেকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। তাদের প্রত্যেকের শারীরিক অবস্থার উপর নজরদারি চালানো হচ্ছে। তবে সাধারণ মানুষের এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা অত্যন্ত কম।’

বিজ্ঞানীদের কথায়, এই ভাইরাস ইঁদুর বাহিত। লাসায় আক্রান্ত কোনও ইঁদুরের মূত্র বা মল কোনও খাবার জিনিস বা বাড়িতে ব্যবহৃত জিনিসের সঙ্গে মিশলে এবং তা ব্যবহার করা হলে ছড়াতে পারে এই ভাইরাস। লাসা ভাইরাসের কিছু উপসর্গের সঙ্গে করোনার উপসর্গের সামঞ্জস্য চিন্তা বাড়াচ্ছে। লাসায় আক্রান্তদের উপসর্গগুলির মধ্যে অন্যতম হল- মাথা ব্যাথা, বমিভাব, মুখ, নাক থেকে রক্তক্ষরণ।

এই ভাইরাস প্রসঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানাচ্ছে, পশ্চিম আফ্রিকায় ইঁদুরদের দেহে এই ভাইরাস পাওয়া যেত। কিন্তু, বর্তমানে তা বেনিন, ঘানা, গিনি, লাইবেরিয়া, সিয়েরা লিওন, টোগো এবং নাইজেরিয়াতে এন্ডেমিক পর্যায়ে রয়েছে। কিন্তু, পশ্চিম আফ্রিকার কিছু দেশে এই ভাইরাসের অস্বস্তি রয়েছে। এখন সবথেকে বড় প্রশ্ন, এই ভাইরাস কি একজন ব্যক্তির থেকে আরেকজনের দেহে ছড়িয়ে পড়তে পারে? এই প্রশ্নের জবাবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, "লাসা ভাইরাসের ক্ষেত্রেও 'পার্সন টু পার্সন' সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে। বিশেষত, যদি সংক্রমণ ঠেকানোর মতো পর্যাপ্ত পরিকাঠামো না থাকে।"

বিশেষজ্ঞদের কথায়, এই ভাইরাসের সংক্রমণ যদি তাড়াতাড়ি চিহ্নিত করা যায় সেক্ষেত্রে দ্রুত চিকিৎসাও সম্ভব হবে। তবে আশার কথা এই ভাইরাসে আক্রান্তদের মৃত্যুহার ১ শতাংশ। এখনও পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, লাসায় আক্রান্তদের মধ্যে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে ১৫ শতাংশের। তবে গবেষণায় দেখা গিয়েছে পাঁচ জন আক্রান্তের মধ্যে একজন লাসা আক্রান্তের বিভিন্ন অঙ্গ যেমন কিডনি, লিভারের ক্ষতি করে এই ভাইরাস। সূত্র: টিওআই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লাসা জ্বর
আরও পড়ুন