Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬, ১৮ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

টঙ্গীতে বালিশ চাপায় শিশু হত্যা খালু গ্রেফতার

প্রকাশের সময় : ৫ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

টঙ্গী সংবাদদাতা : টঙ্গীতে ১১ বছরের এক শিশুকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত শিশুর নাম সোফিয়া আক্তার। এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাতে নিহত শিশুর খালু আকরাম হোসেনকে (৩৬) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, বাঘেরহাট জেলার মোল্লারহাট থানার ভা-ারখোলা কদমতলী গ্রামের মো: মিলন মিয়া স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে টঙ্গী খাঁপাড়ার তাহের খাঁর বাড়িতে ভাড়া থাকেন। প্রতিদিনের ন্যায় বৃহস্পতিবার সকালে তিন শিশু সন্তানকে বাসায় রেখে মিলন ভ্যানগাড়ি চালাতে যান এবং তার স্ত্রী রেখা বেগম যান গার্মেন্টসে। সন্ধ্যায় তারা বাসায় এসে বড় মেয়ে সোফিয়াকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না। পাশের বাসায় ভাড়া থাকেন সোফিয়ার খালা। গত দুই-তিন দিন আগে গ্রামের বাড়ি থেকে ওই বাসায় আসেন সোফিয়ার খালু। খালা শুকুরন বিবিও গার্মেন্টেসে চাকরি করেন। দিনভর খালু থাকেন একাকি বাসায়। এদিকে রেখা বেগম সোফিয়াকে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বোন শুকুরনের বাসায় যান। সেখানে শুকুরনের ঘরের চকির ওপর বালিশের নিচে সন্ধান মেলে সোফিয়ার। তবে জীবিত নয়; মৃত। এসময় রেখার ভগ্নিপতি আকরামের গতিবিধি সন্দেহ হলে তাকে পুলিশে দেয়া হয়। এ ব্যাপারে নিহত সোফিয়ার বাবা মিলন মিয়া বাদি হয়ে টঙ্গী মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। আকরামকে গতকাল শুক্রবার ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ।
নিহত সোফিয়ার মা রেখা জানান, আকরামের বাড়িও বাঘেরহাটে। আকরাম গ্রামের বাড়িতে কাঠমিস্ত্রীর কাজ করে। সে প্রায় ১০ বছর আগে শুকুরনকে বিয়ে করার বছর খানেক পর আরো একটি বিয়ে করে। এ ঘটনায় মামলা হলে জেল খাটে আকরাম। এ নিয়ে রেখা বেগমদের সাথে আকরামের শুত্রুতা তৈরি হয়। দীর্ঘদিন পর ভগ্নিপতি আকরামের সাথে দেখা হলেও কোনো কথা বলেননি রেখা বেগম। ফলে সোফিয়াকে হত্যা করে আকরাম প্রতিশোধ নেয় বলে ধারণা রেখার।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা টঙ্গী মডেল থানার এসআই মো: মাহমুদুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পূর্ব বিরোধের জেরে সোফিয়াকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের খালুকে আটক করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন