Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭, ১২ সফর ১৪৪২ হিজরী

জোরদার হচ্ছে নিম্নচাপ

প্রকাশের সময় : ৫ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

উপকূলে মেঘ-বৃষ্টি : বন্দরে সঙ্কেত
চট্টগ্রাম ব্যুরো : বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপটি অধিকতর শক্তি সঞ্চয় করে ঘনীভূত ও জোরদার হচ্ছে। এটি আজকালের মধ্যে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে। তবে গভীর মেঘমালা ও বৃষ্টির চাপ বেশি হলে সে ক্ষেত্রে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে শক্তিহীন হয়ে কেটে যেতে পারে এই নিম্নচাপ। এর সক্রিয় প্রভাবে উপকূলে মেঘ-বৃষ্টির ঘনঘটা ও হিমেল হাওয়া রয়েছে। সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩নং সতর্ক সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে। কার্তিকের তৃতীয় সপ্তাহে এসে সাগরে নিম্নচাপের কারণে গতকাল (শুক্রবার) ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, খুলনা, বরিশাল ও ময়মনসিংহ বিভাগে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে সিলেটে ২৯ মিলিমিটার। এ সময় ঢাকায় ২, চট্টগ্রামে ৫, খুলনায় ১৫, বরিশালে ৭ মি.মি. বর্ষণ হয়েছে। হিমেল দমকা হাওয়ার সাথে বৃষ্টির ফলে রাত ও দিনের তাপমাত্রা অনেক জায়গায় কমে গেছে। ভ্যাপসা গরমের আপাত অবসান হয়েছে। গতকাল ঢাকায় সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৮.৫ ও ২৬ ডিগ্রি সে.।
এদিকে সর্বশেষ আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে জানা গেছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও এর সংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত নি¤œচাপটি উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় (১৬.২ ডিগ্রি উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৪.৭ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমাংশ) অবস্থান করছে। এটি গতকাল দুপুরে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১০৩৫ কিলোমিটার পশ্চিম, দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৯৫ কি.মি. পশ্চিম, দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৮৮৫ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৮৯৫ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।
নি¤œচাপটির প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগরে গভীর সঞ্চারনশীল মেঘমালার সৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। নি¤œচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৪০ কি.মি., যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৫০ কি.মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নি¤œচাপ কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর উত্তাল রয়েছে।
চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ৩নং স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেই সাথে তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।
আজ (শনিবার) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়া পূর্বাভাসে জানা গেছে, ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে। সেই সাথে দেশের দক্ষিণাংশে মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে। সারাদেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা ২ থেকে ৩ ডিগ্রি সে. হ্রাস পেতে পারে। পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জোরদার হচ্ছে নিম্নচাপ

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ