Inqilab Logo

রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১৯ আষাঢ় ১৪২৯, ০৩ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

এখন আর নিজেদের মধ্যে দলাদলির প্রয়োজন নেই-ডিপজল

বিনোদন রিপোর্ট: | প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০২২, ১২:০৫ এএম

চলচ্চিত্রের মুভিলর্ডখ্যাত মনোয়ার হোসেন ডিপজল শিল্পী সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন। শপথ গ্রহণ করার পর তিনি বলেন, সমিতির নির্বাচন নিয়ে অনেক কাদা ছোড়াছুড়ি হয়েছে। এমন পরিস্থিতি আগে কখনো দেখিনি। সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে যে সমস্যা দেখা দিয়েছিল, আইনের মাধ্যমে তার সুরাহা হয়েছে। আমি সবসময়ই বলে এসেছি, আইনের ঊর্ধ্বে কেউ নয়। আদালত যে রায় দেবে তা আমরা সবাই মেনে নেব। আদালত যে রায় দিয়েছে আমরা তাতে সন্তুষ্ট। এখন আমাদের লক্ষ্য সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সমিতিতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনব। সমিতির সদস্যরা আমাদের নির্বাচিত করে যে দায়িত্ব দিয়েছে, তা পালনে মনোযোগী হব। চলচ্চিত্রকে সুশৃঙ্খল করতে শিল্পী সমিতি ভূমিকা পালন করবে। ডিপজল বিগত এক মাসের অধিক সময় ধরে সমিতির নির্বাচন বিশেষ করে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছিল, আমরা কেউই তা আশা করিনি। এ নিয়ে বহিরাগতদের এফডিসিতে প্রবেশ করে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে দেখেছি, যা মোটেও কাম্য ছিল না। তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, এফডিসিতে বহিরাগতরা আসবে কেন? এটি সরকারের কেপিআইভুক্ত বা সংরক্ষিত একটি এলাকা। এখানে যে কেউ চাইলেই ঢুকতে পারে না। যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে ঢুকতে হয়। তিনি বলেন, সচিবালয়, বিটিভিসহ সরকারের অনেক কেপিআইভুক্ত প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানে ঢুকতে সরকারের যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতির প্রয়োজন হয়। অথচ এফডিসি যেন অনেকটা খোলা মাঠ হয়ে গেছে। যেকেউ ঢুকে যাচ্ছে। এটা মোটেও ঠিক হচ্ছে না। তিনি বলেন, এফডিসিতে প্রযোজক, পরিচালক, শিল্পী ও কলাকুশলীদের কাজ করতে হয়। তাদের প্রত্যেকেরই পরিচয়পত্র রয়েছে। পরিচয়পত্র দেখিয়ে তাদের এফডিসিতে ঢুকতে হয়। দেখা যাচ্ছে, এ নিয়মের ব্যত্যয় ঘটছে। বহিরাগতরা ঢুকে যাচ্ছে। এতে এফডিসির নিরাপত্তার বিষয়টিও হুমকির মুখে পড়ছে। আমি মনে করি, এফডিসি কর্তৃপক্ষের এ ব্যাপারে দৃষ্টি দেয়া প্রয়োজন। তিনি শিল্পী সমিতির সদস্যদের আহ্বান জানিয়ে বলেন, এখন আর নিজেদের মধ্যে বিভেদ ও দলাদলির প্রয়োজন নেই। নিজেদের কল্যাণ কিভাবে করা যায় এবং সিনেমার উন্নয়নে ভূমিকা রাখা যায়, তা নিয়ে ভাবতে হবে। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে চলতে হবে। আমরা যারা নির্বাচিত হয়ে কমিটিতে রয়েছি, তারা চেষ্টা করব শিল্পীরা যাতে কাজ করতে পারে, সে ব্যবস্থা করতে। আমি ডিপজল এখন নিয়মিত সিনেমা নির্মাণ করছি। এতে সমিতির অনেক সদস্যর কাজের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে। অন্য প্রযোজকদেরও বলব, আপনারা সিনেমা বানান, চলচ্চিত্রকে এগিয়ে নেন। এতে চলচ্চিত্রের সকলেরই কাজ বাড়বে। সম্মিলিতভাবে কাজ করলে চলচ্চিত্রের সুদিন ফিরে আসবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডিপজল

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন