Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি আরও ৬৪ উপজেলায়

প্রকাশের সময় : ৮ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা : বেকার তরুণ-তরুণীদের অস্থায়ী কর্মসংস্থানে দেশের আরও ৬৪ উপজেলায় ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি সম্প্রসারণের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গতকাল সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এই কর্মসূচি সম্প্রসারণের প্রস্তাব অনুমোদন পায়।
সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, পঞ্চম থেকে সপ্তম পর্যায়ে ২০টি করে ৬০ উপজেলায় এই কর্মসূচি চালু হবে। এর সঙ্গে বান্দরবান ও খাগড়াছড়ির দু’টি করে এবং রাঙ্গামাটির একটি উপজেলা যোগ হয়ে মোট ৬৪ উপজেলায় এ কর্মসূচি সম্প্রসারিত হবে। এই পর্ব বাস্তবায়নের জন্য নতুন করে খরচ হবে ৩৩০ কোটি টাকা। আর মোট বরাদ্দ হচ্ছে ৫৪৪ দশমিক ৯০ কোটি টাকা।
সচিব জানান, কোন কোন উপজেলায় নতুন করে এ কর্মসূচি চালু হবেÑ তা এখনও ঠিক হয়নি। পরিসংখ্যান ব্যুরোর জরিপ অনুযায়ী দেশের সবচেয়ে দারিদ্র্যপীড়িত উপজেলাগুলোকেই নির্বাচন করা হবে। নতুন করে ৬৪ উপজেলার কতজনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবেÑ তাও ঠিক হয়নি বলে জানান তিনি। আওয়ামী লীগের ২০০৮ সালের নির্বাচনী ইশতেহারে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি ছিল, ২০১০ সালে ৬ মার্চ এ কর্মসূচি কুড়িগ্রাম থেকে শুরু হয়। এ কর্মসূচির আওতায় ১৮ থেকে ৩৫ বয়স বয়সী বেকার নারী ও পুরুষদের তিন মাসের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। প্রশিক্ষণের সময় তাদের প্রতিদিন ১০০ টাকা করে ভাতা দেয়া হয়। প্রশিক্ষণ শেষে তাদের ২ বছরের জন্য বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে অস্থায়ী নিয়োগ দেয়া হয়, তখন তারা ২০০ টাকা করে প্রতিদিন পান, এরপর তারা দক্ষতা অর্জন করে পরবর্তী পর্যায়ে কাজে লাগাতে পারে।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, প্রথম পর্যায়ে কুড়িগ্রাম, বরগুনা ও গোপালগঞ্জের ১৯টি উপজেলায় ৫৬ হাজার ৮০১ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এদের মধ্যে ৫৬ হাজার ৫৪ জনকে অস্থায়ী নিয়োগ পেয়েছিলেন। দ্বিতীয় থেকে চতুর্থ পর্যায়ে দেশের ৩৭টি উপজেলায় ১ লাখ ১১ হাজার ১১৬ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। তাদের মধ্যে ১ লাখ ৮ হাজার ৭৮২ জন কাজ পেয়েছেন। পঞ্চম থেকে সপ্তম পর্যায়ে এ কর্মসূচি সম্প্রসারণের কাজ ২০১৬-১৭ অর্থ বছর থেকে শুরু হবে জানিয়ে শফিউল বলেন, ২০১৭ সালের ৩০ জুনের আগেই তা শুরু হবে।
আজকের সভায় পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক (সংশোধন) অধ্যাদেশ ২০১৬-এর খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এই সংশোধনের ফলে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প সরকার যখন প্রয়োজন মনে করবে, তখন প্রকল্পটি ওই ব্যাংকের অধীনে নেবে। আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত জুনের পর থেকে এই প্রকল্প ওই ব্যাংকের অধীনে যাওয়ার কথা ছিল।
কৃষি জমির উর্বরতা হ্রাস ঠেকাতে জৈব কৃষি নীতির অনুমোদন :
রাসায়নিক সারের অসম ব্যবহারের ফলে কৃষি জমির উর্বরতা হ্রাস ঠেকাতে ‘জাতীয় জৈব কৃষি নীতি, ২০১৬’ এর খসড়ার অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, জাতীয় কৃষি নীতি ২০১৩’র আলোকে এ নীতি প্রণয়ণ করা হয়েছে। এতে ছয়টি অনুচ্ছেদ রয়েছে।
এর উদ্দেশ্য হলো: পৃথিবীর ১৭২টি দেশে জৈব চাষাবাদ হচ্ছে। তার মধ্যে ৮৭টি দেশ স্ব-স্ব জৈব কৃষি উদ্ভাবন করেছে। তারই অনুসরণ করে সার্কভুক্ত ভারত ও ভুটান করে ফেলেছে; বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও নেপালে প্রণয়নের কাজ চলছে। এই নীতি অনুমোদনের পরিপ্রেক্ষিতে নীতি চূড়ান্তহলো।
নতুন এই কৃষি নীতিতে শুধু জৈব অংশ আলোচনায় রয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিব বলেন, রাসায়নিক সারের অসম ব্যবহারের ফলে ভূমির যে অবক্ষয় হয় এবং উর্বরতা হ্রাস পায় সেটাকে জৈব ও সুষম সারের ব্যবহারের মাধ্যমে কীভাবে ভারসাম্য আনা যায় তা ফোকাস করা হয়েছে। মাটির গুণাগুণ ও কৃষি পরিবেশের প্রতি যেন নেতিবাচক প্রভাব না পড়ে সেজন্য এ গাইড লাইন।
এনসিটিবি আইনে বিদ্যালয় ও পাঠ্যপুস্তকের সংজ্ঞা নির্ধারণ ১৯৮৩ সালের একটি অধ্যাদেশকে ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদ ও সামান্য পরিবর্তন করে ‘জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্য পুস্তক বোর্ড আইন, ২০১৬’র খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে মন্ত্রিসভায়।
বিদ্যালয় ও পাঠ্যপুস্তকের সংজ্ঞা পরিবর্তন করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিব বলেন, বিদ্যালয়ের সংজ্ঞায় ‘মাদ্রাসা ব্যতীত’ উল্লেখ ছিল। এখন থেকে স্বীকৃত যেকোনো প্রাক-প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত প্রতিষ্ঠান ‘বিদ্যালয়’ এবং পাঠ্যপুস্তক বলতে প্রাক-প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ্যবই বোঝাবে।
বোর্ডের সদস্য আটজন এবং চেয়ারম্যানসহ হবেন নয়জন। সভায় চারজন সদস্য থাকলে কোরাম হবে। পদাধিকার বলে চেয়ারম্যান সভায় সভাপতিত্বে করবেন, তিনি না থাকলে সিনিয়র সদস্য সভাপতিত্ব করবেন। সদস্যদের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা ও মাধ্যমিক শিক্ষা থেকেও দু’জন সদস্য যুক্ত করা হবে।
সভায় পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক (সংশোধন) অধ্যাদেশ ২০১৬-এর খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এই সংশোধনের ফলে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প সরকার যখন প্রয়োজন মনে করবে, তখন প্রকল্পটি ওই ব্যাংকের অধীনে নেবে। আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত জুনের পর থেকে এই প্রকল্প ওই ব্যাংকের অধীনে যাওয়ার কথা ছিল।
গত ৩-৭ অক্টোবর থাইল্যান্ডের ব্যাংককে অনুষ্ঠিত ইউনিভার্সেল পোস্টাল ইউনিয়নের ২৬তম ইউনিভার্সেল পোস্টাল কংগ্রেসে ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রীর পোস্টাল অপারেশন কাউন্সিলের সদস্য মনোনীত হওয়ায় মন্ত্রিসভাকে অবিহত করা হয়েছে।
জাতীয় অধ্যাপক এমআর খান এবং খ্যাতিমান চিকিৎসক ফজলুল আজিম ও আবুল কাশেমের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব গ্রহণ করেছে মন্ত্রিসভা। বৈঠকে তিন চিকিৎসকের মৃত্যুতে শোকপ্রস্তাব গ্রহণ করা হয় বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ