Inqilab Logo

রোববার, ২২ মে ২০২২, ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

মারাত্মক বায়ূ দূষণের কবলে দিল্লি ছড়াচ্ছে পাশের রাজ্যগুলোতেও

প্রকাশের সময় : ৮ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক
দীপাবলীর পর থেকে দূষণ সৃষ্টি হওয়া কুয়াশা-ধোঁয়াশায় দিল্লিবাসীর অবস্থা সঙ্কটজনক। দূষণের আসল কারণ খুঁজতে চলেছে একে অপরকে দোষারোপের পালাও। দিল্লি সরকার আঙুল তুলেছে প্রতিবেশী রাজ্যগুলোয় ফসল জ্বালানোর দিকে। রাজধানীর আকাশে দূষণের মাত্রা বাতাসে এতটাই বেশি যে, সেখানকার বাসিন্দাদের কাছে দিল্লি সরকারের আবেদন খুব দরকার না পড়লে বাড়ি থেকে না বেরোতে। তবে দিল্লিবাসীর হৃদয়ে আশার আলো জাগিয়ে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, আগামীকাল বুধবার সকাল থেকে ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। দিল্লিবাসী পরিষ্কার আকাশের মুখ দেখতে পাবে।
তবে তার আগে গতকাল ভারী কুয়াশায় ঢাকা ছিল দিল্লির আকাশ। আজ (মঙ্গলবার) হাল্কা থেকে মাঝারি কুয়াশা থাকবে, জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। গত ২৪ ঘন্টায় ঘন কুয়াশায় দিল্লি ও আশপাশের এলাকায় দৃশ্যমান্যতা একেবারেই কমে গিয়েছিল। ৫০০ মিটারের মধ্যেও কিছু দেখা যাচ্ছিল না। গত রোববারও প্রতিবেশী রাজ্যগুলোয় ফসল জ্বালানোকে দূষণবৃদ্ধির মূল কারণ হিসেবে তুলে ধরেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এমনকি নাসার উপগ্রহ চিত্রেও উদ্বেগের ছবি ধরা পড়েছে। নাসার ফায়ার ম্যাপারেও দেখা গেছে দিল্লি এবং তার আশপাশের এলাকায় গত কয়েক সপ্তাহে যেরকম আগুন জ্বলেছে, তার জন্যে বাতাসে দূষণের পরিমাণ এত বৃদ্ধি পেয়েছে।
সফর বা দ্য সিস্টেম অফ এয়ার কোয়ালিটি অ্যান্ড ওয়েদার ফোরকাস্টিং অ্যান্ড রিসার্চের তরফে দাবি করা হয়েছে, গতকাল বাতাসে পিএম ২.৫-এর প্রতি কিউবিক মিটারে ৬১৩ মাইক্রোগ্রাম পর্যন্ত উপস্থিতির প্রমাণ পাওয়া গেছে। গত রোববার এই পদার্থের বাতাসে উপস্থিতির পরিমাণ ছিল প্রতি কিউবিক মিটারে ৫৮৮ মাইক্রোগ্রাম।
আবহাওয়া অফিসের দাবি, বাতাসের ধীরে চলাচল, নিম্নমুখী তাপমাত্রা ও অতিরিক্ত পরিমাণের আর্দ্রতা কুয়াশা তৈরির জন্যে একেবারে উপযুক্ত পরিবেশ। এখন দিল্লির পরিবেশও একেবারেই তাই। এই মুহূর্তে রাজধানী ও তার আশপাশের এলাকায় আগামী দুদিন এই পরিস্থিতিই থাকবে। তারজন্যেই কুয়াশার দাপটও একইরকম থাকবে।
রোববারও হাওয়া চলাচলের যা গতি ছিল তা সাধারণ সময়ের চেয়ে অনেক কম। দিল্লিতে এইসময় শুষ্ক ও উত্তুরে হাওয়া থাকে। এবছরই আবহাওয়া একটু অন্যরকম। দীপাবলীর রাত থেকেই হাওয়া চলাচলের গতি অনেক কমছিল। তারপর ধীরে ধীরে পরিস্থিতি এতটা জটিল আকার ধারণ করেছে।
বাতাসে ধুলা ও ধোঁয়ার মাত্রা আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির স্কুলগুলো তিন দিন বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি পাঁচ দিন সব ধরনের নির্মাণকাজ বন্ধ রাখারও সিদ্ধান্ত হয়েছে। গত রোববার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের রাজ্য সরকার এ ঘোষণা দেয়। কয়েক দিন থেকে ধুলা ও ধোঁয়ার মোটা স্তর ঢেকে ফেলেছে রাজধানী শহরকে। এ অবস্থায় সৃষ্ট সঙ্কটময় পরিস্থিতির কারণে স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় কর্তৃপক্ষের অনেক সভা স্থগিত করতে হয়েছে। গত শনিবার দিল্লি নগরকে ‘গ্যাস চেম্বার’-এর সঙ্গে তুলনা করেন কেজরিওয়াল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাবে দিল্লি অধিকাংশ স্থানে বায়ূদূষণের পরিমাণ স্বাভাবিক মাত্রার চেয়ে ১৫ গুণ বেশি। সূত্র : এবিপি আনন্দ



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মারাত্মক বায়ূ দূষণের কবলে দিল্লি ছড়াচ্ছে পাশের রাজ্যগুলোতেও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ