Inqilab Logo

সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২১ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

যেসব খাবার ব্রণ থেকে দূরে রাখবে

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ মার্চ, ২০২২, ১১:১২ পিএম

ব্রণ শুধু সৌন্দর্যই নষ্ট করে না, এটি যথেষ্ট অস্বস্তিকরও। হরমোনের তারতম্যের কারণে এটি বেশি হতে পারে। বিশেষ করে বয়ঃসন্ধিকালে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। এছাড়াও আরও অনেক কারণে হতে পারে ব্রণ। ত্বকে যেকোনো সমস্যা দেখা দিলে খাবারের ক্ষেত্রে সতর্ক হতে হবে। কারণ আমরা যা খাই, তার বড় প্রভাব পড়ে আমাদের ত্বকেও। কিছু খাবার ব্রণের সমস্যা বাড়িয়ে তোলে, কিছু খাবার ব্রণ থেকে দূরে রাখে। আজ চলুন জেনে নেওয়া যাক কোন খাবারগুলো ব্রণ থেকে দূরে রাখে-

পানি

পানি আমাদের শরীরে শরীরে পুষ্টি এবং অক্সিজেন বহন করে। সেইসঙ্গে অঙ্গগুলোকে পুষ্ট করে এবং ব্রণের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য উপযুক্ত করে তোলে। পর্যাপ্ত পানি পান করলে তা শরীরের ভেতরে জমে থাকা দূষিত পদার্থ বের করে দেয়। যে কারণে ব্রণ থাকে দূরে।

লেবুর রস

লেবুর রস অ্যাসিড বর্জ্য দূর করতে সাহায্য করে। সেইসঙ্গে লিভারকে সাইট্রিক অ্যাসিড দিয়ে পরিষ্কার করে। এটি রক্তের বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে এনজাইম তৈরি করে। ফলে ত্বক থাকে সতেজ ও উজ্জ্বল।

তরমুজ

ত্বকের যেকোনো ধরনের দাগ দূর করতে কাজ করে তরমুজ। এই ফলে থাকে ভিটামিন এ, বি এবং সি। এসব উপাদান ত্বককে সতেজ, উজ্জ্বল এবং আর্দ্র রাখে। তরমুজ খেলে তা ব্রণ দূর করে এবং ব্রণের দাগও কমায়।

দই

দইয়ের আছে অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণ। ত্বক পরিষ্কার করতে এবং আটকে থাকা ছিদ্রগুলোকে অবরুদ্ধ করতে কাজ করে এটি। ব্রণ থেকে দূরে থাকতে হলে প্রতিদিন এক বাটি দই খাওয়ার অভ্যাস করুন।

আপেল

উপকারী ফলের তালিকায় উপরের দিকেই আছে আপেলের নাম। আপেলে থাকে প্রচুর পেকটিন। এটি হলো ব্রণের শত্রু। তাই ব্রণমুক্ত থাকতে নিয়মিত আপেল খান।

আখরোট

আখরোট খাওয়ার অনেকগুলো উপকারিতার মধ্যে একটি হলো এটি ত্বকের মসৃণতা ও কোমলতা বাড়াতে সাহায্য করে। আখরোটের তেলে থাকে লিনোলিক অ্যাসিড, যা ত্বকের গঠন বজায় রাখতে কাজ করে। এটি ত্বককে ভেতর থেকে আর্দ্র রাখে।

দুগ্ধজাত পণ্য

আমাদের সুস্থ ত্বকের জন্য অন্যতম প্রয়োজনীয় হলো সুষম খাবার। কম চর্বিযুক্ত দুগ্ধজাত পণ্যে থাকে ভিটামিন এ। এটি ত্বককে ভালো রাখে। দূরে রাখে ব্রণের সমস্যাও।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ