Inqilab Logo

বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

তালতলীতে ৮ দিন যাবৎ শিশু সন্তানসহ এক গৃহবধূ নিখোঁজ

বরগুনা জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ মার্চ, ২০২২, ৬:১৬ পিএম

বরগুনার তালতলীতে নানা বাড়ি যাওয়ার কথা বলে ৮ দিন যাবৎ শিশু সন্তানসহ জেসমিন আক্তার নামের এক গৃহবধূ নিখোঁজ রয়েছে। স্ত্রী সন্তান নিখোঁজ থাকায় পাগল প্রায় তার স্বামী ইব্রাহিম। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছেন স্বামী। বুধবার (১৬ মার্চ) সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেছেন ইব্রাহিম।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়,গত ৬ বছর পূর্বে উপজেলার সোনাকাটা ইউনিয়নের সেরাজ মাতুব্বরের ছেলে ইব্রাহিম মাতুব্বরের সাথে একই এলাকার মো. চুন্নুর মেয়ে জেসমিনের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পরে দাম্পত্য জীবন সুখেই কাটে তাদের। তাদের কোল জুড়ে দুটি সন্তান রয়েছে। গত ৯ মার্চ সকালে একই এলাকায় তার নানী বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে একবছরের পুত্র সন্তান ইয়াছিনকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। ঔ দিন দুপুরে ইব্রাহিম নানা শ্বশুর বাড়ি গিয়ে জানতে পারেন তার স্ত্রী ঐ বাড়িতে যায়নি। পরে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও স্ত্রী ও সন্তানের কোন খোঁজ পায়নি। পরে তালতলী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন স্বামী।

নিখোঁজ জেসমিনের স্বামী ইব্রাহিম মাতুব্বর বলেন, আমার স্ত্রী তার নানাবাড়ি কথা বলে বাড়ি থেকে আমার ছেলেকে নিয়ে বের হয়। এরপর থেকে তার কোনো খোঁজখবর আমরা পাইনি। এজন্য তালতলী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করি। নিখোঁজের কিছুদিন পরে জানতে পারি সে তার পরকীয়া প্রেমিকের সাথে পালিয়ে গেছে। এখন আমার স্ত্রীর দরকার নেই শুধুমাত্র আমার সন্তানকে চাই আর কিছু চাইনা। তিনি আরো বলেন গত ছয় মাস আগে বরগুনার একটি ছেলের সাথে তার পরকীয়া সম্পর্ক ছিল৷ এ নিয়ে ঝামেলা হলে সেটা স্থানীয়ভাবে মীমাংসা হয়। হয়তোবা সেই ছেলের সাথে পালিয়ে গেছে।

এ বিষয় জেসমিনের নানী রাবেয়া বলেন, একটি ছেলের সাথে সম্পর্ক ছিল এটা শুনেছিলাম। তবে বর্তমানে আমার নাতনি জেসমিন কোথায় আছে আমি জানিনা।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, এ বিষয় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছে। আমরা মেয়েটিকে উদ্ধারের চেষ্টা করছি।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বরগুনা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ