Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১২ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

‘পার্বত্য রত্ন’ খেতাবে ভূষিত হলেন পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এম,পি

বান্দরবান থেকে মো. সাদত উল্লাহ | প্রকাশের সময় : ১৭ মার্চ, ২০২২, ১:১৪ পিএম

পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় একটানা ৬ বারের সংসদ সদস্য ও পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপিকে ‘পার্বত্য রত্ন’ খেতাবে ভূষিত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ খেতাব প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বীর বাহাদুরকে ক্রেষ্ট ও সনদ তুলে দেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ।

বান্দরবানে বত্রিশ বছর ধরে একনাগাড়ে ৬ বার সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করা, সেইসাথে শান্তিচুক্তির পর থেকে পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে অসামান্য অবদান, পার্বত্য শান্তিচুক্তি স্বাক্ষর ও বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা, এ পর্যন্ত ৩ শতাধিক মসজিদ মাদ্রাসা ও ধর্মীয় উপাসনালয় নির্মাণ, হাজার হাজার কোটি টাকার সড়ক,ব্রীজ ও অবকাঠামো উন্নয়ন, বিদ্যুৎ ও সোলার লাইন স্থাপন, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় বান্দরবান সহ তিন পার্বত্য জেলা কে পর্যটন শিল্পে সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া, পর্যটকদের নিরাপত্তার চাদরে আগলে রাখা, পাহাড়ি বাংগালী দের মাঝে সম্প্রীতির ব্ন্ধন স্থাপনে বিশেষ ভুমিকা নেয়া, বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় সহ অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্টান নির্মাণ ও শিক্ষা ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সহ নানা অবদানের কারণে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে তাকে এ খেতাবে ভূষিত করা হয়েছে বলে জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে তুলে ধরেন।

জানা গেছে, ১৯৯১ সালে বীর বাহাদুর উশৈসিং বান্দরবান ৩০০ আসন থেকে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৯ সাল পর্যন্ত একনাগাড়ে ষষ্ঠবারের মতো এম, পি নির্বাচিত হয়ে পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব পান। এর আগে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।

খেতাব প্রদান অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বীর বাহাদুর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্যবাসীকে ভালবাসেন বলেন বলে অত্র এলাকায় এত উন্নয়ন হয়েছে। আমি জনগণের খেদমত,উন্নয়ন ও সম্প্রীতির বন্ধনে বিশ্বাসী। ফলে দলমত নির্বিশেষে গত ৩ যুগ ধরে মানুষের ভালবাসা পেয়েছি। এ সম্মান আমার নয়, এ খেতাব পার্বত্য বাসীর। আমি খেতাব টি পার্বত্যবাসীর জন্য উৎসর্গ করলাম।

অনুষ্ঠানে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা সভাপতিত্ব করেন। বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আবদুর রহিম চৌধুরী সাধারণ সম্পাদক ও বান্দরবান পৌর মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, যুগ্ম সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য লক্ষীপদ দাশ, যুগ্ম সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মোজাম্মেল হক বাহাদুর, সাংগঠনিক সম্পাদক ক্যসাপ্রু মারমা, চৌধুরী প্রকাশ বড়ুয়াসহ দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সম্মাননা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ