Inqilab Logo

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

প্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণ ঘটনার ৪ দিন পর থানায় মামলা

প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সখিপুর (টাঙ্গাইল) উপজেলা সংবাদদাতা

টাঙ্গাইলের সখিপুর উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নে কির্তনখোলা গ্রামের হাজীর বাজার এলাকায় গত রোববার দুপুরে নিজ বাড়িতে বেলালের প্রতিবন্ধী মেয়ে কিশোরী (১৪) ধর্ষিত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষিত হবার ৪ দিন পর বৃহস্পতিবার রাতে ধর্ষিতার মা ওজুফা বাদি হয়ে রফিকুলকে আসামি করে সখিপুর থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। এলাকার লোকজন ও ধর্ষিতার মা ওজুফা জানায়, প্রতিবন্ধীর মা ওজুফা ঘটনার দিন দুপুরে লাকড়ির জন্য বনবিভাগের বাগানে যায়। এ সুযোগে পার্শ্ববর্তী বাড়ির হেকমতের ছেলে দুই সন্তানের জনক রফিকুল (৩০) বাড়িতে একা পেয়ে ওই প্রতিবন্ধী কিশোরীর মুখ গামছা দিয়ে বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওজুফা বাড়িতে এসে তার মেয়েকে অজ্ঞান অবস্থায় দেখে চোখে পানি দিলে জ্ঞান ফিরে এবং ধর্ষণের সমস্ত ঘটনাটি শুনে। হেকমত গজারিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সহ-সভাপতি।
ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার জন্য হেকমত, আউয়াল, বঙ্গনুর, শাহাবুদ্দিনসহ এলাকার মাতাব্বরগণ ধর্ষিতার মা ওজুফাকে ৩০ হাজার টাকা দেয় এবং কাউকে কিছু বললে তাদেরকে এলাকা ছাড়া করবে বলে হুমকি দিয়ে আসে। সখিপুর থানার অফিসার-ইন-চার্জ মাকছুদুল আলম বলেন, হুমকির কারণে ধর্ষিতা ও ধর্ষিতার মা ওজুফা থানায় আসার সাহস পায়নি। পরে তাদেরকে থানায় এনে জবানবন্দি রেকর্ড করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে। ধর্ষক রফিকুল পলাতক থাকায় তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে তাকে গ্রেফতারে জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণ ঘটনার ৪ দিন পর থানায় মামলা
আরও পড়ুন