Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

সউদী দূতাবাসে ওমরাহ ভিসা ইস্যুতে গড়িমসি

প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১১:৫০ পিএম, ১১ নভেম্বর, ২০১৬

৩৭টি মোফার মেয়াদ বাতিল : ওমরাহ গমনেচ্ছুদের মাঝে হতাশা বাড়ছে
শামসুল ইসলাম : ঢাকাস্থ সউদী দূতাবাসের সিদ্ধান্তহীনতায় সউদী সরকারের ইস্যুকৃত ওমরাহ যাত্রীদের মোফার মেয়াদ বাতিল হচ্ছে। সউদী দূতাবাসে প্রতি দিন ওমরাহ ভিসার জন্য মোফা ও পাসপোর্ট নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে পাসপোর্ট জমা দিতে পারছে না ওমরাহ এজেন্সিগুলো। সউদী দূতাবাস ওমরা’র পাসপোর্ট জমা নেয়া শুরু না করায় বিভিন্ন ওমরাহ এজেন্সি নতুন মোফা নিয়ে বিপাকে পড়ছে। গত ২৭ অক্টোবর থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ওমরাহ যাত্রীরা ওমরাহ পালনের জন্য পবিত্র মক্কা-মদিনায় যাওয়ার সুযোগ পেলেও বাংলাদেশিরা এ সুযোগ এখনো পাচ্ছে না। ইতিমধ্যেই মুনা ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস গ্রুপের ওমরাহ এজেন্সি সিয়াম এভিয়েশনের ৩৭টি নতুন মোফার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। মোফার মেয়াদ বাতিল হওয়ায় ওমরাহ এজেন্সি সিয়াম এভিয়েশন আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। মেয়াদ বাতিল হওয়া ওমরাহ মোফাগুলো পুনরায় সউদী হজ মন্ত্রণালয় থেকে নতুন মোফা আনতে হবে। এতে ওমরাহ গমনেচ্ছুদের মাঝে হতাশা বাড়ছে। মুনা ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস গ্রুপের ও হাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি চেয়াম্যান মোহাম্মদ হেলাল গতকাল শুক্রবার ইনকিলাবকে এতথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সউদী দূতাবাসের গাফলতির দরুণ সউদী সরকারের ইস্যুকৃত বাংলাদেশী ওমরাহ যাত্রীদের নতুন মোফার মেয়াদ বাতিল হচ্ছে। এতে প্রত্যেক বাতিলকৃত মোফার জন্য ২৫ হাজার টাকা করে গচ্চা দিতে হচ্ছে। তিনি অনতিবিলম্বে বাংলাদেশী ওমরাহ যাত্রীদের ভিসা ইস্যু কার্যক্রম চালু করার জন্য সউদী রাষ্ট্রদূত-এর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। ওমরাহ এজেন্সি চ্যালেঞ্জার ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস লি. (০৮)-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক-ও হাবের প্রতিষ্ঠাতা সহ-সভাপতি সৈয়দ গোলাম সরওয়ার জানান, ৯ জন ওমরাহ যাত্রীর মোফা পাওয়া গেছে। কিন্তু সউদী দূতাবাস ওমরাহ যাত্রীদের ভিসা ইস্যু না করায় বিপুল সংখ্যক ওমরাহ যাত্রীর মোফা আনা সম্ভব হচ্ছে না। এসব ওমরাহ যাত্রীর মোফার মেয়াদও শেষের পথে। ওমরাহ এজেন্সি এয়ার স্পিড প্রাঃ লিমিটেড (০১)-এর অংশিদার মাওলানা মুস্তাফিজুর রহমান জানান, গত ৬ নভেম্বর সউদী ওমরাহ এজেন্সি ইউনাইটেড সউদী কোং (৮১) থেকে ১১জন ওমরাহ যাত্রীর মোফা হাতে পাওয়া গেছে। কিন্তু সউদী দূতাবাস ওমরাহ ভিসা ইস্যু কার্যক্রম শুরু না করায় এসব মোফার মেয়াদ শেষ হবার পথে। তিনি বলেন, ওমরাহ ভিসার জন্য পাসপোর্ট নিয়ে কয়েক দিন যাবত সউদী দূতাবাসে গেলেও পাসপোর্ট জমা নিচ্ছে না। কবে নাগাদ ওমরাহ ভিসার পাসপোর্ট জমা নেয়া হবে তা’ সুস্পষ্ট করে কিছু বলা হচ্ছে না দূতাবাস থেকে।
ঈদ-উল-আযহার কার্যক্রম সম্পন্ন হবার পর গত ২২ অক্টোবর থেকে সউদী হজ মন্ত্রণালয় সারা বিশ্বের জন্য ওমরাহ মোফা ইস্যু কার্যক্রম শুরু করেছে। গত ২৩ অক্টোবর বাংলাদেশের মুনা ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস গ্রুপের ওমরাহ এজেন্সি সিয়াম এভিয়েশন প্রথম সউদী হজ মন্ত্রণালয় থেকে একজন ওমরাহ যাত্রীর মোফা পেয়েছে। গত ২৫ অক্টোবর আরো ৩৬জন ওমরাহ যাত্রীর মোফা পেয়েছে সিয়াম এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ। গত ২৭ অক্টোবর থেকে বিভিন্ন দেশ থেকে ওমরাহ যাত্রীগণ ওমরাহ পালনের জন্য পবিত্র মক্কা-মদিনায় যাওয়া শুরু করেছে। ধর্ম মন্ত্রণালয় গত অক্টোবর মাসে প্রথম পর্বে ১৭৪টি বৈধ ওমরাহ এজেন্সির নামের তালিক প্রকাশ করে। গত ৯ নভেম্বর দ্বিতীয় পর্বে ৫৪টি বৈধ ওমরাহ এজেন্সির নামের তালিকা প্রকাশ করে ধর্ম মন্ত্রণালয়। এসব ওমরাহ এজেন্সির মাধ্যমে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ওমরাহ পালনের জন্য সউদী আরবে যাওয়ার লক্ষ্যে পাসপোর্ট জমা দিয়ে মোফার জন্য অপেক্ষা করছেন। ওমরাহ এজেন্সি ইউরো এয়ার ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেলস (৪৩১) ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাওলানা মুহাম্মদ মাহমুদুর রহমান জানান, গত ২৯ অক্টোবর সউদী ওমরাহ কোম্পানী বেনার (৮৪) সাথে ওমরাহ চুক্তি সম্পন্ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, সউদী দূতাবাস থেকে ওমরাহ ভিসা চালু না হওয়ায় মোফা আনতে সাহস পাচ্ছি না। একজন ওমরাহ এজেন্সির মালিক জানান, সউদী পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় থেকে ওমরাহ চালুর ব্যাপারে কোনো চিঠি না আসায় এবং দূতাবাসের কাউন্সিলর চীফ দেশে না থাকায় ওমরাহ ভিসা ইস্যু কার্যক্রম শুরুর ক্ষেত্রে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না দূতাবাস কর্তৃপক্ষ। তার মতে, এসব সমস্যার দরুণ ওমরাহ যাত্রীরা কেন পবিত্র মক্কা-মদিনায় যাওয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবে?



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ