Inqilab Logo

শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৪ মুহাররম ১৪৪৪

লি পেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী

প্রকাশের সময় : ১৩ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ট্রাম্পের বিজয় ও ব্রেক্সিট প্রভাব ফেলতে পারে
ইনকিলাব ডেস্ক : ফ্রান্সের ফ্রন্ট ন্যাশনাল পার্টির মেরিন লি পেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদে সদ্য বিজয়ী ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতোই কিছু করতে চান। ডানপন্থী এই বিতর্কিত নারী নেত্রী আগামীতে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচন করতে চান। বসন্তের আগে দেশটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হবে না, কিন্তু তার আগেই ফ্রন্ট ন্যশনাল পার্টির নেতা মেরিন লি পেন ব্রেক্সিট ও ডোনাল্ড ট্রাম্প ইস্যুকে কেন্দ্র করে তার রাজনৈতিক জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী হয়ে উঠেছেন।
তিনি বলেন, নিশ্চিতভাবে একটি নতুন বিশ^ গড়ে উঠছে। ট্রাম্পের বিজয়ে বিশ^ায়ন বিরোধী একটি অংশ চিহ্নিত হয়ে পড়েছে। ব্রেক্সিটের পরও ঠিক এরকম একটা ঘটনা ঘটেছিলো। লিনস-এর কাছে হেনিন-বেমন্টে বক্তব্যদানকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় শহরের মেয়র তার সঙ্গে ছিলেন।
শিল্পে কর্মসংস্থানহীনতা, অভিবাসন নিয়ে উদ্বেগ, অভ্যন্তরীণ অর্থনীতির দুরবস্থাÑ এ ধরনের অনেক কিছুই লি’কে জিয়ী হওয়ার ক্ষেত্রে আশাবাদী করে তুলছে।
২০১২ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি দ্বিতীয় রাউন্ডে নির্বাচন করার মতো প্রয়োজনীয় সমর্থন পাননি। তবে, হেনিন-বেওমন্টে মিস লি ৩৫ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন, যা ফ্রাঁসোয়া ওঁলাদ এবং নিকোলাস সারকোজির চেয়ে বেশি ছিলো। সে কারণেই তিনি আশা করছেন, হেনিনের বিষয়টি দেশব্যাপী প্রভাবব ফেলতে পারে।
জরিপে দেখা যায়, চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় যেতে তিনি যথেষ্ট সমর্থন পাবেন, যেখানে তিনি সাবেক রিপাবলিকান প্রধানমন্ত্রী অ্যালান জুপের প্রতিদ্বন্দ্বী হবেন। ফরাসি রাজনৈতিক বিশ্লেষক ফ্রেডরিক ডেবি বলেছেন, বর্তমানে জুপে পরিস্কারভাবে এগিয়ে আছেন, কিন্তু নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা সবকিছু পাল্টে দিতে পারে। এমনকি যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের অভিজ্ঞতাও এ ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলতে পারে। লি বলেন, ২০১৬ সালেও ফরাসিরা পরিবর্তনের পক্ষে ছিল। এখনও তারা যেকোনো মূল্যে পরিবর্তন চায়, তাই আমি আশাবাদী। স্কাই নিউজ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লি পেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী
আরও পড়ুন