Inqilab Logo

শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

বহুত্ববাদ লঙ্ঘন : দিল্লিতে গোশতের দোকান বন্ধের নির্দেশে ব্যাপক ক্ষোভ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ এপ্রিল, ২০২২, ১২:০২ এএম

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উৎসব নবরাত্রি উপলক্ষে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে গোশতের অনেক দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সরকারি কর্মকর্তারা আগামী দু’দিনের জন্য দিল্লির গোশতের সব দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়ার পর এ নিয়ে সেখানে ব্যাপক ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। দিল্লির দক্ষিণ এবং পূর্বাঞ্চলীয় জেলার মেয়ররা বলেছেন, এই উৎসবের সময় বেশিরভাগ মানুষ আমিষ জাতীয় খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকেন। অনেকেই অভিযোগ করেছেন যে, উন্মুক্ত স্থানে গোশত কাটা তারা পছন্দ করেন না। তবে গোশতের দোকান বন্ধ করে দেওয়ায় অনেকে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন। তারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অনেকেই বলছেন, এটি ভারতের বহুত্ববাদের লংঘন। নবরাত্রিতে মহিষাসুরের ওপর দেবী দুর্গার বিজয় উদযাপন করা হয়, এবং ৯ দিনের উৎসবের সময় ধর্মপ্রাণ হিন্দুরা সাধারণত উপবাস করেন অথবা গোশত খাওয়া থেকে বিরত থাকেন। এমনকি তাদের খাবারে রসুন, পেঁয়াজ এবং নির্দিষ্ট মশলাও ব্যবহার করা হয় না। ভারতের রাজধানীর ক্ষমতায় রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি। তবে কেজরিওয়ালের দলের কোনো কর্মকর্তা দিল্লিতে গোশতের দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশ দেননি। আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত দিল্লির সব গোশতের দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হিন্দু জাতীয়তাবাদী জনতা পার্টি (বিজেপি) সমর্থিত মেয়ররা। বিজেপিদলীয় মেয়রদের এই পদক্ষেপ ঘিরে অনলাইনে তীব্র সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই বলছেন, কাউকে গোশত খাওয়া থেকে বিরত রাখা অথবা গোশতকে কেন্দ্র করে অন্যের জীবিকা উপার্জনের স্বাধীনতা লঙ্গন করা উচিত নয়। দিল্লির বেসামরিক কর্মকর্তাদের গোশতের দোকান বন্ধের নির্দেশের তীব্র সমালোচনা করেছেন পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল তৃণমূল কংগ্রেসের নেত্রী ও সংসদ সদস্য মহুয়া মৈত্র। তিনি বলেন, সংবিধান আমাকে যখন খুশি গোশত খাওয়ার অনুমতি দিয়েছে। জম্মু এবং কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহ দোকান বন্ধের নির্দেশের সমালোচনা করে পাল্টা প্রশ্ন করেছেন ‘মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এলাকার প্রত্যেক অমুসলিম বাসিন্দা অথবা পর্যটককে রোজার মাসে জনসমক্ষে খেতে বারণ করা ঠিক কি না?’ তবে একই সময়ে কেন পেঁয়াজ এবং রসুনের ক্রয়-বিক্রয় নিষিদ্ধ করা হয়নি, সেই প্রশ্নও তুলেছেন কেউ কেউ। তাদের প্রশ্ন, ‘কেন শুধু গোশতের দোকান বন্ধ?’ বিবিসি।

 



 

Show all comments
  • কামাল রাহী ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩৯ এএম says : 0
    মানুষের অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে, ক্ষমতা অপব্যবহার করা হচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Muhammad Sador Uddin ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩৬ এএম says : 0
    বিজেপি ক্ষমতায় আসার পরে ধীরে ধীরে ভারত একটি সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিণত হচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Abir Ahmed ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩৬ এএম says : 0
    প্রতিটি ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার অনুরোধ করছি।
    Total Reply(0) Reply
  • Akther Hussain ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩৪ এএম says : 0
    সারাবিশ্বে কোথাও দেখেনি নিজস্ব ধর্মের খাবারের উপর সরকার থেকে নিষেধাজ্ঞা দিতে। আজব এক ধর্মান্ধ দেশ খাবারের উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়।
    Total Reply(0) Reply
  • MD Sirajul Islam ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩৫ এএম says : 0
    পৃথিবীতে মানুষ দিন দিন শিক্ষিত হচ্ছে আর এই দেশটা বরবর জাতিতে পরিনতি হচ্ছে
    Total Reply(0) Reply
  • Saiful Bashar ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩২ এএম says : 0
    ধীরে ধীরে একটা পুরো রাষ্ট্র কিভাবে সাম্প্রদায়িক হয়ে উঠে তার চাক্ষুস উদাহরণ মুদির ইন্ডিয়া।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Tarek Sheikh ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩৩ এএম says : 0
    বিশ্ব মানবতা এখন কোথায়।ভারত যে ভাবে মুসলিমদের প্রতি উঠে পড়ে লেগেছে এতে মানবাধিকার লঙ্ঘনের উচ্চ পর্যায়ে চলে গেছে তারা।তাদের বিচার করা হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Ripon Molla ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩৫ এএম says : 0
    এই হিংসার কারণে পৃথিবীর কোথাও হিন্দু রাষ্ট্র নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • Sayed Shazzad Hossain ৭ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৩৬ এএম says : 0
    পাশের দেশের অল্পতেই তারা নাক গলাতে শুরু করে। মানুষের খাদ্যাভ্যাসের উপর হস্তক্ষেপ চরম মানবাধিকার লঙ্গন।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দিল্লি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ