Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ৮

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ এপ্রিল, ২০২২, ৮:৪২ পিএম

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের চরাঞ্চলে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০টি বসতঘরে ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে হনুফা বেগম (৫০) ও রিফাত নামের একশিশু আহত হয়েছে। এছাড়াও তসলিমা বেগমসহ (৩৪) আরও ৫ জন আহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত থেকে শনিবার দুপুর পর্যন্ত সদর উপজেলার মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের আনন্দপুর, লক্ষিদিবি, নোয়াদ্দা, মুন্সীকান্দি, কংশপুরাসহ ৫/৬টি গ্রামে দফায় দফায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে একটি পক্ষ।

এ সময় সাবেক চেয়ারম্যান মহসিনা হক কল্পনার সমর্থকদের ২০টি বাড়ি ঘরে ব্যাপক ভাংচুর চালিয়ে লুটপাটের অভিযোগ উঠে বর্তমান চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারীর লোকজনদের বিরুদ্ধে। জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার রাতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বর্তমান চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারীর ও সাবেক চেয়ারম্যান মহাসিন হক কল্পণার লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় উভয় গ্রুপের লোকজনের বাড়িঘরে ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

স্থানীয়রা জানান, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর থেকে রিপন পাটোয়ারীর সন্ত্রাসী বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ ইউনিয়নের সাধারণ মানুষসহ সাবেক চেয়ারম্যান মহসিনা হক কল্পনার সমর্থকরা। তারই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার দিবাগত রাত থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারীর লোকজন সকাল পর্যন্ত ৫/৬টি গ্রামে ডুকে প্রতিপক্ষের বাড়ি ঘরে ককটেল হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করে। এতে করে চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে পুরো ইউনিয়ন জুড়ে।

সাবেক চেয়ারম্যান মহসিনা হক কল্পনা বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারীর সন্ত্রাসী বাহিনী রাতভর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের আমার কর্মী-সমর্থকদের বাড়িঘরে ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ সময় হামলাকারীরা নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ছাড়াও গবাদি পশু গরু ও ছাগল লুটে নেয়। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বর্তমান চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারী বলেন, শান্তিপূর্ণ ইউনিয়নটিকে অশান্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছে একটি পক্ষ। তারা আমার কর্মী-সমর্থকদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে লুটপাট করেছে। এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, ঘটনার পর থেকে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সংঘর্ষে আহত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ