Inqilab Logo

শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯, ২৪ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

আজ নয়া প্রধানমন্ত্রী পাচ্ছে পাকিস্তান

প্রধানমন্ত্রী পদে কোরেশি ও শাহবাজের মনোনয়ন বৈধ : পিটিআই সদস্যদের পদত্যাগের হুমকি বিদেশি ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু : টুইটারে ইমরান খান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ এপ্রিল, ২০২২, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক
শনিবারের দীর্ঘ এবং ক্লান্তিকর জাতীয় পরিষদ অধিবেশনে অনাস্থা ভোটে ইমরান খানের বিদায়ের পরদিনই রাজনীতিবিদরা যথারীতি তাদের কর্মকাণ্ড শুরু করেছেন এবং প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনের জন্য তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। পাকিস্তান তাহরিকে ইনসাফ পিটিআই ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মাহমুদ কুরেশি জাতীয় পরিষদের সেক্রেটারিয়েটে চারটি ফর্ম জমা দিয়েছেন, আর সম্মিলিত বিরোধী দলের প্রার্থী, পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নাওয়াজ (পিএমএল-এন) সভাপতি শাহবাজ শরিফ ১৩টি ফর্ম জমা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের জন্য আজ বেলা ২টায় জাতীয় পরিষদের অধিবেশন ফের বসবে। এদিকে আজই ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির একটি বিশেষ আদালত (সেন্ট্রাল-আই) সোমবার ১৪০০ কোটি টাকার মানি লন্ডারিং মামলায় শাহবাজ এবং ছেলে হামজাকে অভিযুক্ত করতে পারে।মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময়, পিটিআই শাহবাজের মনোনয়নের বিষয়ে আপত্তি তোলে এবং পরবর্তীতে পিটিআই-এর কুরেশি এবং পিএমএল-এন নেতা আহসান ইকবালের মধ্যে উত্তপ্ত শব্দ বিনিময় হয়।
আওয়ান বলেছেন যে, পিএমএল-এন সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা বিচারাধীন রয়েছে এবং তার কাগজপত্র প্রত্যাখ্যান করার আহ্বান জানিয়েছেন। পিটিআই-এর আপত্তি শেষ পর্যন্ত প্রত্যাখ্যান করা হয় এবং উভয় প্রার্থীর মনোনয়নপত্র গ্রহণ করা হয়।
গতকাল এর আগে পিটিআইয়ের কানওয়াল শওজাব এবং জেইন কুরেশি শাহ মাহমুদ কোরেশির পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে সংসদ ভবনে পৌঁছেন। গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে শওজাব বলেন, দলের কোর কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে কাগজপত্র জমা দেওয়া হবে।
জাতীয় পরিষদ সচিবালয় প্রাথমিকভাবে ঘোষণা করেছিল যে, দুপুর ২টা হবে প্রধানমন্ত্রী এবং সংসদের নেতা নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময়সীমা এবং বিকাল ৩টায় যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া শুরু হবে। এর আগে সচিবালয় সময় বিলম্ব করে বিবৃতি জারি করলেও পরে বিরোধীদের বিরোধিতায় তা ফিরিয়ে নেয়। সচিবালয় অনুসারে, পিটিআই সময় বিলম্ব করার অনুরোধ করেছিল। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের জন্য আজ ২টায় জাতীয় পরিষদের অধিবেশন বসবে বলে জানানো হয়েছে।
এদিকে অফিস ছাড়ার একদিন পর গতকাল পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার ক্ষমতাচ্যুতি নিয়ে প্রথমবারের মতো মুখ খুলেছেন। তিনি বলেন, শাসন পরিবর্তনে বিদেশি ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আজ পাকিস্তানের স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হলো। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় ইমরান খান বলেন, ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হয়। কিন্তু শাসন পরিবর্তনে বিদেশি ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আজ আবার পাকিস্তানের স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হয়েছে।
দেশটির রাজনৈতিক দল পাকিস্তান তাহরিকে ইনসাফের (পিটিআই) এই চেয়ারম্যান বলেছেন, দেশের জনগণই সর্বদা তাদের সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্র রক্ষা করে। এদিকে, ‘বিদেশি ষড়যন্ত্রের’ বিরুদ্ধে দেশব্যাপী বিক্ষোভের ঘোষণা দিয়েছে পিটিআই। এরপরই পিটিআই চেয়ারম্যান কথিত ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছেন। এর আগে, গত শনিবার দিনভর নানা নাটকীয়তা, মধ্যরাতে সংসদের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকারের পদত্যাগের পর অনাস্থা ভোটে হেরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ হারান ইমরান খান। দেশটির ৩৪২ সদস্যের সংসদের ১৭৪ জনই ইমরান খানের বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ায় ক্ষমতাচ্যুত হন তিনি।
পিটিআই এমপিরা আজ পদত্যাগ করবেন : পিটিআইয়ের সিনিয়র নেতা এবং সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী রোববার ঘোষণা করেছেন যে, সোমবার পিএমএল-এন সভাপতি শাহবাজ শরীফ মনোনয়ন পেলে তার দলের সদস্যরা জাতীয় পরিষদ থেকে পদত্যাগ করবেন। রোববার প্রাক্তন জ্বালানি মন্ত্রী হাম্মাদ আজহার এবং প্রাক্তন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ফারুখ হাবিবের সাথে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময়, ফাওয়াদ বলেন যে, পিটিআই প্রধান ইমরান খান বানি গালায় পার্টির কোর কমিটির একটি বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। যেখানে তিনি পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে, তার ক্ষমতাচ্যুতি ছিল বিদেশী শক্তির সহায়তায় একটি শাসক পরিবর্তন অপারেশনের অংশ। তিনি বলেছেন, ‘যখন একটি দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে সিদ্ধান্তগুলো বাইরে থেকে নেয়া হয়, এটি তার দাসত্বের সবচেয়ে বড় লক্ষণ’।
প্রাক্তন তথ্যমন্ত্রী বলেছেন যে তার দল এনএ-র স্পিকার এবং পাকিস্তানের প্রধান বিচারপতির কাছে সমস্ত গোপন নথি পাঠিয়েছে। তিনি বলেছেন, পিটিআই প্রাক্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশিকে প্রধানমন্ত্রী পদের প্রার্থী হিসাবে মনোনীত করেছে।
‘আমরা প্রধানমন্ত্রীর পদের জন্য কোরেশিকে বেছে নিয়েছি, কারণ প্রথমত, আমরা শাহবাজ শরিফের মনোনয়নকে চ্যালেঞ্জ করতে চাই, কারণ তার বিরুদ্ধে ১৪০০ কোটি টাকার দুর্নীতির মামলা রয়েছে’। তিনি তার দুঃখ প্রকাশ করেন এবং বলেন যে, ‘বিদেশী, নির্বাচিত এবং আমদানি করা সরকার চাপিয়ে দেয়া এবং তার ওপরে শাহবাজ শরিফকে সরকারপ্রধান করা দুর্ভাগ্যজনক হবে।
তিনি সাংবাদিকদের জানান, বৈঠক চলাকালে দলের কোর কমিটি বলেছে যে, পিটিআইয়ের সকল সদস্যদের বিধানসভা থেকে পদত্যাগ করা উচিত। তিনি বলেন, আমরা জাতীয় পরিষদ থেকে পদত্যাগ শুরু করব। ‘আর যদি শাহবাজ শরিফের মনোনয়নপত্র গৃহীত হয়, তাহলে আমরা সোমবার আমাদের পদত্যাগপত্র জমা দেব’। তবে কিছুক্ষণ পরে এনএ সচিবালয় পিটিআই-এর আপত্তি প্রত্যাখ্যান করে এবং শাহবাজের মনোনয়ন গ্রহণ করে।
তিনি আরও বলেন যে আজ রাতে একটি সংসদীয় দলের বৈঠকও ডাকা হয়েছে, যোগ করেছেন যে পিটিআইয়ের বেশিরভাগ সদস্যরা ইতিমধ্যেই পার্টি চেয়ারম্যানের কাছে তাদের পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।
ফাওয়াদ বলেছেন যে সমস্ত পিটিআই সমর্থক ইমরান খানের বিরুদ্ধে কথিত বিদেশী ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে তাদের বিক্ষোভ অব্যাহত রাখবে। তিনি আরো বলেন, আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই দলটি নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করবে। তিনি বলেন যে, এটি একটি ‘মহা অন্যায়’ যে, শাহবাজ প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন যেদিন তাকে একটি মানি লন্ডারিং মামলায় অভিযুক্ত করা হবে’।
উল্লেখ্য যে, ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির একটি বিশেষ আদালত (সেন্ট্রাল-ও) সোমবার ১৪০০ কোটি টাকার মানি লন্ডারিং মামলায় শাহবাজ এবং ছেলে হামজাকে অভিযুক্ত করতে পারে।
বিবিসির প্রতিবেদন ‘ভুয়া : আইএসপিআর : গতকাল রোববার বিবিসি উর্দু-এর একটি প্রতিবেদনকে ‘ভুয়া’ বলে অভিহিত করেছে ইন্টার-সার্ভিস পাবলিক রিলেশন্স (আইএসপিআর), যাতে দাবি করা হয়েছে যে, পাকিস্তান তাহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারপারসন ইমরান খান এবং সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার মধ্যে একটি ‘অপ্রীতিকর’ বৈঠক হয়েছে। অনাস্থা ভোটের মাধ্যমে ইমরানকে ক্ষমতাচ্যুত করার কয়েক ঘণ্টা আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
বিবিসি তার প্রতিবেদনে দাবি করেছে যে, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জেনারেল বাজওয়াকে সেনাপ্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছেন এবং ‘অসাধারণ নিরাপত্তা রুটিন’সহ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে তার সফরের আশা করছেন না।
আইএসপিআর বলেছে, ‘আজকে প্রকাশিত বিবিসি উর্দু গল্পটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং একগুচ্ছ মিথ্যা। সাধারণ প্রচারের গল্পে কোনো বিশ্বাসযোগ্য, খাঁটি এবং প্রাসঙ্গিক উৎেসর অভাব নেই এবং এটি মৌলিক সাংবাদিকতার নীতিমালা লঙ্ঘন করে, জাল গল্পে কোন সত্য নেই এবং স্পষ্টভাবে একটি সংগঠিত বিভ্রান্তিমূলক প্রচারণার অংশ বলে মনে হচ্ছে। বিষয়টি বিবিসি কর্তৃপক্ষের কাছে নেওয়া হচ্ছে।”
ইমরানে আনুগত্যের দাম দিতে হতে পারে সাবেক স্পিকারকে : ইমরান নিয়াজি সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য বিরোধীদের অনাস্থা প্রস্তাবে ভোটদান করতে অস্বীকার করেছিলেন স্পিকার আসাদ কাইসার। ইমরান খানের প্রতি এ আনুগত্য দেখাতে গিয়ে স্পিকার আসাদ কাইসার পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্টের আদেশ অবমাননা করেছেন। শেষ পর্যন্ত পাক অ্যাসেম্বলিতে আস্থা ভোট হলেও তা হয় স্পিকারের পদত্যাগের পর। এই আবহে আদালত অবমাননার নোটিশ ধরানো হতে পারে প্রাক্তন স্পিকার কাইসারকে।
শনিবার রাতে পাকিস্তানের সংসদে দাঁড়িয়ে শাহবাজ শরিফ বলেন, ‘আমরা নিরপরাধ মানুষকে জেলে পাঠাব না। আমরা প্রতিশোধ নেব না। কিন্তু আইন আইনের পথে হাঁটবে এবং ন্যায়বিচার হবে। পাকিস্তানে নতুন ভোর আসতে চলেছে।’
নতুন প্রধানমন্ত্রী সঙ্গে সঙ্গে নির্বাচনের ঘোষণা করতে পারেন বা চলতি অ্যাসেম্বলির মেয়াদ শেষ হওয়া পর্যন্ত সরকার চালিয়ে যেতে পারেন। সেই ক্ষেত্রে ২০২৩ সালের আগস্ট পর্যন্ত মেয়াদ আছে বর্তমান অ্যাসেম্বলির। তারপর ৬০ দিনের মধ্যে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে হবে।
পাকিস্তানের সংবিধানের অধীনে, একজনকে প্রধানমন্ত্রী হতে হলে পাক অ্যাসেম্বলির নিম্নকক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠতার দ্বারা নির্বাচিত হতে হবে। মানে, ৩৪২ সদস্য বিশিষ্ট অ্যাসেম্বলিতে ন্যূনতম ১৭২টি ভোট পেতে হবে।
শনিবার রাতেই ইমরান খান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর জন্য বরাদ্দ সরকারি বাসভবন ত্যাগ করেন। শেষ মুহূর্তে আস্থা ভোট হলেও সুপ্রিম কোর্ট তার বিরুদ্ধে অবমাননার কোনো মামলা চালায় কি না, সেদিকে সবার নজর। এহেন পরিস্থিতিতে ইমরান খানের পরবর্তী পদক্ষেপের দিকেও সবার নজর। দীর্ঘ রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে বেশির ভাগ সময় ইমরানের সঙ্গী ছিল সংগ্রাম।
বিদ্রোহী এমপিদের ডিসিট চেয়েছে পিটিআই : পাকিস্তান তহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) পদত্যাগ করার আগে জাতীয় পরিষদের স্পিকার আসাদ কায়সারের কাছে তার ২০ বিদ্রোহী আইনপ্রণেতার বিরুদ্ধে রেফারেন্স জমা দিয়েছে। রেফারেন্সগুলো প্রধানমন্ত্রী পাঠিয়েছিলেন এবং সংসদে দলের প্রধান হুইপ আমির ডোগার স্পিকারের কাছে হস্তান্তর করেছিলেন।
রেফারেন্সগুলো সংবিধানের ৬৩-এ অনুচ্ছেদের অধীনে দায়ের করা হয়েছিল। নিবন্ধটি প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনে সংসদীয় দলের নির্দেশ না মানার জন্য বা আস্থা ভোট বা অনাস্থার কারণে দলত্যাগের কারণে একজন এমএনএকে অযোগ্য ঘোষণার পরামর্শ দেয়।
রেফারেন্সগুলো পড়ে যে ভিন্নমতাবলম্বীরা পিটিআই ছেড়ে দেওয়ার জন্য ‘বড় আকারের সম্প্রচার এবং ভিডিওগুলোর’ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছিল, প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবের জন্য বিরোধীদের সাথে যোগ দিয়েছিল এবং দলত্যাগের কাজগুলোকে অস্বীকার বা খণ্ডন জারি করা হয়নি।
তারা যোগ করেছে যে, বিদ্রোহী আইন প্রণেতাদের কাছে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়েছিল কেন তাদের বিরুদ্ধে এনএ থেকে তাদের ডিসিট করার ঘোষণা জারি করা হবে না, কিন্তু তারা তাদের প্রতিক্রিয়া জানাতে বা তাদের অবস্থান স্পষ্ট করতে ব্যর্থ হয়েছিল।
তারা আরো বলেছে যে, সদস্যরা তাদের ‘পবিত্র দায়িত্ব’ মেনে চলতে ব্যর্থ হয়েছে এবং পিটিআই, ভোটার এবং জনসাধারণের আস্থা লঙ্ঘন করেছে তাদের আনুগত্য অন্য দলের সাথে স্যুইচ করে।
তারা [বিরোধিতাকারীরা] একটি ‘গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার অপূরণীয় ক্ষতি করেছে এবং পিটিআই-এর কারণ ও উদ্দেশ্যকে নির্লজ্জভাবে আহত করেছে’, রেফারেন্সগুলো পড়ে।
স্পীকারকে অনুচ্ছেদ ৬৩-এ এর অধীনে সদস্যদের ডি-সিট করার প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল কারণ তারা পিটিআই থেকে দলত্যাগ করেছিল।
গত মাসে, একজন ভিন্নমতাবলম্বী প্রকাশ করেছিলেন যে, তাদের মধ্যে অন্তত ২৪ জন ইসলামাবাদের সিন্ধু হাউসে অবস্থান করছেন।
জাহাঙ্গীর তারিন গ্রুপ নামে পরিচিত বিদ্রোহী পিটিআই গোষ্ঠীর সদস্য রাজা রিয়াজ দাবি করেছিলেন যে, তারা ‘নিরাপত্তার উদ্বেগের কারণে’ সিন্ধু হাউসে চলে গেছেন। তিনি বলেছিলেন যে, ২৪ জন পিটিআই ভিন্নমতাবলম্বী এমএনএ’র একটি দল ফেডারেল রাজধানীর সিন্ধু হাউসে উপস্থিত ছিল এবং এটি ‘তাদের বিবেক অনুসারে’ অনাস্থা প্রস্তাবে ভোট দেবে।
ইমরান খানের ডিজিটাল মিডিয়ার ফোকাল পার্সনের বাড়িতে অভিযান : পাঞ্জাবের ডিজিটাল মিডিয়ার প্রাক্তন ফোকাল পার্সন আজহার মাশওয়ানির মতে, সম্প্রতি ডিজিটাল মিডিয়াতে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ফোকাল পার্সন ডক্টর আরসলান খালিদের লাহোরের বাড়িতে গতকাল ভোরবেলা ১১ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি অভিযান চালিয়েছিল বলে অভিযোগ রয়েছে।
কথিত অভিযান, যা শহরের ওয়াপদা টাউন এলাকায় সঙ্ঢ়টিত হয় এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরানকে তার সরকার হারানোর পরে, প্রথমে পিটিআই-এর অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে রিপোর্ট করা হয়, ‘সাহরির সময় ১১ জন লোক ডা. আরসালানের বাড়িতে আক্রমণ করেছিল। ফোন ও ল্যাপটপ কেড়ে নেয়।[তারা] ৮০ বছর বয়সী মাসহ পরিবারের সদস্যদের হুমকি দেয়। ‘তিনি গত চার সপ্তাহ ধরে ক্রমাগত হুমকি পেয়েছিলেন যারা জনসাধারণের কাছ থেকে আসা অনলাইন প্রতিক্রিয়া পছন্দ করেন না’।
এনওসি ছাড়া পাকিস্তানি কর্মকর্তাদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা : পাকিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতিতে অনাপত্তিপত্র বা এনওসি ছাড়া সরকারি কর্মকর্তাদের দেশত্যাগ বন্ধে ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির (এফআইএ) কর্মীদের সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। আগের দিনগত মধ্যরাতে পাকিস্তানের পার্লামেন্ট স্পিকার আসাদ কাইসারের পদত্যাগের ঘোষণা এবং ইমরানে খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোটের প্রক্রিয়া শুরুর সময় এ নির্দেশনা দেয়া হয় বলে জানিয়েছে ডন। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, পাকিস্তানের সব আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এফআইএর অভিবাসন কর্মীদের সর্বোচ্চ পর্যায়ে সতর্ক রাখার পাশাপাশি এনওসি না নিয়ে দেশ ছাড়তে চাওয়া সরকারি কর্মকর্তাদের আটকে দেওয়ার কথা নির্দেশনায় বলা হয়েছে। একই সঙ্গে এয়ারপোর্ট সিকিউরিটি ফোর্সকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে এবং বিদেশগামীদের তল্লাশি বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া সামরিক শহর রাওয়ালপিন্ডিতেও বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা। সূত্র : জিও টিভি, জিও নিউজ ও এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।



 

Show all comments
  • Mohammad Shamir Sarker ১১ এপ্রিল, ২০২২, ৫:০৭ এএম says : 0
    ইমরান খান জাতিসংঘে এবং ওআইসিতে ইসলামের জন্য যে জ্বালাময়ী বক্তব্য দিয়েছিলেন তা ইতিহাসে এক অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে ইনশাআল্লাহ। এই ভূমিকা আর কোন মুসলিম নেতা পারবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ আছে। তবে এটুকু পরিষ্কার যে, যারা ইসলামের পক্ষে, মুসলিমদের পক্ষে কাজ করবে, কথা বলবে তাদের বিরুদ্ধে ইহুদি খ্রিস্টান সম্প্রদায় ঐক্য বদ্ধ হয়ে মুসলিমদের দিয়েই মুসলিমদের ক্ষতি করবে। আমরা মুসলমানরা ক্ষমতার জন্য কতটা নিচে নামতে পারি তা পাকিস্তানের দিকে তাকালে বুঝতে পারি। আহহহহ অন্তরটা কেঁপে উঠলো, আল্লাহ পাক ইমরান খানের প্রতি রহম করুক।
    Total Reply(0) Reply
  • Sheikh Nahid Mahmood ১১ এপ্রিল, ২০২২, ৫:২১ এএম says : 0
    কেনো কিছুই দ্রুত করা ভালো না, সব কিছুর পরিবর্তন আস্তে আস্তে করতে হয়। ইমরান খানকে যদি পরিপূর্ণ সুযোগ দেওয়া হতো তাহলে হয়তো পাকিস্তান ঘুরে দাড়ানোর একটা সুযোগ পেতো।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Abdur Rahman Shojol ১১ এপ্রিল, ২০২২, ৫:২২ এএম says : 0
    তুরস্কের প্রতিচ্ছবি দেখা যাচ্ছে! জনবিস্ফোরণ হচ্ছে। ইমরান খানের পক্ষে লাখো জনতা রাজপথে।হয়তো তরুণদের কাছে জনপ্রিয়তায় সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন খান সাহেব।
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল রাহী ১১ এপ্রিল, ২০২২, ৭:১২ এএম says : 0
    পাকিস্তান এখন আবার পরিবারতন্ত্রে ফিরত যাচ্ছে। পরে সামরিকতন্ত্র হতে পারে
    Total Reply(0) Reply
  • Monsur Rahman ১১ এপ্রিল, ২০২২, ৭:১৩ এএম says : 0
    ইমরান খান দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের শিকার।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তানের


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ