Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

ইমরানের সমর্থনে সোচ্চার তারকারা

শাহবাজ শরীফের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ এপ্রিল, ২০২২, ১২:০০ এএম

গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন তারকার সোশ্যাল মিডিয়া ও রাজপথে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে সমর্থন জানিয়ে আসছেন। এর আগে, তারা গত ৮ মার্চ ইমরানের বিরুদ্ধে পেশ করা অনাস্থা প্রস্তাবের সময় তাদের হতাশা প্রকাশ করেছিল। পরবর্তী ভোটে প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়েছিল, যার ফলে অনলাইনে আরো সেলিব্রিটি অসন্তোষ তৈরি হয়েছিল। এদিকে, নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরীফের একটি প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে ইমরান খানের দল পিটিআই।

গত রোববার রাতে অনাস্থা ভোটের ফলাফল ঘোষণার পরপরই ইমরানকে তার পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়, যার ফলে সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় হয়। সেলিব্রিটিরা পিটিআই সমর্থকদের সাথে অনলাইনে এবং ব্যক্তিগতভাবে তাদের প্রতিবাদে যোগ দিয়েছেন। সাইরা ইউসুফ, জারা নূর আব্বাস, হারুন শহীদ এবং অন্যান্য তারকারা পাকিস্তানের বিভিন্ন শহরে পিটিআই আয়োজিত বিক্ষোভে অংশ নেন। সিনফ-ই-আহান অভিনেত্রী সাইরা এবং তার বোন পালওয়াশা ইনস্টাগ্রামে প্রতিবাদের ছবি এবং ভিডিও শেয়ার করেছেন।

বাদশা বেগম অভিনেতা আব্বাস তার ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে প্রতিবাদের ক্লিপগুলিও শেয়ার করেছেন এবং লিখেছেন, ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ, ইমরান খান জিন্দাবাদ (পাকিস্তান দীর্ঘজীবী হোক, ইমরান খান দীর্ঘজীবী হোক)।’ অভিনেতা সানা জাভেদ পিটিআই এবং ইমরানের অফিসিয়াল ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা ক্লিপগুলি শেয়ার করেছেন এবং একটি ইনস্টাগ্রামের স্টোরিতে ‘অ্যাই অ্যাই পিটিআই’ এর পাশাপাশি ‘পাক সার জমিন শাদ বাদ’ উচ্চারণ করেছেন।

অভিনেতা এবং প্লাস্টিক সার্জন ফাহাদ মির্জা সমাবেশ থেকে লাইভ রিপোর্ট করেছেন এবং লিখেছেন, ‘মানুষ যখন একটি আদর্শে বিশ্বাস করে তখন এটি ঘটে! ন্যায়সঙ্গত কারণ ছাড়াই ইমরান খানকে অপসারণের প্রতিবাদে করাচিতে মানবতার একটি সমুদ্র বের হয়েছিল।’ তিনি আরও লিখেছেন যে ইমরান, একক সত্তা হিসাবে, থামানো যেতে পারে তবে আমরা যদি এক জাতি হিসাবে একসাথে উঠি তবে আমরা অপ্রতিরোধ্য হব। তিনি লেখেন, ‘কোনও দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যবস্থা বা দুর্নীতিগ্রস্ত মাফিয়া আর আমাদের সুবিধা নিতে পারবে না! এটি আমাদের সকলের জন্য একটি শিক্ষা হোক... আমাদের দেশ, আমাদের জনগণ, আমাদের সন্তানদের নিরাপত্তা দেয়া ও রক্ষা করার জন্য আমাদের প্রত্যেককে দাঁড়াতে হবে।’

অভিনেতা উসামা খান লাহোরের লিবার্টি চকে অনুষ্ঠিত সমাবেশের ছবিও শেয়ার করেছেন। টিভি হোস্ট এবং অভিনেতা আজফার রেহমানও লাহোরের বিক্ষোভের একটি ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করেছেন এবং লিখেছেন, ‘আমি আজ আমার জাতির জন্য গর্বিত। কেউ আমাদের পরাজিত করতে পারবে না।’ অভিনেতা সারওয়াত গিলানিও লিবার্টি চকে জড়ো হওয়া ভিড়ের একটি বায়বীয় দৃশ্য পুনরায় শেয়ার করে তার ইনস্টাগ্রাম গল্পগুলিতে নিয়েছিলেন এবং লিখেছেন, ‘একটি অবৈতনিক ভিড় এমন দেখাচ্ছে! পাকিস্তান জিন্দাবাদ।’

অভিনেতা শাহরোজ সবজওয়ারি সমাবেশকে একটি ‘রায়’ বলেছেন এবং লিখেছেন, ‘আমরা আমাদের নেতা ইমরান খানের সাথে আছি।’ প্রবীণ অভিনেতা আতিকা ওধো প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর সাথে একটি থ্রোব্যাক ছবি শেয়ার করেছেন এবং লিখেছেন যে, লোকেরা যদি পাকিস্তানকে ‘নিরাপদ হাতে এবং বিদেশী হস্তক্ষেপ থেকে স্বাধীন’ রাখতে চায় তবে ইমরানের পাশে দাঁড়ানোর সময় এসেছে।

তিনি আরো লিখেছেন যে, ইমরানকে তার মেয়াদ পূর্ণ করার অনুমতি দেওয়া উচিত ছিল এবং ‘রাজনৈতিক দুর্বৃত্তরা’ জানত যে, তিনি যদি তা করেন তবে তিনি তাদের কাউকেই রেহাই দেবেন না। ‘তারা নিজেদের বাঁচানোর জন্য বিক্রি হয়ে গেছে এবং পাকিস্তানের কী হবে সে সম্পর্কে তারা চিন্তা করেনি। এর চেয়ে লজ্জাজনক আর কী হতে পারে।’

গায়ক অ্যানি খালিদ লিখেছেন, ‘ভিড়ের মধ্যেও মেয়েদের বাচ্চাদের সাহায্য করার জন্য পুরুষরা তাদের বাহু দিয়ে শিকল তৈরি করছিল। এটি হৃদয়গ্রাহী ছিল। এটি ইমরান খানের পাকিস্তান।’ অভিনেতা মাহিরা খানও সাবেক প্রধানমন্ত্রীর জন্য কয়েকটি শব্দ লিখেছিলেন এবং বলেছিলেন যে, যদিও শেষ সরকার নিখুঁত ছিল না, পাকিস্তানের জনগণ ‘ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি চায় না’। অভিনেতা-কাম-গায়ক ফারহান সাইদও তার মতামত জানাতে টুইটারে লিখেছেন, ‘আজ যা ঘটেছে তা দুঃখজনক কিন্তু বিশ্বাস করুন যখন আমি বলি, আজ প্রকৃত বিপ্লব শুরু হয়েছে।’
গায়ক অসীম আজহার পাকিস্তান ডেমোক্রেটিক মুভমেন্টকে (পিডিএম) প্রশ্ন করেছেন এবং বলেছেন যে, তাদের কর্মকাণ্ডে পুরো জাতি ইমরানের গুরুত্ব আরো বেশি উপলব্ধি করেছে। অভিনেতা সানাম সাইদ তার টুইটে ‘জনগণের শক্তি’ এর প্রশংসা করেছেন, কারণ তিনি একটি ক্লিপ পুনরায় শেয়ার করেছেন যা ইমরান তাকে সমর্থন করার জন্য ‘স্বতঃস্ফূর্তভাবে’ উপস্থিত জনতার প্রশংসা করার জন্য পোস্ট করেছেন।

অভিনেতা শান শহিদ ইমরান খানের সাথে নিজের একটি ছবি শেয়ার করেছেন এবং লিখেছেন, এ জনগণের সমুদ্র তোমার সাথে, এ জাতি তৈরি করেছে। তুমি জিতবে, হেরে গেলেও তুমিই আলেকজান্ডার দ্য গ্রেট। অভিনেতা মুনিব বাট, যিনি ইমরানের সমর্থনে সোচ্চার ছিলেন, তিনিও সমাবেশ থেকে টুইট করেছেন এবং বলেছেন ‘আমরা ভিখারি নই’ এবং তারা পাকিস্তানের সার্বভৌমত্বের জন্য লড়াই করবো।

অভিনেতা বিলাল আশরাফ লিখেছেন যে, এটি কেবল শুরু এবং ‘আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে একটি ভাল ভবিষ্যতের জন্য, একটি ভাল পাকিস্তানের জন্য দাঁড়িয়েছি’। সঙ্গীত প্রযোজক রোহেল হায়াতও টুইট করেছেন এবং বলেছেন যে, জাতি এইমাত্র জেগেছে এবং সারা দেশ থেকে আসা ছবিগুলো এর প্রমাণ। তিনি লিখেছেন, ‘এটাই আসল বিজয়। এই বাস্তবতার সামনে কোনো ষড়যন্ত্র দাঁড়াতে পারবে না। যতক্ষণ পর্যন্ত না ইমরান খানকে দেশের নেতা হিসেবে তার সঠিক জায়গা ফিরে পাবে ততক্ষণ পর্যন্ত এটি শেষ হবে না।’ অভিনেতা মারিয়াম নাফীস এবং গায়ক কুরাতুলাইন বালুচকেও সমাবেশে দেখা গেছে, কারণ তারা উভয়েই রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে তাদের মতামত শেয়ার করেছেন।

এদিকে, পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরীফের প্রস্তাবে সম্মত হয়নি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পিটিআই। মার্কিন অ্যাসিস্টেন্ট সেক্রেটারি অফ স্টেট ডোলান্ড লু-র বার্তা নিয়ে ইমরান খান অভিযোগ করেছিলেন। সেই বার্তাই তদন্ত করতে চেয়েছিলেন শাহবাজ শরীফ, যা প্রত্যাখ্যান করেছে পিটিআই। ইমরান বলেছিলেন, তাকে সরাবার জন্য বিদেশি চক্রান্ত হচ্ছে। যেহেতু তিনি রাশিয়ার সমর্থনে কথা বলেছিলেন, তাই তাকে সরাবার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে বিদেশি শক্তি। ওয়াশিংটনের পাকিস্তানি দূতকে এ হুমকি দেয়া হয়েছে। তিনি পাকিস্তানের সার্বভৌমত্বের জন্য লড়ছেন বলে দাবি করেছিলেন ইমরান। আমেরিকা অবশ্য জানিয়েছে, তারা কোনো হুমকি দেয়নি।

ক্ষমতায় এসে শাহবাজ ঘোষণা করেন, পাকিস্তান পার্লামেন্টের জাতীয় সুরক্ষা কমিটি এটা খতিয়ে দেখবে। যে বার্তার কথা বলা হচ্ছে, তা ঠিক, না কি জাল সেটা দেখাই হবে কমিটির কাজ। সেখানে সামরিক ও আইএসআই কর্তারা থাকবেন। আর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও রাষ্ট্রদূত, যিনি এই চিঠি পাঠিয়েছিলেন বলা হচ্ছে, তিনিও থাকবেন। কিন্তু ইমরান খানের দল পাকিস্তান তাহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) এ তদন্তে রাজি হয়নি। তারা জানিয়েছে, নতুন প্রধানমন্ত্রী যেভাবে এগোতে চাইছেন, তাতে পিটিআইয়ের সায় নেই। তারা এ প্রস্তাব খারিজ করে দিচ্ছে। তাদের দাবি, সুপ্রিম কোর্ট একটা স্বাধীন কমিশন গঠন করুক। তারা বিষয়টির তদন্ত করুক। আর তদন্তকারী কমিশনের প্রধান হবেন এমন একজন, যাকে সকলে মেনে নেবে।

পিটিআই নেতা ফাওয়াদ চৌধুরী সোমবার প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেন, জাতীয় পুনর্মিলন অধ্যাদেশ-টাইপ চুক্তি প্রদানের জন্য এটি নতুন প্রধানমন্ত্রীর একটি ‘কুৎসিত প্রচেষ্টা’ এবং পিটিআই এটি প্রত্যাখ্যান করেছে। তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টের উচিত বিষয়টি তদন্ত করার জন্য একটি স্বাধীন কমিশন গঠন করা, তদন্ত সংস্থার প্রধান এমন একজন ব্যক্তি যাকে কেউ আপত্তি করতে পারে না। সূত্র : দ্য ডন।



 

Show all comments
  • Jashim Chowdhury ১৩ এপ্রিল, ২০২২, ৪:২৫ এএম says : 0
    ক্ষোভ-বিক্ষোবের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে। এর বাহিরে বেশী কিছু করার ক্ষমতা নাই। আমেরিকা, পাকিস্তানি সেনাবাহিনী আর বিরোধী পক্ষ যেখানে সব এক হয়েছে সেখানে ইমরানের কিছু করার ক্ষমতা নেই!
    Total Reply(0) Reply
  • Md Mizanur Rahman ১৩ এপ্রিল, ২০২২, ৪:২৫ এএম says : 0
    ইমরান খান যদিও পার্লামেন্টে হেরে প্রধানমন্ত্রীর পদ হারালেন তবুও দোয়া রইলো তার প্রতি কারণ তিনি ছিলেন বর্তমান সময়ের মুসলিম নেতাদের একজন
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Mohiuddin ১৩ এপ্রিল, ২০২২, ৪:২৫ এএম says : 0
    ইমরান খানের বিজয় মানে পুরো মুসলিম বিশ্বের বিজয়
    Total Reply(0) Reply
  • Ahiduzzaman Masum ১৩ এপ্রিল, ২০২২, ৪:২৬ এএম says : 0
    সত্যের জয় হবেই ইনশাআল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Rashidul Haque ১৩ এপ্রিল, ২০২২, ৪:২৬ এএম says : 0
    Imran Khan the Great Leader for Pakistan
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তানের


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ